আইন 497 সম্বন্ধে কিছু লিখ। ...

ভারতীয় দণ্ডবিধির পরকীয়া সংক্রান্ত আইন 497 ধারাকে অসাংবিধানিক বলে রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালত বলেছে, নিছক পরকীয়া কখনও অপরাধ হতে পারে না। পরকীয়া সম্পর্কের কারণে জীবনসঙ্গী যদি আত্মহত্যা করেন, আইন 497 এবং আদালতে যদি তার প্রমাণ দাখিল করা যায়, তবেই এটি অপরাধে প্ররোচনা হিসেবে গণ্য হবে। এদিন পরকীয়া মামলার রায় দিতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র ও বিচারপতি এএম খানউইলকর বলেন, পরকীয়া বিবাহবিচ্ছেদের কারণ হতে পারে। তবে এটা অপরাধ হিসেবে গণ্য হতে পারে না। একই মত জানিয়ে বিচারপতি আরএফ নরিম্যানও বলেন, ৪৯৭ ধারা একটা সেকেলে আইন। এটা অসাংবিধানিক এবং এটি বাতিল করা উচিত। সংবিধানের আইন 497 খারিজ করে দিল আদালত। ... অগাস্ট , 2018: কেন্দ্র পরকীয়া সংক্রান্ত আইন রেখে দেওয়ার ভারতীয় দণ্ডবিধির আইন 497 বা পরকীয়া আইনে বলা ছিল, কোনও বিবাহিত পুরুষ যদি কোনও বিবাহিতার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক । তাঁর মতে, এই আইনে পুরুষদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। আবেদনে জোসেফ লিখেছিলেন, ''যেখানে দু'জন সহমত হওয়ার পরেই এই যৌন।
Romanized Version
ভারতীয় দণ্ডবিধির পরকীয়া সংক্রান্ত আইন 497 ধারাকে অসাংবিধানিক বলে রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালত বলেছে, নিছক পরকীয়া কখনও অপরাধ হতে পারে না। পরকীয়া সম্পর্কের কারণে জীবনসঙ্গী যদি আত্মহত্যা করেন, আইন 497 এবং আদালতে যদি তার প্রমাণ দাখিল করা যায়, তবেই এটি অপরাধে প্ররোচনা হিসেবে গণ্য হবে। এদিন পরকীয়া মামলার রায় দিতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র ও বিচারপতি এএম খানউইলকর বলেন, পরকীয়া বিবাহবিচ্ছেদের কারণ হতে পারে। তবে এটা অপরাধ হিসেবে গণ্য হতে পারে না। একই মত জানিয়ে বিচারপতি আরএফ নরিম্যানও বলেন, ৪৯৭ ধারা একটা সেকেলে আইন। এটা অসাংবিধানিক এবং এটি বাতিল করা উচিত। সংবিধানের আইন 497 খারিজ করে দিল আদালত। ... অগাস্ট , 2018: কেন্দ্র পরকীয়া সংক্রান্ত আইন রেখে দেওয়ার ভারতীয় দণ্ডবিধির আইন 497 বা পরকীয়া আইনে বলা ছিল, কোনও বিবাহিত পুরুষ যদি কোনও বিবাহিতার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক । তাঁর মতে, এই আইনে পুরুষদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। আবেদনে জোসেফ লিখেছিলেন, ''যেখানে দু'জন সহমত হওয়ার পরেই এই যৌন। Bharatiya Dandabidhir Parakiya Sankranta Ain 497 Dharake Asangbidhanik Ble Rai Dil Supreme Court Shirsh Adalat Balechhe Nichhak Parakiya Kakhanao Aparadh Hate Pare Na Parakiya Samparker Karne Jibanasangi Jodi Atmahatya Curren Ain 497 Evan Adalate Jodi Taur Praman Dakhil Kara Jay Tabei AT Aparadhe Prarochana Hisebe Ganya Habe Aydin Parakiya Mamlar Rai Dite Giye Supreme Korter Pradhan Bicharapati Deepak Mishra O Bicharapati AM Khanauilakar Baleno Parakiya Bibahbichchheder Karan Hate Pare Tove Etah Aparadh Hisebe Ganya Hate Pare Na Ekai Matt Janie Bicharapati RF Narimyanao Baleno 497 Dhara Ekata Sekele Ain Etah Asangbidhanik Evan AT Batil Kara Uchit Sangbidhaner Ain 497 Kharij Kare Dil Adalat ... August , 2018: Kendra Parakiya Sankranta Ain Rekhe Dewar Bhartiya Dandabidhir Ain 497 Ba Parakiya Aine Bala Chhil Konao Bibahit Purush Jodi Konao Bibahitar Sange Jaun Sampark Tanr Mate AE Aine Purushder Prati Baishamyamulak Acharan Kara Hayechhe Abedane Joseph Likhechhilen Jekhanay Du John Sahamat Hwar Parei AE Jaun
