বিচার করার সমন্ধে বল ? ...

হতাশায় বিচার বিলম্বিত করার কৌশল জামায়াতের নানামুখী চাপে ও জনসাধারণের নিকট ইমেজ সংকটে হতাশ যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত নেতাদের সংগঠন জামায়াত । ইতোমধ্যে এদের শীর্ষ নেতারা গ্রেফতার হওয়ায় বেকায়দায় সংগঠনটি । এরপর উইকিলিকসের ফাঁস করা নথি অনুযায়ী ২০০৯ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা থেকে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের তারবার্তায় বলা হয়, 'যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরু হলে তা ঠেকাতে সৌদি আরব ও পাকিস্তান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে_ এমনটি নিশ্চিত করেছেন জামায়াতে ইসলামীর নেতারা। যুদ্ধাপরাধের বিচারকে ইসলামবিরোধী হিসেবেও প্রচারণা চালায় জামায়াত।' ওই বার্তায় বলা হয়, ঢাকার মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সাক্ষাতে জামায়াতে ইসলামীর একাধিক প্রতিনিধি এসব ব্যাপার নিশ্চিত করেন। কিন্তু কোনো দেশেরই কাঙ্ক্ষিত সমর্থন পায়নি জামায়াত। সৌদি আরব ও পাকিস্তান বরাবরই যুদ্ধাপরাধের বিচারকে বাংলাদেশের নিজস্ব বিষয় হিসেবে আখ্যা দিয়ে আসছে।একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক দলের শীর্ষ নেতারা বর্তমান সরকারের আমলে মুক্তি পাচ্ছে না, এটা ধরে নিয়ে বিচার প্রক্রিয়াকে বিলম্বিত করার 'কৌশল' নিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। বর্তমান সরকারের বাকি ২২ মাসে বিচার সম্পন্ন যাতে না হয়, তার ওপর বেশি গুরত্ব দিচ্ছে জামায়াত। রাজনৈতিক পরিস্থিতির অবনতি হলে বিচার প্রক্রিয়া আরও শ্লথ হতে পারে আশা করছেন দলটির নেতারা। আগামী সাধারণ নির্বাচনে ক্ষমতার পালাবদল হলে, চার দল ক্ষমতায় এলে জামায়াত নেতাদের মুক্ত করে 'প্রকৃত' যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করার পরিকল্পনার কথা! 'অনুকূল' সময় এলে পুরো বিচার প্রক্রিয়া পাল্টে দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তারদর। ২০১০ সালের ২৯ জুন ও ৭ জুলাই আটক হয় জামায়াতের আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, নায়েবে আমির মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদসহ দলের শীর্ষস্থানীয় পাঁচ নেতা। চলতি বছরের ১১ জানুয়ারি আটক হয় দলের সাবেক আমির গোলাম আযম। দলের নেতারা আটক হলেও বিচারের বিরুদ্ধে রাজপথে আন্দোলন গড়তে ব্যর্থ হয়েছে জামায়াত। গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর ও ১৮ ডিসেম্বর রাজপথে বড় ধরনের তাণ্ডব চালিয়েও সফলতা আসেনি। বরং সরকারের জামায়াতবিরোধী মনোভাব আরও কঠোর হয়েছে। সভা-সেমিনার, ইন্টারনেট, ব্লগ ও সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলোতে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েও বিচারবিরোধী জনমত গঠনে ব্যর্থ হয় জামায়াত।
Romanized Version
হতাশায় বিচার বিলম্বিত করার কৌশল জামায়াতের নানামুখী চাপে ও জনসাধারণের নিকট ইমেজ সংকটে হতাশ যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত নেতাদের সংগঠন জামায়াত । ইতোমধ্যে এদের শীর্ষ নেতারা গ্রেফতার হওয়ায় বেকায়দায় সংগঠনটি । এরপর উইকিলিকসের ফাঁস করা নথি অনুযায়ী ২০০৯ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা থেকে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের তারবার্তায় বলা হয়, 'যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরু হলে তা ঠেকাতে সৌদি আরব ও