বিজ্ঞান আমাদের ...

বিজ্ঞান আমাদের আশীর্বাদ কেন ? আশীর্বাদ: বিজ্ঞান মানুষ ও সভ্যতাকে শতভাগ এগিয়ে নিয়েছে। চলার প্রয়োজনে মানুষ আবিষ্কার করেছে নানা গাড়ি, বেঁচে থাকার প্রয়োজনে ওষুধ, যোগাযোগের প্রয়োজনে নানা প্রযুক্তি। খাদ্য উৎপাদন বাড়ানোর প্রয়োজনেও মানুষ আজ বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে প্রভূত উন্নতি সাধন করেছে। শুধু তাই নয় বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে মানুষ আজ প্রকৃতিকেও বশ মানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। বিজ্ঞান সভ্যতাকে করেছে আলোকজ্জ্বল, মানুষের জ্ঞান ও দৃষ্টিকে করেছে সুদূরপ্রসারী। যাতায়াত ও যোগাযোগ ক্ষেত্রে: সৃষ্টির শুরু থেকে মানুষের যান ছিল দু পা। কিন্তু দূর-দূরান্তরে যাওয়ার ক্ষেত্রে এ পায়ের উপর ভর করা চলে না। তাই মানুষ বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে দূর দূরান্তকে জয় করার প্রয়াস পেল। বিজ্ঞানের জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে মানুষ আবিষ্কার করেছে দ্রুতগামী যান- ট্রেন, জাহাজ, উড়োজাহাজ, বিমান ইত্যাদি। মহাশূন্যের অজানা জ্ঞানকে জানার জন্য আবিষ্কার করেছে রকেট, মহাকাশ যান। পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে আর এক প্রান্তের খবর নেওয়ার জন্য আবিষ্কার করেছে ফ্যাক্স, টেলিফোন, রেডিও, টেলিভিশন, ই-মেইল, ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোন। এভাবে যাতায়াত ও যোগাযোগ ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তির আবিষ্কার ও ব্যবহার সারা বিশ্বকে মানুষের হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে। চিকিৎসা ক্ষেত্রে: পূর্বে মানুষ রোগমুক্তির জন্য নানা লতাপাতা ও কুসংস্কারের আশ্রয় নিত। বর্তমানকালে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞান এক যুগান্তকারী বিপ্লবের সূচনা করেছে। যার ফলে মানুষ দূরারোগ্য ব্যাধিকে জয় করতে পেরেছে। এক্সরে, পেনিসিলিন, স্ট্রেপটোমাইসিন, টেরামাইসিন ইত্যাদি জীবনকে দীর্ঘায়ু করেছে। জিন প্রতিস্থাপন, কর্ণিয়া, বৃক্ক, অস্থিমজ্জা, হৃদপি-, ফুসফুস এবং যকৃতের মতো অঙ্গ মানুষ প্রতিস্থাপন করছে। আলট্রাসোনোগ্রাম, লেজাররশ্মি ও কম্পিউটার প্রযুক্তির ব্যবহার চিকিৎসার ক্ষেত্রে মানুষকে অসাধ্য সাধন করেছে। কৃষিক্ষেত্রে: সভ্যতার প্রথম আবিষ্কার লাঙ্গলের সময় থেকেই কৃষিকাজে পরিবর্তন আসতে শুরু করে। আজ বিজ্ঞানের বলে মানুষ কৃষিক্ষেত্রে বৈপ্লবিক উন্নতি করেছে। আবিষ্কার করেছে ট্রাক্টর, সেচপাম্প, নানা কীটনাশক ও যন্ত্রপাতি। বর্তমানে জিন প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উন্নত জাতের বীজ তৈরি হচ্ছে। যা খাদ্য উৎপাদনকে শতভাগ বাড়িয়ে দিয়েছে। বিজ্ঞানের জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে আজ ধূসর মরুভূমিতেও ফসল উৎপাদন সম্ভব হচ্ছে। কৃষিক্ষেত্রে বিজ্ঞানের নানা আবিষ্কারে মানুষ নিজের শ্রমলাঘব করেছে। সৃষ্টি করেছে শতভাগ খাদ্য নিরাপত্তা। অন্যান্য ক্ষেত্র ও বিস্ময়: বিজ্ঞান শিক্ষা ব্যবস্থাকে করেছে আধুনিক ও উন্নত। বর্তমানে রেডিও এবং টেলিভিশন ছাড়াও ইন্টারনেট ও কম্পিউটার প্রযুক্তি শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে। ঘরে বসেই আজ যেকোনো তথ্য জানা সম্ভব হচ্ছে। আবহাওয়ার ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের ব্যবহারে মানুষ প্রকৃতির রোষানল থেকে মুক্তি পেয়েছে। বিজ্ঞান আজ প্রতি মুহূর্তে আমাদের একান্ত সঙ্গী। বিজ্ঞানের বলে মানুষ দুঃখ ও প্রকৃতিকে জয় করেছে। রোবটের আবিষ্কার আজ মানুষের সময় ও শ্রম বাঁচিয়ে দিচ্ছে। টাবলেট কম্পিউটার, ট্যাব, থ্রিজি, ফোর জি ইত্যাদি প্রযুক্তি মানুষের জীবনকে বিনোদনে ও বিস্ময়ে ভরিয়ে তুলেছে।
Romanized Version
বিজ্ঞান আমাদের আশীর্বাদ কেন ? আশীর্বাদ: বিজ্ঞান মানুষ ও সভ্যতাকে শতভাগ এগিয়ে নিয়েছে। চলার প্রয়োজনে মানুষ আবিষ্কার করেছে নানা গাড়ি, বেঁচে থাকার প্রয়োজনে ওষুধ, যোগাযোগের প্রয়োজনে নানা প্রযুক্তি। খাদ্য উৎপাদন বাড়ানোর প্রয়োজনেও মানুষ আজ বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে প্রভূত উন্নতি সাধন করেছে। শুধু তাই নয় বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে মানুষ আজ প্রকৃতিকেও বশ মানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। বিজ্ঞান সভ্যতাকে করেছে আলোকজ্জ্বল, মানুষের জ্ঞান ও দৃষ্টিকে করেছে সুদূরপ্রসারী। যাতায়াত ও যোগাযোগ ক্ষেত্রে: সৃষ্টির শুরু থেকে মানুষের যান ছিল দু পা। কিন্তু দূর-দূরান্তরে যাওয়ার ক্ষেত্রে এ পায়ের উপর ভর করা চলে না। তাই মানুষ বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে দূর দূরান্তকে জয় করার প্রয়াস পেল। বিজ্ঞানের জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে মানুষ আবিষ্কার করেছে দ্রুতগামী যান- ট্রেন, জাহাজ, উড়োজাহাজ, বিমান ইত্যাদি। মহাশূন্যের অজানা জ্ঞানকে জানার জন্য আবিষ্কার করেছে রকেট, মহাকাশ যান। পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে আর এক প্রান্তের খবর নেওয়ার জন্য আবিষ্কার করেছে ফ্যাক্স, টেলিফোন, রেডিও, টেলিভিশন, ই-মেইল, ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোন। এভাবে যাতায়াত ও যোগাযোগ ক্ষেত্রে বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তির আবিষ্কার ও ব্যবহার সারা বিশ্বকে মানুষের হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে। চিকিৎসা ক্ষেত্রে: পূর্বে মানুষ রোগমুক্তির জন্য নানা লতাপাতা ও কুসংস্কারের আশ্রয় নিত। বর্তমানকালে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞান এক যুগান্তকারী বিপ্লবের সূচনা করেছে। যার ফলে মানুষ দূরারোগ্য ব্যাধিকে জয় করতে পেরেছে। এক্সরে, পেনিসিলিন, স্ট্রেপটোমাইসিন, টেরামাইসিন ইত্যাদি জীবনকে দীর্ঘায়ু করেছে। জিন প্রতিস্থাপন, কর্ণিয়া, বৃক্ক, অস্থিমজ্জা, হৃদপি-, ফুসফুস এবং যকৃতের মতো অঙ্গ মানুষ প্রতিস্থাপন করছে। আলট্রাসোনোগ্রাম, লেজাররশ্মি ও কম্পিউটার প্রযুক্তির ব্যবহার চিকিৎসার ক্ষেত্রে মানুষকে অসাধ্য সাধন করেছে। কৃষিক্ষেত্রে: সভ্যতার প্রথম আবিষ্কার লাঙ্গলের সময় থেকেই কৃষিকাজে পরিবর্তন আসতে শুরু করে। আজ বিজ্ঞানের বলে মানুষ কৃষিক্ষেত্রে বৈপ্লবিক উন্নতি করেছে। আবিষ্কার করেছে ট্রাক্টর, সেচপাম্প, নানা কীটনাশক ও যন্ত্রপাতি। বর্তমানে জিন প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উন্নত জাতের বীজ তৈরি হচ্ছে। যা খাদ্য উৎপাদনকে শতভাগ বাড়িয়ে দিয়েছে। বিজ্ঞানের জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে আজ ধূসর মরুভূমিতেও ফসল উৎপাদন সম্ভব হচ্ছে। কৃষিক্ষেত্রে বিজ্ঞানের নানা আবিষ্কারে মানুষ নিজের শ্রমলাঘব করেছে। সৃষ্টি করেছে শতভাগ খাদ্য নিরাপত্তা। অন্যান্য ক্ষেত্র ও বিস্ময়: বিজ্ঞান শিক্ষা ব্যবস্থাকে করেছে আধুনিক ও উন্নত। বর্তমানে রেডিও এবং টেলিভিশন ছাড়াও ইন্টারনেট ও কম্পিউটার প্রযুক্তি শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে। ঘরে বসেই আজ যেকোনো তথ্য জানা সম্ভব হচ্ছে। আবহাওয়ার ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের ব্যবহারে মানুষ প্রকৃতির রোষানল থেকে মুক্তি পেয়েছে। বিজ্ঞান আজ প্রতি মুহূর্তে আমাদের একান্ত সঙ্গী। বিজ্ঞানের বলে মানুষ দুঃখ ও প্রকৃতিকে জয় করেছে। রোবটের আবিষ্কার আজ মানুষের সময় ও শ্রম বাঁচিয়ে দিচ্ছে। টাবলেট কম্পিউটার, ট্যাব, থ্রিজি, ফোর জি ইত্যাদি প্রযুক্তি মানুষের জীবনকে বিনোদনে ও বিস্ময়ে ভরিয়ে তুলেছে।Bigyan Amader Aashirvaad Can ? Aashirvaad Bigyan Manus O Sabhyatake Shatabhag Egiye Niyechhe Chalar Prayojane Manus Abishkar Karechhe Nana Gari Benche Thakur Prayojane Oshudh Jogajoger Prayojane Nana Prajukti Khadya Utpadan Baranor Prayojneo Manus Az Bigyanake Kaje Lagiye Prabhut Unnati Sadhan Karechhe Shudhu Tai Noy Bigyanake Kaje Lagiye Manus Az Prakritikeo Vs Mananor Prastuti Nichchhe Bigyan Sabhyatake Karechhe Alokajjbal Manusher Gyan O Drishtike Karechhe Suduraprasari Jatayat O Jogajog Xetre Srishtir Shuru Theke Manusher Jan Chhil Du PA Kintu Dur Durantare Jawar Xetre A Payer Upar Bhar Kara Chale Na Tai Manus Bigyanake Kaje Lagiye Dur Durantake Jai Karar Prayas Payel Bigyaner Gyanake Kaje Lagiye Manus Abishkar Karechhe Drutagami