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


ভারতীয় দণ্ডবিধির পরকীয়া সংক্রান্ত 497 ধারাকে অসাংবিধানিক বলে রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালত বলেছে, নিছক পরকীয়া কখনও অপরাধ হতে পারে না। পরকীয়া সম্পর্কের কারণে জীবনসঙ্গী যদি আত্মহত্যা করেন, এবং আদালতে যদি তার প্রমাণ দাখিল করা যায়, তবেই এটি অপরাধে প্ররোচনা হিসেবে গণ্য হবে। এদিন পরকীয়া আইন 497 মামলার রায় দিতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র ও বিচারপতি এএম খানউইলকর বলেন, পরকীয়া বিবাহবিচ্ছেদের কারণ হতে পারে। তবে এটা অপরাধ হিসেবে গণ্য হতে পারে না। একই মত জানিয়ে বিচারপতি আরএফ নরিম্যানও বলেন, 497 ধারা একটা সেকেলে আইন। এটা অসাংবিধানিক এবং এটি বাতিল করা উচিত। বেঞ্চের আর এক বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় বলেন, এই ধারা মহিলাদের সম্ভ্রম ও আত্মসম্মানের পক্ষে ধ্বংসাত্মক। কারণ এই আইন মহিলাকে স্বামীর ভূমিদাস হিসেবে বিবেচনা করে। শীর্ষ আদালতের সাংবিধানিক বেঞ্চের একমাত্র মহিলা বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রাও একই মত পোষণ করেন। তিনিও 497 ধারাকে অসাংবিধানিক হিসেবে চিহ্নিত করে বলেন, বৈবাহিক সম্পর্কে স্ত্রী কখনওই স্বামীর ছায়া নন। প্রধান বিচারপতিও একই সুরে বলেছেন, মহিলার ব্যক্তিগত সম্ভ্রম রক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। স্বামী তাঁর প্রভূ নন। আইনগতভাবে এক লিঙ্গের থেকে অন্য লিঙ্গকে খাটো করে দেখানোটা ভুল। পরকীয়া সম্পর্ককে ‘বেআইনি’ না-বললে বিবাহ নামক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস হয়ে যাবে, মত কেন্দ্রীয় সরকারের। ভারতীয় দণ্ডবিধির 497 ধারা খারিজ করার আবেদন জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা করা হয়েছিল। সেই মামলায় শীর্ষ আদালতকে হলফনামা দিয়ে আজ এই কথা জানাল কেন্দ্রীয় সরকার। কী রয়েছে 497 ধারায়? এই ধারায় বলা হয়েছে, কোনও পুরুষ যদি কোনও বিবাহিতা মহিলার সঙ্গে, তাঁর স্বামীর অনুমতি ছাড়াই, বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে লিপ্ত হন, তা হলে তিনি দণ্ডনীয় অপরাধ করবেন। পরকীয়া সম্পর্কে জড়ানো মহিলার জন্য অবশ্য কোনও সাজার কথা দণ্ডবিধির এই ধারায় উল্লিখিত নেই। ১৫৮ বছরের পুরনো এই আইনটিকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন এক অনাবাসী ভারতীয় জোসেফ শাইন। তাঁর মতে, এই আইনে পুরুষদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। আবেদনে জোসেফ লিখেছিলেন, ‘‘যেখানে দু’জন সহমত হওয়ার পরেই এই যৌন সম্পর্ক তৈরি হয়, তখন কেন শুধু পুরুষকে দণ্ডিত করা হবে? এই আইন সংবিধান-বিরোধীও বটে। কারণ সংবিধানের ১৪ (আইনের চোখে সব ধর্ম, বর্ণ, জাত এবং লিঙ্গের মানুষ সমান), ১৫ (ধর্ম, বর্ণ, জাত, লিঙ্গ এবং জন্মস্থানের নিরিখে রাষ্ট্র কোনও বৈষম্যমূলক আচরণ করতে পারে না) এবং ২১ নম্বর (ব্যক্তিগত স্বাধীনতার অধিকার), এই তিনটি অনুচ্ছেদে যা বলা হয়েছে, এই আইনটি তার উল্টো বলছে।’’ আবেদনকারীর মতে, এই আইন নারী-বিরোধীও। কারণ ‘স্বামীর অনুমতি ছাড়া পরকীয়া দণ্ডনীয় অপরাধ’ বললে মেয়েদের আসলে ‘পুরুষের সম্পত্তি’ ভাবা হয়।
