বিচার বিভাগের খবর ...

বিচার বিভাগের খবর সম্পর্কে ভুল বোঝানো হচ্ছে সরকারপ্রধানকে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, সরকারপ্রধানকে বোঝানো হচ্ছে যে বিচার বিভাগ প্রশাসনের প্রতিপক্ষ। কিন্তু বিচার বিভাগ কোনো দিনই সরকার বা প্রশাসনের প্রতিপক্ষ হয়নি। সরকারপ্রধানকে ভুল রিপোর্ট দেওয়ায় বিচার বিভাগ নয়, বরং প্রশাসনই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তিনি বলেন, বিচার বিভাগের ছোট ছোট সমস্যা সরকারপ্রধানের কাছে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে না। ফলে বিচার বিভাগ ও নির্বাহী বিভাগের মধ্যে ভুল-বোঝাবুঝির সৃষ্টি হচ্ছে। প্রধান বিচারপতি বলেন, নিম্ন আদালতগুলোতে বিচারকশূন্যতা নিয়ে সরকারকে সময়মতো চিঠি দেওয়া হলেও সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে না। প্রশাসনের ইউনিয়ন পর্যন্ত ডিজিটালাইজেশন-প্রক্রিয়া চললেও বিচার বিভাগের ডিজিটালাইজেশনে টাকা দেওয়া হচ্ছে না। বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের (বিজেএসসি) অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধান বিচারপতি এসব কথা বলেন। গতকাল শনিবার বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের সেমিনার হলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।বিজেএসসির চেয়ারম্যান ও আপিল বিভাগের বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞা, বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খোন্দকার মূসা খালেদ, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির কান্ট্রি ডিরেক্টর সুদীপ্ত মুখার্জি, বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের সচিব পরেশ চন্দ্র শর্ম্মা। বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা পদে নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আগ্রহীরা এখন থেকে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পৃথিবীর যেকোনো স্থান থেকে অলাইনে রেজিস্টেশন করতে পারবে। প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘সংবিধান ও আইনে বিচার বিভাগকে যে ক্ষমতা দেওয়া আছে, সে অনুযায়ী কাজ করতে দেওয়া হলে দেশে দুর্নীতি, অপরাধপ্রবণতা, এমনকি সন্ত্রাসমূলক কাজ অনেকাংশে চলে যাবে। আশা করি সরকার এবং প্রশাসন এটা উপলব্ধি করবে। ’ প্রধান বিচারপতি বলেন, প্রত্যেকটি সরকার যেহেতু রাজনৈতিক সরকার। তাই কিছুটা বাড়াবাড়ি হবে। যখনই দেখা যাবে রাজনৈতিক সরকার ও নেতাদের দ্বারা শাসতন্ত্রে যা বলা আছে তা ঠিকমতো হচ্ছে না, তখনই সুপ্রিম কোর্ট এগিয়ে আসবেন। না হলে সে দেশে সভ্যতা থাকবে না।প্রধান বিচারপতি আমেরিকার উদাহরণ দিয়ে বলেন, ট্রাম্প ন্যক্কারজনকভাবে বিচার বিভাগের সমালোচনা করছেন। কিন্তু আমেরিকার বিচার বিভাগ চুল পরিমাণ নড়েনি। ভারতেও এই বিচার বিভাগ প্রতিটি ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখছে। বিচার বিভাগের ক্ষতির জন্য বিচার বিভাগের কিছু লোককে দায়ী করে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘পাকিস্তান আমল থেকে যদি ইতিহাস পর্যালোচনা করি, তাহলে দেখা যাবে বিচার বিভাগের যত ক্ষতি করেছে তা আমাদের বিচার বিভাগের কিছু লোক। আমরাই বেশি ক্ষতি করেছি। ’প্রধান বিচারপতি মামলাজটের জন্য পরোক্ষভাবে প্রশাসনকে দায়ী