Jan Train Jahaj Urojahaj Viman Ityadi Mahashunyer Ajana Gyanake Janar Janya Abishkar Karechhe Rocket Mahakash Jan Prithibir Ec Pranta Theke Are Ec Pranter Khabar Newar Janya Abishkar Karechhe Fax Telephone Radio Television E Mail Internet O Mobile Phone Ebhabe Jatayat O Jogajog Xetre Baigyanik Prajuktir Abishkar O Byabahar Sara Bishwake Manusher Hater Muthoy Ene Diyechhe Chikitsa Xetre Purbe Manus Rogmuktir Janya Nana Latapata O Kusanskarer Ashraya Nit Bartamankale Chikitsa Xetre Bigyan Ec Jugantakari Biplaber Suchna Karechhe Jar Fale Manus Durarogya Byadhike Jai Karate Perechhe Eksare Penisilin Strepatomaisin Teramaisin Ityadi Jibanake Dirghayu Karechhe Zinn Pratisthapan Karniya Brikk Asthimajja Hridpi Fusfus Evan Jakriter Mato Ong Manus Pratisthapan Karachhe Alatrasonogram Lejararashmi O Computer Prajuktir Byabahar Chikitsar Xetre Manushake Asadhya Sadhan Karechhe Krishikshetre Sabhyatar Pratham Abishkar Langaler Camay Thekei Krishikaje Parivartan Asate Shuru Kare Az Bigyaner Ble Manus Krishikshetre Baiplabik Unnati Karechhe Abishkar Karechhe Traktar Sechpampa Nana Kitnashak O Jantrapati Bartamane Zinn Prajuktike Kaje Lagiye Unnat Jater Wiz Tairi Hachchhe Ja Khadya Utpadanake Shatabhag Bariye Diyechhe Bigyaner Gyanake Kaje Lagiye Az Dhusar Marubhumiteo Focal Utpadan Sambhab Hachchhe Krishikshetre Bigyaner Nana Abishkare Manus Nizar Shramalaghab Karechhe Srishti Karechhe Shatabhag Khadya Nirapatta Anyanya Kshetra O Bismay Bigyan Siksha Byabasthake Karechhe Adhunik O Unnat Bartamane Radio Evan Television Chharao Internet O Computer Prajukti Shikshakshetre Byapak Parivartan Enechhe Ghare Basei Az Jekono Tathya Jaana Sambhab Hachchhe Abahawar Xetre Bigyaner Byabahare Manus Prakritir Roshanal Theke Mukti Peyechhe Bigyan Az Prati Muhurte Amader Ekanta Sangi Bigyaner Ble Manus Duhkh O Prakritike Jai Karechhe Robter Abishkar Az Manusher Camay O Shram Banchiye Dichchhe Tablet Computer Tab Thriji Four G Ityadi Prajukti Manusher Jibanake Binodane O Bismaye Bhariye Tulechhe
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


