বিখ্যাতদের মজার গল্প সমন্ধে বল ? ...

বিখ্যাতদের মজার গল্প প্রতিদিন টিউশনীতে ছাত্রের একটা কমন কথা, "স্যার, একটা গল্প বলেন"। গল্প বলতে বলতে আমার ভান্ডার শেষ। অবশেষে গুগলের সাহায্য চাইতেই অনেকগুলো গল্প ধরিয়ে দিল। সবগুলোই বিখ্যাতদের মজার ঘটনা। ঘটনাগুলো সংগ্রহে রাখার মত। পরে একটা একটা করে ছাত্রকে বলা যাবে। প্রথমেই বলে রাখি, এই পোস্টের সকল গল্পই গুগল থেকে কপি-পেস্ট। এখানে আমার কোন কৃতিত্ব নেই। ১) ১৮৬২ সালে প্রকাশিত হয় ভিক্টর হুগোর বিখ্যাত বই “লা মিজারেবল”। তখন এটি নিয়ে হৈ চৈ পড়ে যায়। নানা সমালোচক এবং নানা খবর পত্র পত্রিকায় আসে। কিন্তু সেখান থেকে ভিক্টর হুগো বুঝতে পারলেন না বইটি বিক্রি হচ্ছে কেমন। অবশেষে তিনি এর উত্তর জানার জন্য প্রকাশককে খুব ক্ষুদ্র একটা চিঠি দিলেন শুধুমাত্র “?”লিখে। প্রকাশক “?” এর মানে বুঝতে পারলেন এবং জবাব দিলেন “!” । ২) কবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের অর্থিক অনটনের সময় ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর উনাকে টাকা পয়সা দিয়ে সাহায্য করতেন। একদিন এক মাতাল উনার কাছে সাহায্য চাইতে এলে বিদ্যাসাগর বললেন-আমি কোন মাতালকে সাহায্য করি না। কিন্তু আপনি যে মধুসুদনকে সাহায্য করেন তিনিওতো মদ খান-মাতালের উত্তর। বিদ্যাসাগর উত্তর দেন -ঠিক আছে আমিও তোমাকে মধুসূদনের মত সাহায্য করতে রাজী আছি তবে তুমি তার আগে একটি “মেঘনাদ বধ” কাব্য লিখে আন দেখি? ৩) ১৭৯৯ সালে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধরত ছিলেন নেপোলিয়ান বেনোপোর্ট।একদিন তিনি সহকারীদের বললেন,১২০০ তুর্কি বন্দীকে মুক্তি দিতে।কিন্তু আদেশ দেয়ার ওই মুহুর্তেই বেদম কাশি শুরু হয় তাঁর।বিরক্ত হয়ে বলেন,“মা সাকরি তাকস”(কি বিদঘুটে কাশি)।সহকারীরা ভুলে শুনলেন,“মাসাকরি তাওস”(হত্যা করো সবাইকে)।সেদিন সামান্য কয়েকটি শব্দের হেরফেরে প্রাণ গিয়েছিলো ১২০০ বন্দীর। ৪) মার্কিন ধনকুবের অ্যান্ড্র কার্নেগি ছলেন তার সময়ের সবচেয়ে বড় ধনকুবের। তিনি ছিলেন বস্তির ছেলে। তার বয়স যখন বারো বছর তখন খেলার জন্য একবার তিনি পাবলিক পার্কে ঢুকতে যাচ্ছিলেন। কিন্তু তার পোশাক এত মলিন ও নোংরা ছিল যে সেই পার্কের দারোয়ান তাকে পার্কে প্রবেশ করতে দেয়নি। সেদিন তিনি প্রতিজ্ঞা করেছিলেন যে, একদিন তার টাকা হবে আর তিনি এই পার্কটি কিনে ফেলবেন। ধনকুবের হওয়ার পর কার্নেগি ওই পার্কটিই কিনেছিলেন এবং পার্কে নতুন একটি সাইনবোর্ডও লাগিয়ে ছিলেন। তাতে লেখা ছিল ‘আজ থেকে দিনে বা রাতে যে কোনো সময়ে যে কোনো মানুষ যে কোনো পোশাকে এই পার্কে প্রবেশ করতে পারবে।’ ৫) অনেক বছর আগের কথা। সে সময় আমেরিকান ট্রেনগুলো বেশ ধীরগতিতে চলত। লেট করত ঘণ্টার পর ঘা। সকাল ৮টার ট্রেন রাত ৮টায় আসবে কি না সে বিষয়ে সবাই থাকত সন্দিহান। এমনই এক সময়ে বিখ্যাত রম্যসাহিত্যিক মার্ক টোয়েন একবার কোথাও যাওয়ার জন্য ট্রেনে চেপে বসে ছিলেন। কিছুক্ষণ পর কামরায় উঠল টিকিট চেকার। মার্ক টোয়েন গম্ভীর মুখে চেকারের দিকে একটা 'হাফ টিকিট' বাড়িয়ে দিলেন। বুড়ো মানুষের হাতে 'হাফ টিকিট' দেখে টিকিট চেকার অবাক! তাঁর প্রশ্ন, 'কী মশাই, আপনি হাফ টিকিট কেটেছেন কেন? গোঁফ-মাথার চুল সবই তো সাদা। আপনি কি জানেন না চৌদ্দ বছরের বেশি হলে তার বেলায় আর হাফ টিকিট চলে না?' মার্ক টোয়েনের সোজা জবাব, 'যখন ট্রেনে চড়েছিলাম, তখন তো বয়স চৌদ্দই ছিল। কে জানত, ট্রেন গন্তব্যে পৌঁছতে এত লেট করবে!'
Romanized Version
বিখ্যাতদের মজার গল্প প্রতিদিন টিউশনীতে ছাত্রের একটা কমন কথা, "স্যার, একটা গল্প বলেন"। গল্প বলতে বলতে আমার ভান্ডার শেষ। অবশেষে গুগলের সাহায্য চাইতেই অনেকগুলো গল্প ধরিয়ে দিল। সবগুলোই বিখ্যাতদের মজার ঘটনা। ঘটনাগুলো সংগ্রহে রাখার মত। পরে একটা একটা করে ছাত্রকে বলা যাবে। প্রথমেই বলে রাখি, এই পোস্টের সকল গল্পই গুগল থেকে কপি-পেস্ট। এখানে আমার কোন কৃতিত্ব নেই। ১) ১৮৬২ সালে প্রকাশিত হয় ভিক্টর হুগোর বিখ্যাত বই “লা মিজারেবল”। তখন এটি নিয়ে হৈ চৈ পড়ে যায়। নানা সমালোচক এবং নানা খবর পত্র পত্রিকায় আসে। কিন্তু সেখান থেকে ভিক্টর হুগো বুঝতে পারলেন না বইটি বিক্রি হচ্ছে কেমন। অবশেষে তিনি এর উত্তর জানার জন্য প্রকাশককে খুব ক্ষুদ্র একটা চিঠি দিলেন শুধুমাত্র “?”লিখে। প্রকাশক “?” এর মানে বুঝতে পারলেন এবং জবাব দিলেন “!” । ২) কবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের অর্থিক অনটনের সময় ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর উনাকে টাকা পয়সা দিয়ে সাহায্য করতেন। একদিন এক মাতাল উনার কাছে সাহায্য চাইতে এলে বিদ্যাসাগর বললেন-আমি কোন মাতালকে সাহায্য করি না। কিন্তু আপনি যে মধুসুদনকে সাহায্য করেন তিনিওতো মদ খান-মাতালের উত্তর। বিদ্যাসাগর উত্তর দেন -ঠিক আছে আমিও তোমাকে মধুসূদনের মত সাহায্য করতে রাজী আছি তবে তুমি তার আগে একটি “মেঘনাদ বধ” কাব্য লিখে আন দেখি? ৩) ১৭৯৯ সালে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধরত ছিলেন নেপোলিয়ান বেনোপোর্ট।একদিন তিনি সহকারীদের বললেন,১২০০ তুর্কি বন্দীকে মুক্তি দিতে।কিন্তু আদেশ দেয়ার ওই মুহুর্তেই বেদম কাশি শুরু হয় তাঁর।বিরক্ত হয়ে বলেন,“মা সাকরি তাকস”(কি বিদঘুটে কাশি)।সহকারীরা ভুলে শুনলেন,“মাসাকরি তাওস”(হত্যা করো সবাইকে)।