করে বলেন, ‘আমাদের বিচারকস্বল্পতা রয়েছে। জেলা জজ ছয়টি, অতিরিক্ত জেলা জজ ৯টি, যুগ্ম জেলা জজ ১৬টি, সহকারী জজ পর্যায়ে ১২৩টি ও জুডিশিয়াল সার্ভিসে ১৫৯টি পদ খালি। সর্বমোট ৩০৭টি পদ খালি। এই বিচারকশূন্যতা নিয়ে আমরা সময়মতো সরকারকে চিঠি দিয়েছি। কিন্তু সহযোগিতা পাই না। ’অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন রেজিস্ট্রেশন সিস্টেম আগেই চালু হওয়া দরকার ছিল মন্তব্য করে প্রধান বিচারপতি বলেন, সরকারের যেসব ডিজিটালাইজেশনের কথা বলা হচ্ছে, তার পেছনে অনেক টাকাও ব্যয় করা হচ্ছে। ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত প্রশাসনের ডিজিটালাইজেশনের প্রক্রিয়া চলছে। কিন্তু বিচার বিভাগের ডিজিটালাইজেশনের জন্য টাকা দেওয়া হচ্ছে না। জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের ডিজিটালাইজেশনের জন্য ইউএনডিপির সাহায্য নিতে হচ্ছে, এটা দুঃখজনক। তিনি বলেন, বিচার বিভাগ থেকে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা প্রতিবছর আয় করা হচ্ছে। কিন্তু এক হাজার টাকা ব্যয় করারও বাজেট প্রধান বিচারপতির কাছে নেই।বিচার বিভাগের সফলতার কথা উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আজ পর্যন্ত বিচার বিভাগের যত অর্জন, তা কোনো দিনই প্রশাসন দেয়নি, বরং জুডিশিয়ালের প্রনাউন্সমেন্ট (রায়) দ্বারা অর্জন করেছি। ’ বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার বিচার এবং যুদ্ধাপরাধের বিচারে বিচার বিভাগের সাফল্যের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশে-বিদেশে (ট্রাইব্যুনালের) এই বিচার নিয়ে সমালোচনা হলেও এখন এই রায়গুলো নিয়ে পৃথিবীর কোথাও সমালোচনা হচ্ছে না। এ ছাড়া প্রকল্পের কর্মচারীদের রাজস্ব খাতে অন্তর্ভুক্ত করার সীমাবদ্ধতা, দুদক আইনের সংশোধনী, চট্টগ্রামে জাহাজ ভাঙার ক্ষেত্রে গাইডলাইন তৈরি, মেডিক্যাল ভর্তির গাইডলাইন তৈরি—এ প্রতিটি ক্ষেত্রেই সুপ্রিম কোর্ট এগিয়ে এসেছেন। তিনি বলেন, নিয়োগ পরীক্ষায় জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনই একমাত্র প্রতিষ্ঠান, যেখানে কোনো প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়নি।
Romanized Version
বিচার বিভাগের খবর সম্পর্কে ভুল বোঝানো হচ্ছে সরকারপ্রধানকে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, সরকারপ্রধানকে বোঝানো হচ্ছে যে বিচার বিভাগ প্রশাসনের প্রতিপক্ষ। কিন্তু বিচার বিভাগ কোনো দিনই সরকার বা প্রশাসনের প্রতিপক্ষ হয়নি। সরকারপ্রধানকে ভুল রিপোর্ট দেওয়ায় বিচার বিভাগ নয়, বরং প্রশাসনই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তিনি বলেন, বিচার বিভাগের ছোট ছোট সমস্যা সরকারপ্রধানের কাছে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে না। ফলে বিচার বিভাগ ও নির্বাহী বিভাগের মধ্যে ভুল-বোঝাবুঝির সৃষ্টি হচ্ছে। প্রধান বিচারপতি বলেন, নিম্ন আদালতগুলোতে বিচারকশূন্যতা নিয়ে সরকারকে সময়মতো চিঠি দেওয়া হলেও সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে না। প্রশাসনের ইউনিয়ন পর্যন্ত ডিজিটালাইজেশন-প্রক্রিয়া চললেও বিচার বিভাগের ডিজিটালাইজেশনে টাকা দেওয়া হচ্ছে না। বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের (বিজেএসসি) অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধান বিচারপতি এসব কথা বলেন। গতকাল শনিবার বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের সেমিনার হলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।