Romanized Version
ভারতীয় দণ্ডবিধির পরকীয়া সংক্রান্ত 497 ধারাকে অসাংবিধানিক বলে রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালত বলেছে, নিছক পরকীয়া কখনও অপরাধ হতে পারে না। পরকীয়া সম্পর্কের কারণে জীবনসঙ্গী যদি আত্মহত্যা করেন, এবং আদালতে যদি তার প্রমাণ দাখিল করা যায়, তবেই এটি অপরাধে প্ররোচনা হিসেবে গণ্য হবে। এদিন পরকীয়া আইন 497 মামলার রায় দিতে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র ও বিচারপতি এএম খানউইলকর বলেন, পরকীয়া বিবাহবিচ্ছেদের কারণ হতে পারে। তবে এটা অপরাধ হিসেবে গণ্য হতে পারে না। একই মত জানিয়ে বিচারপতি আরএফ নরিম্যানও বলেন, 497 ধারা একটা সেকেলে আইন। এটা অসাংবিধানিক এবং এটি বাতিল করা উচিত। বেঞ্চের আর এক বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় বলেন, এই ধারা মহিলাদের সম্ভ্রম ও আত্মসম্মানের পক্ষে ধ্বংসাত্মক। কারণ এই আইন মহিলাকে স্বামীর ভূমিদাস হিসেবে বিবেচনা করে। শীর্ষ আদালতের সাংবিধানিক বেঞ্চের একমাত্র মহিলা বিচারপতি ইন্দু মালহোত্রাও একই মত পোষণ করেন। তিনিও 497 ধারাকে অসাংবিধানিক হিসেবে চিহ্নিত করে বলেন, বৈবাহিক সম্পর্কে স্ত্রী কখনওই স্বামীর ছায়া নন। প্রধান বিচারপতিও একই সুরে বলেছেন, মহিলার ব্যক্তিগত সম্ভ্রম রক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। স্বামী তাঁর প্রভূ নন। আইনগতভাবে এক লিঙ্গের থেকে অন্য লিঙ্গকে খাটো করে দেখানোটা ভুল। পরকীয়া সম্পর্ককে ‘বেআইনি’ না-বললে বিবাহ নামক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস হয়ে যাবে, মত কেন্দ্রীয় সরকারের। ভারতীয় দণ্ডবিধির 497 ধারা খারিজ করার আবেদন জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা করা হয়েছিল। সেই মামলায় শীর্ষ আদালতকে হলফনামা দিয়ে আজ এই কথা জানাল কেন্দ্রীয় সরকার। কী রয়েছে 497 ধারায়? এই ধারায় বলা হয়েছে, কোনও পুরুষ যদি কোনও বিবাহিতা মহিলার সঙ্গে, তাঁর স্বামীর অনুমতি ছাড়াই, বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে লিপ্ত হন, তা হলে তিনি দণ্ডনীয় অপরাধ করবেন। পরকীয়া সম্পর্কে জড়ানো মহিলার জন্য অবশ্য কোনও সাজার কথা দণ্ডবিধির এই ধারায় উল্লিখিত নেই। ১৫৮ বছরের পুরনো এই আইনটিকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন এক অনাবাসী ভারতীয় জোসেফ শাইন। তাঁর মতে, এই আইনে পুরুষদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। আবেদনে জোসেফ লিখেছিলেন, ‘‘যেখানে দু’জন সহমত হওয়ার পরেই এই যৌন সম্পর্ক তৈরি হয়, তখন কেন শুধু পুরুষকে দণ্ডিত করা হবে? এই আইন সংবিধান-বিরোধীও বটে। কারণ সংবিধানের ১৪ (আইনের চোখে সব ধর্ম, বর্ণ, জাত এবং লিঙ্গের মানুষ সমান), ১৫ (ধর্ম, বর্ণ, জাত, লিঙ্গ এবং জন্মস্থানের নিরিখে রাষ্ট্র কোনও বৈষম্যমূলক আচরণ করতে পারে না) এবং ২১ নম্বর (ব্যক্তিগত স্বাধীনতার অধিকার), এই তিনটি অনুচ্ছেদে যা বলা হয়েছে, এই আইনটি তার উল্টো বলছে।’’ আবেদনকারীর মতে, এই আইন নারী-বিরোধীও। কারণ ‘স্বামীর অনুমতি ছাড়া পরকীয়া দণ্ডনীয় অপরাধ’ বললে মেয়েদের আসলে ‘পুরুষের সম্পত্তি’ ভাবা হয়। Bharatiya Dandabidhir Parakiya Sankranta 497 Dharake Asangbidhanik Ble Rai Dil Supreme Court Shirsh Adalat Balechhe Nichhak Parakiya Kakhanao Aparadh Hate Pare Na Parakiya Samparker Karne Jibanasangi Jodi Atmahatya Curren Evan Adalate Jodi Taur Praman Dakhil Kara Jay Tabei AT Aparadhe Prarochana Hisebe Ganya Habe Aydin Parakiya Ain 497 Mamlar Rai Dite Giye Supreme Korter Pradhan Bicharapati Deepak Mishra O Bicharapati AM Khanauilakar Baleno Parakiya Bibahbichchheder Karan Hate Pare Tove Etah Aparadh Hisebe Ganya Hate Pare Na Ekai Matt Janie Bicharapati RF Narimyanao Baleno 497 Dhara Ekata Sekele Ain Etah Asangbidhanik Evan AT Batil Kara Uchit Bencher Are Ec Bicharapati DY Chandrachur Baleno AE Dhara Mahilader Sambhram O Atmasammaner Pakshe Dhbansatmak Karan AE Ain Mahilake Swamir Bhumidas Hisebe Bibechana Kare Shirsh Adalter Sangbidhanik Bencher Ekamatra Mahila Bicharapati Indu Malhotrao Ekai Matt Poshan Curren Tinio 497 Dharake Asangbidhanik Hisebe Chihnit Kare Baleno Baibahik Samparke Stri Kakhanaoi Swamir Chaya Non Pradhan Bicharapatio Ekai Sure Balechhen Mahilar Byaktigat Sambhram Raksha Atyanta Gurutbapurna Swamy Tanr Prabhu Non Ainagatabhabe Ec Linger Theke Anya Lingake Khato Kare Dekhanota Bhool Parakiya Samparkake ‘beainio Na Balale Vivah Namak Pratisthan Dhbans Huye Jabe Matt Kendriya Sorcerer Bharatiya Dandabidhir 497 Dhara Kharij Karar Abedan Janie Supreme Korte Ekati Janaswartha Mamla Kara Hayechhil Sei Mamlay Shirsh Adalatake Halafanama Diye Az AE Katha Janal Kendriya Sarkar Key Rayechhe 497 Dharay AE Dharay Bala Hayechhe Konao Purush Jodi Konao Bibahita Mahilar Sange Tanr Swamir Anumati Chharai Bibahabahirbhut Samparke Lipta Hahn Ta Hale Tini Dandaniya Aparadh Karaben Parakiya Samparke Jarano Mahilar Janya Abashya Konao Sajar Katha Dandabidhir AE Dharay Ullikhit Nei 158 Bachharer Purno AE Ainatike Challenge Kare Supreme Korte Janaswartha Mamla Karechhilen Ec Anabasi Bharatiya Joseph Shine Tanr Mate AE Aine Purushder Prati Baishamyamulak Acharan Kara Hayechhe Abedane Joseph Likhechhilen ‘‘jekhane Duojan Sahamat Hwar Parei AE Jaun Sampark Tairi Hya Takhan Can Shudhu Purushake Dandit Kara Habe AE Ain Sangbidhan Birodhio Bate Karan Sangbidhaner 14 Ainer Chokhe Sab Dharm Burn Jato Evan Linger Manus Saman 15 Dharm Burn Jato Lingo Evan Janmasthaner Nirikhe Rashtra Konao Baishamyamulak Acharan Karate Pare Na Evan 21 Number Byaktigat Swadhintar Adhikar AE Tinti Anuchchhede Ja Bala Hayechhe AE Ainati Taur Ulto Balachhe ’’ Abedanakarir Mate AE Ain Nari Birodhio Karan ‘swamir Anumati Chhara Parakiya Dandaniya Aparadho Balale Meyeder Ashley ‘purusher Sampattio Bhaba Hya
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Ain 497 Sombondhe Kichhu Likh,Write Something About Law 497.,


vokalandroid