সেদিন সামান্য কয়েকটি শব্দের হেরফেরে প্রাণ গিয়েছিলো ১২০০ বন্দীর। ৪) মার্কিন ধনকুবের অ্যান্ড্র কার্নেগি ছলেন তার সময়ের সবচেয়ে বড় ধনকুবের। তিনি ছিলেন বস্তির ছেলে। তার বয়স যখন বারো বছর তখন খেলার জন্য একবার তিনি পাবলিক পার্কে ঢুকতে যাচ্ছিলেন। কিন্তু তার পোশাক এত মলিন ও নোংরা ছিল যে সেই পার্কের দারোয়ান তাকে পার্কে প্রবেশ করতে দেয়নি। সেদিন তিনি প্রতিজ্ঞা করেছিলেন যে, একদিন তার টাকা হবে আর তিনি এই পার্কটি কিনে ফেলবেন। ধনকুবের হওয়ার পর কার্নেগি ওই পার্কটিই কিনেছিলেন এবং পার্কে নতুন একটি সাইনবোর্ডও লাগিয়ে ছিলেন। তাতে লেখা ছিল ‘আজ থেকে দিনে বা রাতে যে কোনো সময়ে যে কোনো মানুষ যে কোনো পোশাকে এই পার্কে প্রবেশ করতে পারবে।’ ৫) অনেক বছর আগের কথা। সে সময় আমেরিকান ট্রেনগুলো বেশ ধীরগতিতে চলত। লেট করত ঘণ্টার পর ঘা। সকাল ৮টার ট্রেন রাত ৮টায় আসবে কি না সে বিষয়ে সবাই থাকত সন্দিহান। এমনই এক সময়ে বিখ্যাত রম্যসাহিত্যিক মার্ক টোয়েন একবার কোথাও যাওয়ার জন্য ট্রেনে চেপে বসে ছিলেন। কিছুক্ষণ পর কামরায় উঠল টিকিট চেকার। মার্ক টোয়েন গম্ভীর মুখে চেকারের দিকে একটা 'হাফ টিকিট' বাড়িয়ে দিলেন। বুড়ো মানুষের হাতে 'হাফ টিকিট' দেখে টিকিট চেকার অবাক! তাঁর প্রশ্ন, 'কী মশাই, আপনি হাফ টিকিট কেটেছেন কেন? গোঁফ-মাথার চুল সবই তো সাদা। আপনি কি জানেন না চৌদ্দ বছরের বেশি হলে তার বেলায় আর হাফ টিকিট চলে না?' মার্ক টোয়েনের সোজা জবাব, 'যখন ট্রেনে চড়েছিলাম, তখন তো বয়স চৌদ্দই ছিল। কে জানত, ট্রেন গন্তব্যে পৌঁছতে এত লেট করবে!' Bikhyatader Majar Galpa Pratidin Tiushanite Chhatrer Ekata Common Katha Syar Ekata Galpa Baleno Galpa Volte Volte Amar Bhandar Sesh Abasheshe Gugler Sahajya Chaitei Anekgulo Galpa Dhariye Dil Sabaguloi Bikhyatader Majar Ghatana Ghatanagulo Sangrahe Rakhar Matt Pare Ekata Ekata Kare Chhatrake Bala Jabe Prathamei Ble Rakhi AE Poster Sakal Galpai Google Theke Copy Pest Ekhane Amar Koun Krititba Nei 1 1862 Sale Prakashit Hya Victor Hugor Bikhyat By “la Mijarebal” Takhan AT Niye Hai Chai Pare Jay Nana Samalochak Evan Nana Khabar Patra Patrikay Ase Kintu Sekhan Theke Victor Hugo Bujhte Parlen Na Baiti Bikri Hachchhe Keymon Abasheshe Tini Aare Uttar Janar Janya Prakashakake Khub Xudra Ekata Chithi Dilen Shudhumatra “ ”likhe Prakashak “ ” Aare Mane Bujhte Parlen Evan Jabab Dilen “ ” 2 Cbe Maikel Madhusudan Datter Arthik Anataner Camay Ishwarachandra Bidyasagar Unake Taka Payasa Diye Sahajya Karaten Ekadin Ec Matal Unar Kachhe Sahajya Chaite Alley Bidyasagar Balalen Aami Koun Matalake Sahajya Kari Na Kintu Apni Je Madhusudanake Sahajya Curren Tinioto Mad Khan Mataler Uttar Bidyasagar Uttar Than Thik Ache Amio Tomake