পাকিস্তান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে_ এমনটি নিশ্চিত করেছেন জামায়াতে ইসলামীর নেতারা। যুদ্ধাপরাধের বিচারকে ইসলামবিরোধী হিসেবেও প্রচারণা চালায় জামায়াত।' ওই বার্তায় বলা হয়, ঢাকার মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সাক্ষাতে জামায়াতে ইসলামীর একাধিক প্রতিনিধি এসব ব্যাপার নিশ্চিত করেন। কিন্তু কোনো দেশেরই কাঙ্ক্ষিত সমর্থন পায়নি জামায়াত। সৌদি আরব ও পাকিস্তান বরাবরই যুদ্ধাপরাধের বিচারকে বাংলাদেশের নিজস্ব বিষয় হিসেবে আখ্যা দিয়ে আসছে।একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক দলের শীর্ষ নেতারা বর্তমান সরকারের আমলে মুক্তি পাচ্ছে না, এটা ধরে নিয়ে বিচার প্রক্রিয়াকে বিলম্বিত করার 'কৌশল' নিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। বর্তমান সরকারের বাকি ২২ মাসে বিচার সম্পন্ন যাতে না হয়, তার ওপর বেশি গুরত্ব দিচ্ছে জামায়াত। রাজনৈতিক পরিস্থিতির অবনতি হলে বিচার প্রক্রিয়া আরও শ্লথ হতে পারে আশা করছেন দলটির নেতারা। আগামী সাধারণ নির্বাচনে ক্ষমতার পালাবদল হলে, চার দল ক্ষমতায় এলে জামায়াত নেতাদের মুক্ত করে 'প্রকৃত' যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করার পরিকল্পনার কথা! 'অনুকূল' সময় এলে পুরো বিচার প্রক্রিয়া পাল্টে দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তারদর। ২০১০ সালের ২৯ জুন ও ৭ জুলাই আটক হয় জামায়াতের আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, নায়েবে আমির মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদসহ দলের শীর্ষস্থানীয় পাঁচ নেতা। চলতি বছরের ১১ জানুয়ারি আটক হয় দলের সাবেক আমির গোলাম আযম। দলের নেতারা আটক হলেও বিচারের বিরুদ্ধে রাজপথে আন্দোলন গড়তে ব্যর্থ হয়েছে জামায়াত। গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর ও ১৮ ডিসেম্বর রাজপথে বড় ধরনের তাণ্ডব চালিয়েও সফলতা আসেনি। বরং সরকারের জামায়াতবিরোধী মনোভাব আরও কঠোর হয়েছে। সভা-সেমিনার, ইন্টারনেট, ব্লগ ও সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলোতে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েও বিচারবিরোধী জনমত গঠনে ব্যর্থ হয় জামায়াত।Hatashay Bichar Bilambit Karar Kaushal Jamayater Nanamukhi Chape O Janasadharner Nikat Image Sankate Hatash Juddhaparadher Daae Abhijukta Netader Sangathan Jamayat Itomadhye Eder Shirsh Netara Grefatar Hway Bekayday Sangathanati Erapar Uikilikser Phas Kara Nathi Anujayi 2009 Saler 2 Februyari Dhaka Theke Markin Rashtraduter Tarbartay Bala Hya Juddhaparadher Bichar Shuru Hale Ta Thekkatte Saudi Arab O Pakistan Gurutbapurna Bhumika Rakhbe Emanati Nishchit Karechhen Jamayate Isalamir Netara Juddhaparadher Bicharake Isalambirodhi Hisebeo Pracharana Chalay Jamayat We Bartay Bala Hya Dhakar Markin Rashtraduter Sange Sakshate Jamayate Isalamir Ekadhik Pratinidhi Esab Byapar Nishchit Curren Kintu Kono Desherai Kankshit Samarthan Payni Jamayat Saudi Arab O Pakistan Barabarai Juddhaparadher Bicharake Bangladesher Nijaswa Vysya Hisebe Akhya Diye Ashche Ekattarer Manabatabirodhi Aparadher Abhijoge Atak Daler Shirsh Netara Bartaman Sorcerer Amole Mukti Pachchhe Na Etah Dhare Niye Bichar Prakriyake Bilambit Karar Kaushal Niyechhe Jamayate Isalami