বিজেএসসির চেয়ারম্যান ও আপিল বিভাগের বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞা, বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খোন্দকার মূসা খালেদ, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির কান্ট্রি ডিরেক্টর সুদীপ্ত মুখার্জি, বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের সচিব পরেশ চন্দ্র শর্ম্মা। বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা পদে নিয়োগ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আগ্রহীরা এখন থেকে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পৃথিবীর যেকোনো স্থান থেকে অলাইনে রেজিস্টেশন করতে পারবে। প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘সংবিধান ও আইনে বিচার বিভাগকে যে ক্ষমতা দেওয়া আছে, সে অনুযায়ী কাজ করতে দেওয়া হলে দেশে দুর্নীতি, অপরাধপ্রবণতা, এমনকি সন্ত্রাসমূলক কাজ অনেকাংশে চলে যাবে। আশা করি সরকার এবং প্রশাসন এটা উপলব্ধি করবে। ’ প্রধান বিচারপতি বলেন, প্রত্যেকটি সরকার যেহেতু রাজনৈতিক সরকার। তাই কিছুটা বাড়াবাড়ি হবে। যখনই দেখা যাবে রাজনৈতিক সরকার ও নেতাদের দ্বারা শাসতন্ত্রে যা বলা আছে তা ঠিকমতো হচ্ছে না, তখনই সুপ্রিম কোর্ট এগিয়ে আসবেন। না হলে সে দেশে সভ্যতা থাকবে না।প্রধান বিচারপতি আমেরিকার উদাহরণ দিয়ে বলেন, ট্রাম্প ন্যক্কারজনকভাবে বিচার বিভাগের সমালোচনা করছেন। কিন্তু আমেরিকার বিচার বিভাগ চুল পরিমাণ নড়েনি। ভারতেও এই বিচার বিভাগ প্রতিটি ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখছে। বিচার বিভাগের ক্ষতির জন্য বিচার বিভাগের কিছু লোককে দায়ী করে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘পাকিস্তান আমল থেকে যদি ইতিহাস পর্যালোচনা করি, তাহলে দেখা যাবে বিচার বিভাগের যত ক্ষতি করেছে তা আমাদের বিচার বিভাগের কিছু লোক। আমরাই বেশি ক্ষতি করেছি। ’প্রধান বিচারপতি মামলাজটের জন্য পরোক্ষভাবে প্রশাসনকে দায়ী করে বলেন, ‘আমাদের বিচারকস্বল্পতা রয়েছে। জেলা জজ ছয়টি, অতিরিক্ত জেলা জজ ৯টি, যুগ্ম জেলা জজ ১৬টি, সহকারী জজ পর্যায়ে ১২৩টি ও জুডিশিয়াল সার্ভিসে ১৫৯টি পদ খালি। সর্বমোট ৩০৭টি পদ খালি। এই বিচারকশূন্যতা নিয়ে আমরা সময়মতো সরকারকে চিঠি দিয়েছি। কিন্তু সহযোগিতা পাই না। ’অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন রেজিস্ট্রেশন সিস্টেম আগেই চালু হওয়া দরকার ছিল মন্তব্য করে প্রধান বিচারপতি বলেন, সরকারের যেসব ডিজিটালাইজেশনের কথা বলা হচ্ছে, তার পেছনে অনেক টাকাও ব্যয় করা হচ্ছে। ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত প্রশাসনের ডিজিটালাইজেশনের প্রক্রিয়া চলছে। কিন্তু বিচার বিভাগের ডিজিটালাইজেশনের জন্য টাকা দেওয়া হচ্ছে না। জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের ডিজিটালাইজেশনের জন্য ইউএনডিপির সাহায্য নিতে হচ্ছে, এটা দুঃখজনক। তিনি বলেন, বিচার বিভাগ থেকে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা প্রতিবছর আয় করা হচ্ছে। কিন্তু এক হাজার টাকা ব্যয় করারও বাজেট প্রধান বিচারপতির কাছে নেই।