Madhusudner Matt Sahajya Karate Raji Achhi Tove Tumi Taur Age Ekati “meghnad Badh” Kavya Likhe An Dekhi 3 1799 Sale Madhyaprachye Juddharat Chhilen Nepoliyan Benoporta Ekadin Tini Sahakarider Balalen 1200 Turki Bandike Mukti Dite Kintu Adays Their We Muhurtei Bedam Kashi Shuru Hya Tanr Birakta Huye Baleno “ma Sakri Takas” Ki Bidghute Kashi Sahakarira Bhule Shunlen “masakari Taos” Hatya Karo Sabaike Sedin Samanya Kayekati Shabder Herfere Pran Giyechhilo 1200 Bandir 4 Markin Dhanakuber Andra Karnegi Chhalen Taur Samayer Sabacheye Bar Dhanakuber Tini Chhilen Bastir Chhele Taur Boy Jakhan Baro Bachhar Takhan Khelar Janya Ekabar Tini Pablik Parke Dhukte Jachchhilen Kintu Taur Poshak Et Malin O Nongra Chhil Je Sei Parker Darwan Take Parke Prabesh Karate Deyni Sedin Tini Pratigya Karechhilen Je Ekadin Taur Taka Habe Are Tini AE Parkati Kine Felben Dhanakuber Hwar Par Karnegi We Parkatii Kinechhilen Evan Parke NATUN Ekati Sainabordao Lagiye Chhilen Tate Lekha Chhil ‘aj Theke Dine Ba Rate Je Kono Some Je Kono Manus Je Kono Poshake AE Parke Prabesh Karate Parbe ’ 5 Anek Bachhar Ager Katha Say Samay American Trenagulo Bash Dhiragatite Soluta Let Karat Ghantar Par Gha Sakal 8tar Train Raat 8tay Asabe Ki Na Say Bishye Sabai Thakat Sandihan Emanai Ec Samaye Bikhyat Ramyasahityik March Toyen Ekabar Kothao Jawar Janya Trene Chepe Base Chhilen Kichhukshan Par Kamray Uthal Tikit Checker March Toyen Gambhir Mukhe Chekarer Dike Ekata Half Tikit Bariye Dilen Buro Manusher Hate Half Tikit Dekhe Tikit Checker Abec Tanr Prashna Key Mashai Apni Half Tikit Ketechhen Can Gonf Mathar Chul Sabai Toh Sadda Apni Ki Janen Na Chaudda Bachharer Bedshee Hale Taur Belay Are Half Tikit Chale Na March Toyener Soja Jabab Jakhan Trene Charechhilam Takhan Toh Bayas Chauddai Chhil K Janat Train Gantabye Paunchhate Et Let Karabe
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


বিখ্যাতদের মজার প্রতিদিন টিউশনীতে ছাত্রের একটা কমন কথা, "স্যার, একটা গল্প বলেন"। গল্প বলতে বলতে আমার ভান্ডার শেষ। অবশেষে গুগলের সাহায্য চাইতেই অনেকগুলো গল্প ধরিয়ে দিল। সবগুলোই বিখ্যাতদের মজার ঘটনা। ঘটনাগুলো সংগ্রহে রাখার মত। পরে একটা একটা করে ছাত্রকে বলা যাবে। প্রথমেই বলে রাখি, বিখ্যাতদের মজার এই পোস্টের সকল গল্পই গুগল থেকে কপি-পেস্ট। এখানে আমার কোন কৃতিত্ব নেই। ১) ১৮৬২ সালে প্রকাশিত হয় ভিক্টর হুগোর বিখ্যাত বই “লা মিজারেবল”। তখন এটি নিয়ে হৈ চৈ পড়ে যায়। নানা সমালোচক এবং নানা খবর পত্র পত্রিকায় আসে। কিন্তু সেখান থেকে ভিক্টর হুগো বুঝতে পারলেন না বইটি বিক্রি হচ্ছে কেমন। অবশেষে তিনি এর উত্তর জানার জন্য প্রকাশককে খুব ক্ষুদ্র একটা চিঠি দিলেন শুধুমাত্র “?”