এর আগেও কয়েকবার আমাদের জীবনের ছন্দ পালটিয়ে দেবার কাজ করেছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি। মনুষ্যসভ্যতা এবং সেই সঙ্গে বিজ্ঞান এক পা এক পা করে এগিয়ে চলেছে। তবে আমাদের জীবনে বদলগুলো ঠিক এক গতিতে আসছেনা। কখনো কখনো একএকটা বিজ্ঞানের আবিষ্কার এক লাফে আমাদের অনেকটা এগিয়ে দিয়েছে। অনেক কিছু সুবিধে এনে দিয়েছে আমাদের হাতের মুঠোয়। আবার কখনো বা তা এসেছে ধীরে সুস্থে। বিজ্ঞানের অবিরাম অগ্রগতির সঙ্গে এ রকম নব নব প্রযুক্তি তো সব সময়েই আসছে এবং যতদিন যাচ্ছে বিজ্ঞানের অগ্রগতির জন্যে নতুন প্রযুক্তিগুলো আরো দ্রুত এসে পড়ছে আমাদের জীবনে। প্রযুক্তির এই বদলের গতির কথা কয়েকটি তথ্য দিলে বোঝা যাবে। আজ থেকে প্রায় ২৫০০০ বছর আগে মানুষের কাছে এক প্রযুক্তি হাতে এসেছিল – তার নাম ছবি আঁকা। মানুষ পাহাড়ে গুহায় গাছের গায়ে , যা দেখত তা থেকে ছবি আঁকতে শিখেছিল। সেও এক আদি প্রযুক্তি। সেখান থেকে মানুষের চাষবাস শিখতে লেগে গেল ৫০,০০০ বছর। সেখান থেকে লিখতে শেখা এবং চাকা আবিষ্কার করতে লাগলো আরো ৫০০০ বছর। সেখান থেকে জমির মাপ করে তাকে সীমানা দিয়ে বেঁধে ফেলতে শিখল। দেশ শহর গ্রাম এই রকম অঞ্চলভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থাকে গুছিয়ে নিতে লাগলো আরো ২৫০০ বছর। সেখান থেকে মানুষ বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা নিরীক্ষা করার পদ্ধতি আবিষ্কার করতে লাগলো ১৯০০ বছর। সেখান থেকে শিল্পায়ন শুরু করতে লাগলো ৩২৫ বছর। সেখান থেকে বিদ্যুৎ , টেলিফোন এবং রেডিও আবিষ্কার করতে লাগলো ৯৫ বছর , সেখান থেকে প্রথম ভ্যাকুম টিউব কমপিউটার আবিষ্কার করতে লাগলো ৬৫ বছর। আদি কমপিউটার থেকে আধুনিক পিসিতে আসতে লাগলো ২৫ বছর। এবং সেখান থেকে ইন্টারনেট আবিষ্কার করতে লাগলো ১৫ বছর , সেখান থেকে স্মার্টফোন , ক্লাউড প্রযুক্তি এবং মোবাইল কমপিউটিং-এ আসতে লাগলো ১২ বছর।
Romanized Version
এর আগেও কয়েকবার আমাদের জীবনের ছন্দ পালটিয়ে দেবার কাজ করেছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি। মনুষ্যসভ্যতা এবং সেই সঙ্গে বিজ্ঞান এক পা এক পা করে এগিয়ে চলেছে। তবে আমাদের জীবনে বদলগুলো ঠিক এক গতিতে আসছেনা। কখনো কখনো একএকটা বিজ্ঞানের আবিষ্কার এক লাফে আমাদের অনেকটা এগিয়ে দিয়েছে। অনেক কিছু সুবিধে এনে দিয়েছে আমাদের হাতের মুঠোয়। আবার কখনো বা তা এসেছে ধীরে সুস্থে। বিজ্ঞানের অবিরাম অগ্রগতির সঙ্গে এ রকম নব নব প্রযুক্তি তো সব সময়েই আসছে এবং যতদিন যাচ্ছে বিজ্ঞানের অগ্রগতির জন্যে নতুন প্রযুক্তিগুলো আরো দ্রুত এসে পড়ছে আমাদের জীবনে। প্রযুক্তির এই বদলের গতির কথা কয়েকটি তথ্য দিলে বোঝা যাবে। আজ থেকে প্রায় ২৫০০০ বছর আগে মানুষের কাছে এক প্রযুক্তি হাতে এসেছিল – তার নাম ছবি আঁকা। মানুষ পাহাড়ে গুহায় গাছের গায়ে , যা দেখত তা থেকে ছবি আঁকতে শিখেছিল। সেও এক আদি প্রযুক্তি। সেখান থেকে মানুষের চাষবাস শিখতে লেগে গেল ৫০,০০০ বছর। সেখান থেকে লিখতে শেখা এবং চাকা আবিষ্কার করতে লাগলো আরো ৫০০০ বছর। সেখান থেকে জমির মাপ করে তাকে সীমানা দিয়ে বেঁধে ফেলতে শিখল। দেশ শহর গ্রাম এই রকম