বিচার বিভাগের সফলতার কথা উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আজ পর্যন্ত বিচার বিভাগের যত অর্জন, তা কোনো দিনই প্রশাসন দেয়নি, বরং জুডিশিয়ালের প্রনাউন্সমেন্ট (রায়) দ্বারা অর্জন করেছি। ’ বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার বিচার এবং যুদ্ধাপরাধের বিচারে বিচার বিভাগের সাফল্যের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশে-বিদেশে (ট্রাইব্যুনালের) এই বিচার নিয়ে সমালোচনা হলেও এখন এই রায়গুলো নিয়ে পৃথিবীর কোথাও সমালোচনা হচ্ছে না। এ ছাড়া প্রকল্পের কর্মচারীদের রাজস্ব খাতে অন্তর্ভুক্ত করার সীমাবদ্ধতা, দুদক আইনের সংশোধনী, চট্টগ্রামে জাহাজ ভাঙার ক্ষেত্রে গাইডলাইন তৈরি, মেডিক্যাল ভর্তির গাইডলাইন তৈরি—এ প্রতিটি ক্ষেত্রেই সুপ্রিম কোর্ট এগিয়ে এসেছেন। তিনি বলেন, নিয়োগ পরীক্ষায় জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনই একমাত্র প্রতিষ্ঠান, যেখানে কোনো প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়নি।Bichar Bibhager Khabar Samparke Bhool Bojhano Hachchhe Sarakarapradhanke Pradhan Bicharapati Surendr Kumar Sinha Balechhen Sarakarapradhanke Bojhano Hachchhe Je Bichar Bibhag Prashasner Pratipaksh Kintu Bichar Bibhag Kono Dinai Sarkar Ba Prashasner Pratipaksh Hayani Sarakarapradhanke Bhool Report Deway Bichar Bibhag Noy Wrong Prashasanai Xatigrasta Hachchhe Tini Baleno Bichar Bibhager Chhot Chhot Samasya Sarakarapradhaner Kachhe Sathikbhabe Upasthapan Kara Hachchhe Na Fale Bichar Bibhag O Nirbahi Bibhager Madhye Bhool Bojhabujhir Srishti Hachchhe Pradhan Bicharapati Baleno Nimna Adalatagulote Bicharakashunyata Niye Sarakarke Samayamato Chithi Dewa Haleo Sahajogita Powa Jachchhe Na Prashasner UNION Parjanta Dijitalaijeshan Prakriya Chalaleo Bichar Bibhager Dijitalaijeshne Taka Dewa Hachchhe Na Bangladesh Judicial Sarbhis Kamishner BJSC Online Application Registration Sistemer Udwodhani Anushthane Pradhan Atithir Baktabye Pradhan Bicharapati Esab Katha Baleno Gatakal Shanibar Bichar Prashasan Prashikshan Inastitiuter Seminar Hale A Anushthaner Ayojan Kara Hya Bijeesasir Cheyaramyan O Apil Bibhager Bicharapati HASAN Fayej Siddikir Sabhaptitbe Anushthane Aro Baktabya Than Apil Bibhager Jyeshtha Bicharapati Abadul Wahhab Miyan Bichar Prashasan Prashikshan Inastitiuter Mahaprichalak Bicharapati Khondakar Moosa Khaled Haikorta Bibhager Bicharapati Kamrul Islam Siddiki Atarni Jenarel Mahbube Alam Jatisangha Unnayan Karmasuchir Kantri Direktar Sudipta Mukharji Bangladesh Judicial Sarbhis Kamishner Sachiv Paresh Chandra Sharmma Bichar Bibhagiya Karmakarta Pode Niyog Parikshay Angshagrahan Karate Agrahira Ekhan Theke Oyebsaiter Madhyame Prithibir Jekono Sthan Theke Alaine Rejisteshan Karate Parbe Pradhan Bicharapati Baleno ‘sangbidhan O Aine Bichar Bibhagake Je Xamata Dewa Ache Say Anujayi Kaj Karate Dewa Hale Deshe Durniti Aparadhaprabanata