Bartaman Sorcerer Bace 22 Mase Bichar Sampann Jate Na Hya Taur Opar Bedshee Guratba Dichchhe Jamayat Rajnaitik Paristhitir Abanati Hale Bichar Prakriya RO Shlath Hate Pare Asha Karachhen Dalatir Netara Agami Sadharan Nirbachane Xamatar Palabadal Hale CHAR Dal Xamatay Alley Jamayat Netader Mukta Kare Prakrit Juddhaparadhider Bichar Karar Parikalpanar Katha Anukul Camay Alley Puro Bichar Prakriya Palte Their Parikalpana Rayechhe Taradar 2010 Saler 29 June O 7 Gooli Atak Hya Jamayater Amira Maolana Matiur Rahaman Nijami Nayebe Amira Maolana Delawar Hosain Saidi Sekretari Jenarel Ali Ahsan Mohammad Mujahidasah Daler Shirshasthaniya Paanch Neta Chalati Bachharer 11 Januyari Atak Hya Daler Sabek Amira Golam Ajam Daler Netara Atak Haleo Bicharer Biruddhe Rajapathe Andolan Garate Byartha Hayechhe Jamayat Gata Bachharer 19 Septembar O 18 Disembar Rajapathe Bar Dharaner Tandab Chaliyeo Safalata Aseni Wrong Sorcerer Jamayatbirodhi Manobhab RO Kathor Hayechhe Subha Seminar Internet Blog O Samajik Jogajoger Oyebsaitagulote Byapak Pracharana Chaliyeo Bicharbirodhi Janamat Gathane Byartha Hya Jamayat
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


বিচার করার পাঁচ শ্রেণির অধস্তন দেওয়ানি আদালত আছে, যথা *সহকারি জজ আদালত, * উর্ধতন সহকারি জজের আদালত, *যুগ্ম জেলা জজের আদালত, *অতিরিক্ত জেলা জজের আদালত ও *জেলা জজের আদালত। প্রতিটি জেলায় বিচার বিভাগের প্রধান হলেন জেলা জজ। পাবর্ত্য জেলাগুলোতে যেখানে পৃথক কোনো দেওয়ানি আদালত ছিল না সেখানে ম্যাজিস্ট্রেটরাই দেওয়ানি আদালতের দায়িত্ব পালন করতেন। তবে সম্প্রতি সেখানে দেওয়ানি আদালত গঠিত হয়েছে এবং কাজ করছে। হাইকোর্ট বিভাগের তত্ত্বাবধান সাপেক্ষে জেলা জজের গোটা জেলার সকল দেওয়ানি আদালতের উপর প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। জেলা জজের প্রধানত আপীল মামলার বিচার করার ও মামলা পর্যালোচনা করার এখতিয়ার আছে। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে তার মৌলিক এখতিয়ারও রয়েছে। অতিরিক্ত জেলা জজের এখতিয়ার জেলা জজের এখতিয়ারের মতোই সমবিস্তৃত। তিনি জেলা জজ কর্তৃক তার উপর অর্পিত বিচারিক দায়িত্ব পালন করেন। সহকারি জজ ও অধস্তন জজের প্রদত্ত রায়, ডিক্রী বা আদেশের বিরুদ্ধে আপীল জেলা জজদের কাছে করা হয়। অনুরূপভাবে জেলা জজ সহকারি জজদের প্রদত্ত রায়, ডিক্রী বা আদেশের বিরুদ্ধে আনীত আপিলগুলো যুগ্ম জেলা জজদের কাছে নিষ্পত্তির জন্য পাঠাতে পারেন। যুগ্ম জেলা জজদের দেওয়ানি বিষয়ক সীমাহীন মৌলিক এখতিয়ার রয়েছে। দেওয়ানি আদালতগুলো উত্তরাধিকার, বিবাহ বা জাতপাত কিম্বা কোনো ধর্মীয় রীতিনীতি বা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত যেকোন প্রশ্নের নিষ্পত্তিকালে পক্ষগুলো যেখানে মুসলমান সেক্ষেত্রে মুসলিম আইন আর হিন্দু হলে হিন্দু আইন প্রয়োগ করে থাকে। তবে আইনসভা প্রণীত কোনো অধিনিয়মের (Enactment) দ্বারা এ জাতীয় আইনের পরিবর্তন বা বিলোপ ঘটে থাকলে সেসব ক্ষেত্রেই এর ব্যত্যয় ঘটে।
Romanized Version