লিখে। প্রকাশক “?” এর মানে বুঝতে পারলেন এবং জবাব দিলেন “!” । ২) কবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের অর্থিক অনটনের সময় ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর উনাকে টাকা পয়সা দিয়ে সাহায্য করতেন। একদিন এক মাতাল উনার কাছে সাহায্য চাইতে এলে বিদ্যাসাগর বললেন-আমি কোন মাতালকে সাহায্য করি না। কিন্তু আপনি যে মধুসুদনকে সাহায্য করেন তিনিওতো মদ খান-মাতালের উত্তর। বিদ্যাসাগর উত্তর দেন -ঠিক আছে আমিও তোমাকে মধুসূদনের মত সাহায্য করতে রাজী আছি তবে তুমি তার আগে একটি “মেঘনাদ বধ” কাব্য লিখে আন দেখি? ৩) ১৭৯৯ সালে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধরত ছিলেন নেপোলিয়ান বেনোপোর্ট।একদিন তিনি সহকারীদের বললেন,১২০০ তুর্কি বন্দীকে মুক্তি দিতে।কিন্তু আদেশ দেয়ার ওই মুহুর্তেই বেদম কাশি শুরু হয় তাঁর।বিরক্ত হয়ে বলেন,“মা সাকরি তাকস”(কি বিদঘুটে কাশি)।সহকারীরা ভুলে শুনলেন,“মাসাকরি তাওস”(হত্যা করো সবাইকে)।সেদিন সামান্য কয়েকটি শব্দের হেরফেরে প্রাণ গিয়েছিলো ১২০০ বন্দীর।
Romanized Version
বিখ্যাতদের মজার প্রতিদিন টিউশনীতে ছাত্রের একটা কমন কথা, "স্যার, একটা গল্প বলেন"। গল্প বলতে বলতে আমার ভান্ডার শেষ। অবশেষে গুগলের সাহায্য চাইতেই অনেকগুলো গল্প ধরিয়ে দিল। সবগুলোই বিখ্যাতদের মজার ঘটনা। ঘটনাগুলো সংগ্রহে রাখার মত। পরে একটা একটা করে ছাত্রকে বলা যাবে। প্রথমেই বলে রাখি, বিখ্যাতদের মজার এই পোস্টের সকল গল্পই গুগল থেকে কপি-পেস্ট। এখানে আমার কোন কৃতিত্ব নেই। ১) ১৮৬২ সালে প্রকাশিত হয় ভিক্টর হুগোর বিখ্যাত বই “লা মিজারেবল”। তখন এটি নিয়ে হৈ চৈ পড়ে যায়। নানা সমালোচক এবং নানা খবর পত্র পত্রিকায় আসে। কিন্তু সেখান থেকে ভিক্টর হুগো বুঝতে পারলেন না বইটি বিক্রি হচ্ছে কেমন। অবশেষে তিনি এর উত্তর জানার জন্য প্রকাশককে খুব ক্ষুদ্র একটা চিঠি দিলেন শুধুমাত্র “?”লিখে। প্রকাশক “?” এর মানে বুঝতে পারলেন এবং জবাব দিলেন “!” । ২) কবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের অর্থিক অনটনের সময় ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর উনাকে টাকা পয়সা দিয়ে সাহায্য করতেন। একদিন এক মাতাল উনার কাছে সাহায্য চাইতে এলে বিদ্যাসাগর বললেন-আমি কোন মাতালকে সাহায্য করি না। কিন্তু আপনি যে মধুসুদনকে সাহায্য করেন তিনিওতো মদ খান-মাতালের উত্তর। বিদ্যাসাগর উত্তর দেন -ঠিক আছে আমিও তোমাকে মধুসূদনের মত সাহায্য করতে রাজী আছি তবে তুমি তার আগে একটি “মেঘনাদ বধ” কাব্য লিখে আন দেখি? ৩) ১৭৯৯ সালে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধরত ছিলেন নেপোলিয়ান বেনোপোর্ট।