Emanaki Santrasamulak Kaj Anekangshe Chale Jabe Asha Kari Sarkar Evan Prashasan Etah Upalabdhi Karabe ’ Pradhan Bicharapati Baleno Pratyekati Sarkar Jehetu Rajnaitik Sarkar Tai Kichhuta Barabari Habe Jakhanai Dekha Jabe Rajnaitik Sarkar O Netader Dwara Shasatantre Ja Bala Ache Ta Thikamato Hachchhe Na Takhanai Supreme Court Egiye Aswan Na Hale Say Deshe Sabhyata Thakbe Na Pradhan Bicharapati Amerikar Udaharan Diye Baleno Trump Nyakkarajanakabhabe Bichar Bibhager Samalochna Karachhen Kintu Amerikar Bichar Bibhag Chul Pariman Nareni Bharteo AE Bichar Bibhag Pratiti Xetre Bhumika Rakhchhe Bichar Bibhager Xatir Janya Bichar Bibhager Kichhu Lokke Dayi Kare Pradhan Bicharapati Baleno ‘pakistan Amol Theke Jodi Itihas Parjalochna Kari Tahle Dekha Jabe Bichar Bibhager Jat Xati Karechhe Ta Amader Bichar Bibhager Kichhu Loka Amarai Bedshee Xati Karechhi ’pradhan Bicharapati Mamlajter Janya Parokshabhabe Prashasanake Dayi Kare Baleno ‘amader Bicharakaswalpata Rayechhe Jela Jojo Chhayati Atirikta Jela Jojo 9ti Jugma Jela Jojo 16ti Sahakari Jojo Parjaye 123ti O Judicial Sarbhise 159ti Pada Khali Sarbamot 307ti Pada Khali AE Bicharakashunyata Niye Amara Samayamato Sarakarke Chithi Diyechhi Kintu Sahajogita Pai Na ’analain Application Registration System Agei Chalu Hwa Darakar Chhil Mantabya Kare Pradhan Bicharapati Baleno Sorcerer Jesab Dijitalaijeshner Katha Bala Hachchhe Taur Pechhne Anek Takao Byay Kara Hachchhe UNION Parjay Parjanta Prashasner Dijitalaijeshner Prakriya Chalachhe Kintu Bichar Bibhager Dijitalaijeshner Janya Taka Dewa Hachchhe Na Judicial Sarbhis Kamishner Dijitalaijeshner Janya Yuenadipir Sahajya Nite Hachchhe Etah Duhkhajanak Tini Baleno Bichar Bibhag Theke Pray Tin Hajar Koti Taka Pratibachhar Ai Kara Hachchhe Kintu Ec Hajar Taka Byay Kararao Budget Pradhan Bicharapatir Kachhe Nei Bichar Bibhager Safalatar Katha Ullekh Kare Pradhan Bicharapati Baleno ‘aj Parjanta Bichar Bibhager Jat Arjan Ta Kono Dinai Prashasan Deyni Wrong Judishiyaler Pranaunsamenta Rai Dwara Arjan Karechhi ’ Bangabandhuke Saparibare Hotjar Bichar Evan Juddhaparadher Bichare Bichar Bibhager Safalyer Katha Ullekh Kare Tini Baleno Deshe Bideshe Traibyunaler AE Bichar Niye Samalochna Haleo Ekhan AE Raygulo Niye Prithibir Kothao Samalochna Hachchhe Na A Chhara Prakalper Karmacharider Rajaswa Khate Antarbhukta Karar Simabaddhata Dudak Ainer Sangshodhani Chattagrame Jahaj Bhangar Xetre Gaidalain Tairi Medical Bhartir Gaidalain Tairi—A Pratiti Xetrei Supreme Court Egiye Esechhen Tini Baleno Niyog Parikshay Judicial Sarbhis Kamishanai Ekamatra Pratisthan Jekhanay Kono Prashnapatra Phas Hayani
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

কেন গণতন্ত্র আইনের শাসন ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে? ...