বিচার করার পাঁচ শ্রেণির অধস্তন দেওয়ানি আদালত আছে, যথা *সহকারি জজ আদালত, * উর্ধতন সহকারি জজের আদালত, *যুগ্ম জেলা জজের আদালত, *অতিরিক্ত জেলা জজের আদালত ও *জেলা জজের আদালত। প্রতিটি জেলায় বিচার বিভাগের প্রধান হলেন জেলা জজ। পাবর্ত্য জেলাগুলোতে যেখানে পৃথক কোনো দেওয়ানি আদালত ছিল না সেখানে ম্যাজিস্ট্রেটরাই দেওয়ানি আদালতের দায়িত্ব পালন করতেন। তবে সম্প্রতি সেখানে দেওয়ানি আদালত গঠিত হয়েছে এবং কাজ করছে। হাইকোর্ট বিভাগের তত্ত্বাবধান সাপেক্ষে জেলা জজের গোটা জেলার সকল দেওয়ানি আদালতের উপর প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। জেলা জজের প্রধানত আপীল মামলার বিচার করার ও মামলা পর্যালোচনা করার এখতিয়ার আছে। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে তার মৌলিক এখতিয়ারও রয়েছে। অতিরিক্ত জেলা জজের এখতিয়ার জেলা জজের এখতিয়ারের মতোই সমবিস্তৃত। তিনি জেলা জজ কর্তৃক তার উপর অর্পিত বিচারিক দায়িত্ব পালন করেন। সহকারি জজ ও অধস্তন জজের প্রদত্ত রায়, ডিক্রী বা আদেশের বিরুদ্ধে আপীল জেলা জজদের কাছে করা হয়। অনুরূপভাবে জেলা জজ সহকারি জজদের প্রদত্ত রায়, ডিক্রী বা আদেশের বিরুদ্ধে আনীত আপিলগুলো যুগ্ম জেলা জজদের কাছে নিষ্পত্তির জন্য পাঠাতে পারেন। যুগ্ম জেলা জজদের দেওয়ানি বিষয়ক সীমাহীন মৌলিক এখতিয়ার রয়েছে। দেওয়ানি আদালতগুলো উত্তরাধিকার, বিবাহ বা জাতপাত কিম্বা কোনো ধর্মীয় রীতিনীতি বা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত যেকোন প্রশ্নের নিষ্পত্তিকালে পক্ষগুলো যেখানে মুসলমান সেক্ষেত্রে মুসলিম আইন আর হিন্দু হলে হিন্দু আইন প্রয়োগ করে থাকে। তবে আইনসভা প্রণীত কোনো অধিনিয়মের (Enactment) দ্বারা এ জাতীয় আইনের পরিবর্তন বা বিলোপ ঘটে থাকলে সেসব ক্ষেত্রেই এর ব্যত্যয় ঘটে।Bichar Karar Paanch Shrenir Adhastan Dewani Adalat Ache Jatha Sahakari Jojo Adalat Urdhatan Sahakari Jajer Adalat Jugma Jela Jajer Adalat Atirikta Jela Jajer Adalat O Jela Jajer Adalat Pratiti Jelay Bichar Bibhager Pradhan Halen Jela Jojo Pabartya Jelagulote Jekhanay Prithak Kono Dewani Adalat Chhil Na Sekhane Myajistretarai Dewani Adalter Dayitba Palan Karaten Tove Samprati Sekhane Dewani Adalat Gathit Hayechhe Evan Kaj Karachhe Haikorta Bibhager Tattbabadhan Sapekshe Jela Jajer Gutta Jelar Sakal Dewani Adalter Upar Prashasnik Niyantran Rayechhe Jela Jajer Pradhanat Apil Mamlar Bichar Karar O Mamla Parjalochna Karar Ekhatiyar Ache Tove Kono Kono Xetre Taur Maulik Ekhatiyarao Rayechhe Atirikta Jela Jajer Ekhatiyar Jela Jajer Ekhatiyarer Matoi Samabistrit Tini Jela Jojo Kartrik Taur Upar Arpit Bicharik Dayitba Palan Curren Sahakari Jojo O Adhastan Jajer Pradatta Ray Decree Ba Adesher Biruddhe Apil Jela Jajader Kachhe Kara Hay Anurupbhabe Jela Jojo Sahakari Jajader Pradatta Ray Decree Ba Adesher Biruddhe Anita Apilgulo Jugma Jela Jajader Kachhe Nishpattir Janya Pathate Paren Jugma Jela Jajader Dewani Bishayak Simahin Maulik Ekhatiyar Rayechhe Dewani Adalatagulo Uttaradhikar Vivah Ba Jatpat Kimba Kono Dharmiya Ritiniti Ba Pratisthan Samparkit Jekon Prashner Nishpattikale Pakshagulo Jekhanay Musalaman Sekshetre Muslim Ain Are Hindu Hale Hindu Ain Prayog Kare Thake Tove Ainasabha Pranit Kono Adhiniymer (Enactment) Dwara A Jatiya Ainer Parivartan Ba Bilop Ghate Thakle Sesab Xetrei Aare Byatyay Ghate
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bichar Carer Samandhe Ball ?,What About The Trial?,


vokalandroid