একদিন তিনি সহকারীদের বললেন,১২০০ তুর্কি বন্দীকে মুক্তি দিতে।কিন্তু আদেশ দেয়ার ওই মুহুর্তেই বেদম কাশি শুরু হয় তাঁর।বিরক্ত হয়ে বলেন,“মা সাকরি তাকস”(কি বিদঘুটে কাশি)।সহকারীরা ভুলে শুনলেন,“মাসাকরি তাওস”(হত্যা করো সবাইকে)।সেদিন সামান্য কয়েকটি শব্দের হেরফেরে প্রাণ গিয়েছিলো ১২০০ বন্দীর।Bikhyatader Majar Pratidin Tiushanite Chhatrer Ekata Common Katha Syar Ekata Galpa Baleno Galpa Volte Volte Amar Bhandar Sesh Abasheshe Gugler Sahajya Chaitei Anekgulo Galpa Dhariye Dil Sabaguloi Bikhyatader Majar Ghatana Ghatanagulo Sangrahe Rakhar Matt Pare Ekata Ekata Kare Chhatrake Bala Jabe Prathamei Ble Rakhi Bikhyatader Majar AE Poster Sakal Galpai Google Theke Copy Pest Ekhane Amar Koun Krititba Nei 1 1862 Sale Prakashit Hay Victor Hugor Bikhyat By “la Mijarebal” Takhan AT Niye Hai Chai Pare Jay Nana Samalochak Evan Nana Khabar Patra Patrikay Ase Kintu Sekhan Theke Victor Hugo Bujhte Parlen Na Baiti Bikri Hachchhe Keymon Abasheshe Tini Aare Uttar Janar Janya Prakashakake Khub Xudra Ekata Chithi Dilen Shudhumatra “ ”likhe Prakashak “ ” Aare Mane Bujhte Parlen Evan Jabab Dilen “ ” 2 Cbe Maikel Madhusudan Datter Arthik Anataner Camay Ishwarachandra Bidyasagar Unake Taka Payasa Diye Sahajya Karaten Ekadin Ec Matal Unar Kachhe Sahajya Chaite Alley Bidyasagar Balalen Aami Koun Matalake Sahajya Kari Na Kintu Apni Je Madhusudanake Sahajya Curren Tinioto Mad Khan Mataler Uttar Bidyasagar Uttar Than Thik Ache Amio Tomake Madhusudner Matt Sahajya Karate Raji Achhi Tove Tumi Taur Age Ekati “meghnad Badh” Kavya Likhe An Dekhi 3 1799 Sale Madhyaprachye Juddharat Chhilen Nepoliyan Benoporta Ekadin Tini Sahakarider Balalen 1200 Turki Bandike Mukti Dite Kintu Adays Their We Muhurtei Bedam Kashi Shuru Hay Tanr Birakta Huye Baleno “ma Sakri Takas” Ki Bidghute Kashi Sahakarira Bhule Shunlen “masakari Taos” Hatya Karo Sabaike Sedin Samanya Kayekati Shabder Herfere Pran Giyechhilo 1200 Bandir
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bikhyatader Majar Galpa Samandhe Ball ?,What About The Famous Stories About The Famous?,


vokalandroid