স্টাফ রিপোর্টার: সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি আয়োজিত সেমিনারে বক্তারা বলেছেন, দেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। বর্তমানে দেশে সংকট চলছে। এত বড় সংকটে যদি ঐক্য প্রকजवाब पढ़िये
ques_icon

More Answers


বিচার বিভাগের খবর : নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথক হয়েছে এক দশকেরও বেশি সময়। ২০০৭ সালের ১ নভেম্বর ‘আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় একটি স্বাধীন বিচার বিভাগ প্রয়োজন’- এমন উপলব্ধির পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকের আদেশ জারি করে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার। ইতোমধ্যে বিচার বিভাগের খবর নিম্ন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা নিয়ে গেজেট প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু বিচার বিভাগের পূর্ণ স্বাধীনতা নিশ্চিতে পৃথক সচিবালয় এখনও গঠন করা সম্ভব হয়নি। আইনজ্ঞরা বলছেন, বিচার বিভাগ খবর পৃথক হলেও এখনও আইন মন্ত্রণালয় ও সরকারের মুখাপেক্ষী হতে হয়। গতকাল শুক্রবার ছিল বিচার বিভাগ পৃথকীকরণ দিবস। পৃথক করার পর ১১টি বছর কেটে গেলেও সম্ভব হয়নি বিচার বিভাগের জন্য পৃথক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা। পৃথক সচিবালয় আদৌ সম্ভব কিনা- তা নিয়ে প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে। আইনজীবীরা মনে করেন, বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের পর দেশের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ওপর বিচার বিভাগের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবর্তে বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটরা বিচারকাজ পরিচালনা করছেন। এটা বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
Romanized Version
বিচার বিভাগের খবর : নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথক হয়েছে এক দশকেরও বেশি সময়। ২০০৭ সালের ১ নভেম্বর ‘আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় একটি স্বাধীন বিচার বিভাগ প্রয়োজন’- এমন উপলব্ধির পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকের আদেশ জারি করে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার। ইতোমধ্যে বিচার বিভাগের খবর নিম্ন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা নিয়ে গেজেট প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু বিচার বিভাগের পূর্ণ স্বাধীনতা নিশ্চিতে পৃথক সচিবালয় এখনও গঠন করা সম্ভব হয়নি। আইনজ্ঞরা বলছেন, বিচার বিভাগ খবর পৃথক হলেও এখনও আইন মন্ত্রণালয় ও সরকারের মুখাপেক্ষী হতে হয়। গতকাল শুক্রবার ছিল বিচার বিভাগ পৃথকীকরণ দিবস। পৃথক করার পর ১১টি বছর কেটে গেলেও সম্ভব হয়নি বিচার বিভাগের জন্য পৃথক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা। পৃথক সচিবালয় আদৌ সম্ভব কিনা- তা নিয়ে প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে। আইনজীবীরা মনে করেন, বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের পর দেশের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ওপর বিচার বিভাগের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের পরিবর্তে বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটরা বিচারকাজ পরিচালনা করছেন। এটা বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।Bichar Bibhager Khabar Nirbahi Bibhag Theke Bichar Bibhag Prithak Hayechhe Ec Dashakerao Bedshee Camay 2007 Saler 1 Nabhembar ‘ainer Hasn Pratishthay Ekati Sweden Bichar Bibhag Prayojano Eman Upalabdhir Pariprekshite Nirbahi Bibhag Theke Bichar Bibhag Prithker Adays Jari Kare Ttkalin Tattbabadhayak Sarkar Itomadhye Bichar Bibhager Khabar Nimna Adalter Bicharakader Shrinkhala Sankranta Bidhimala Niye Gadget Prakash Hayechhe Kintu Bichar Bibhager Purna Swadhinata Nishchite Prithak Sachivalaya Ekhanao Gathan Kara Sambhab Hayani Ainagyara Balachhen Bichar Bibhag Khabar Prithak Haleo Ekhanao Ain Mantranalay O Sorcerer Mukhapekshi Hate Hay Gatakal Shukrabar Chhil Bichar Bibhag Prithkikaran Dibas Prithak Karar Par 11ti Bachhar Kete Geleo Sambhab Hayani Bichar Bibhager Janya Prithak Sachivalaya Pratishtha Prithak Sachivalaya Adau Sambhab Qina Ta Niye Prashna Theke Jachchhe Ainajibira Money Curren Bichar Bibhag Prithkikaraner Par Desher Myajistret Adalter Opar Bichar Bibhager Kartritba Pratishthit Hayechhe Nirbahi Myajistreter Paribarte Bichar Bibhagiya Myajistretara Bicharkaj Parichalna Karachhen Etah Bichar Bibhag Prithkikaraner Sabacheye Gurutbapurna Vysya
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bichar Bibhager Khabar,News Of The Department Of Justice,


vokalandroid