অঞ্চলভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থাকে গুছিয়ে নিতে লাগলো আরো ২৫০০ বছর। সেখান থেকে মানুষ বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা নিরীক্ষা করার পদ্ধতি আবিষ্কার করতে লাগলো ১৯০০ বছর। সেখান থেকে শিল্পায়ন শুরু করতে লাগলো ৩২৫ বছর। সেখান থেকে বিদ্যুৎ , টেলিফোন এবং রেডিও আবিষ্কার করতে লাগলো ৯৫ বছর , সেখান থেকে প্রথম ভ্যাকুম টিউব কমপিউটার আবিষ্কার করতে লাগলো ৬৫ বছর। আদি কমপিউটার থেকে আধুনিক পিসিতে আসতে লাগলো ২৫ বছর। এবং সেখান থেকে ইন্টারনেট আবিষ্কার করতে লাগলো ১৫ বছর , সেখান থেকে স্মার্টফোন , ক্লাউড প্রযুক্তি এবং মোবাইল কমপিউটিং-এ আসতে লাগলো ১২ বছর।Aare Ageo Kayekbar Amader Jibner Chhanda Paltiye Devara Kaj Karechhe Bigyan O Prajukti Manushyasabhyata Evan Sei Sange Bigyan Ec PA Ec PA Kare Egiye Chalechhe Tove Amader Jibne Badalagulo Thik Ec Gatite Asachhena Kakhano Kakhano Ekaekata Bigyaner Abishkar Ec Lafe Amader Anekata Egiye Diyechhe Anek Kichhu Subidhe Ene Diyechhe Amader Hater Muthoy Abar Kakhano Ba Ta Esechhe Dhire Susthe Bigyaner Abiram Agragatir Sange A Rakam Nav Nav Prajukti Toh Sab Samayei Ashche Evan Jatadin Jachchhe Bigyaner Agragatir Janye NATUN Prajuktigulo Aro Drut Ese Parachhe Amader Jibne Prajuktir AE Badaler Gatir Katha Kayekati Tathya Dile Bojha Jabe Az Theke Pray 25000 Bachhar Age Manusher Kachhe Ec Prajukti Hate Esechhil – Taur NAM Sbi Anka Manus Pahare Guhay Gachher Gaye , Ja Dekhat Ta Theke Sbi Ankate Shikhechhil Sao Ec Adi Prajukti Sekhan Theke Manusher Chashbas Shikhte Lege Gel 50 000 Bachhar Sekhan Theke Likhte Shekha Evan Chaka Abishkar Karate Laglo Aro 5000 Bachhar Sekhan Theke Jamir Map Kare Take Simana Diye Bendhe Felte Shikhal Desh Sahor Gram AE Rakam Anchalabhittik Samaj Byabasthake Guchhiye Nite Laglo Aro 2500 Bachhar Sekhan Theke Manus Baigyanik Pariksha Niriksha Karar Paddhati Abishkar Karate Laglo 1900 Bachhar Sekhan Theke Shilpayan Shuru Karate Laglo 325 Bachhar Sekhan Theke Bidyut , Telephone Evan Radio Abishkar Karate Laglo 95 Bachhar , Sekhan Theke Pratham Bhyakum Tube Kamapiutar Abishkar Karate Laglo 65 Bachhar Adi Kamapiutar Theke Adhunik Pisite Asate Laglo 25 Bachhar Evan Sekhan Theke Internet Abishkar Karate Laglo 15 Bachhar , Sekhan Theke Smartphone , Cloud Prajukti Evan Mobile Kamapiuting A Asate Laglo 12 Bachhar
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bigyan Amader,Science Is Ours,


vokalandroid