কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি এই সর্ম্পকে আলোচনা কর? ...

কায়কোবাদ. আযান . কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি । মর্মে মর্মে সেই সুর, বাজিল কি সুমধুর আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী। কি মধুর আযানের ধ্বনি ! আমি তো পাগল হয়ে সে মধুর তানে, কি যে এক আকর্ষণে, ছুটে যাই মুগ্ধমনে কি নিশীথে, কি দিবসে মসজিদের পানে। হৃদয়ের তারে তারে, প্রাণের শোণিত-ধারে, কি যে এক ঢেউ উঠে ভক্তির তুফানে- কত সুধা আছে সেই মধুর ...
Romanized Version
কায়কোবাদ. আযান . কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি । মর্মে মর্মে সেই সুর, বাজিল কি সুমধুর আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী। কি মধুর আযানের ধ্বনি ! আমি তো পাগল হয়ে সে মধুর তানে, কি যে এক আকর্ষণে, ছুটে যাই মুগ্ধমনে কি নিশীথে, কি দিবসে মসজিদের পানে। হৃদয়ের তারে তারে, প্রাণের শোণিত-ধারে, কি যে এক ঢেউ উঠে ভক্তির তুফানে- কত সুধা আছে সেই মধুর ... Kaykobad Ajan . K Ae Shonalo Morre Ajaner Dhvani Marme Marme Sei Sur Bezel Ki Sumadhura Akola Hail Pran Nachil Dhamani Ki Madhur Ajaner Dhvani ! Aami Toh Paagal Haye Say Madhur Tane Ki Je Ec Akarshane Chhute Jai Mugdhamane Ki Nishithe Ki Dibse Masajider Pane Hridyer Tare Tare Praner Shonit Dhare Ki Je Ec Dheu Uthe Bhaktir Tufane Kat Sudha Ache Sei Madhur ...
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি :- কে ওই শোনাল মোরে আযানের ধ্বনি। মর্মে মর্মে সেই সুর, বাজিল কি সুমধুর আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী। কি মধুর আযানের ধ্বনি! আমি তো পাগল হয়ে সে মধুর তানে, কি যে এক আকর্ষণে, ছুটে যাই মুগ্ধমনে কি নিশীথে, কি দিবসে মসজিদের পানে। হৃদয়ের তারে তারে, প্রাণের শোণিত-ধারে, কি যে এক ঢেউ উঠে ভক্তির তুফানে- কত সুধা আছে সেই মধুর আযানে। নদী ও পাখির গানে তারই প্রতিধ্বনি। ভ্রমরের গুণ-গানে সেই সুর আসে কানে কি এক আবেশে মুগ্ধ নিখিল ধরণী। ভূধরে, সাগরে জলে নির্ঝরণী কলকলে, আমি যেন শুনি সেই আযানের ধ্বনি। আহা যবে সেই সুর সুমধু স্বরে, ভাসে দূরে সায়াহ্নের নিথর অম্বরে, প্রাণ করে আনচান, কি মধুর সে আযান, তারি প্রতিধ্বনি শুনি আত্মার ভিতরে। নীরব নিঝুম ধরা, বিশ্বে যেন সবই মরা, এতটুকু শব্দ যবে নাহি কোন স্থানে, মুয়াযযিন উচ্চৈঃস্বরে দাঁড়ায়ে মিনার 'পরে কি সুধা ছড়িয়ে দেয় উষার আযানে! জাগাইতে মোহমুদ্ধ মানব সন্তানে। আহা কি মধুর ওই আযানের ধ্বনি। মর্মে মর্মে সেই সুর বাজিল কি সমধুর আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি, মর্মে মর্মে সেই সুর, বাজিলো কি সুমধুৃর, আকুল হইলো প্রাণ, নাচিলো ধ্বমনি। কি-মধুর আযানের ধ্বনি। কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি :- ছোটবেলায় পড়া মহাকবি কায়কোবাদের অমর এই কবিতাটি আজ খুব মনে পড়ছে, কানে বাজছে। মর্মে মর্মে প্রতিধ্বনিত হচ্ছে সেই সুমধুর সুর। পৃথীবিতে দিন-রাতের ২৪ ঘণ্টায় এমন কোনো একটি মুহূর্ত নেই যে আযানের সুর ছাড়া। অর্থাৎ আহ্নিক গতির প্রভাবে যে দিন-রাত হয় এবং গোলাকার পৃথিবী আর সূর্য যখন নিজ নিজ কক্ষপথ অতিক্রম করে তখন পৃথিবীর এক প্রান্তে দিন হলে অপর প্রান্তে রাত। এমনি করে ঘুরতে থাকে সারাক্ষণ। এদিকে সূর্যের উদয়-অস্তের সাথে নামাজের সময় নির্ধারিত। এভাবে সূর্যের পরিভ্রমণের সাথে সাথে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের সময় আবর্তিত হয় পৃথিবীতে। সে হিসেবে দেখা যায় দিনের ২৪ ঘণ্টাই অর্থাৎ প্রতিটি ক্ষণই পৃথিবীর কোনো না কোনো প্রান্তে কোনো না কোনো ওয়াক্তের নামাজের আযান হচ্ছে। এছাড়া মুসলিমদের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী নবজাততের জন্মের পরই তার কানে আযান দিতে হয়। এবার একটু পরিসংখ্যানের দিকে নজর দেই- প্রতি মিনিটে পৃথিবীতে ২৫০ শিশু জন্মগ্রহণ করে। ২০১৫ সালের ৭ জুলাই প্রকাশিত জাতিসংঘের বিশ্ব জনসংখ্যা সমীক্ষা-২০১৫-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্বের জনসংখ্যা ৭৩০ কোটি। বর্তমানে এই সংখ্যা আরও বেশি। আর উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে, বিশ্বে মোট জনসংখ্যার প্রায় চার ভাগের এক ভাগ মুসলমান। এখন ৭৩০ কোটি জনসংখ্যা ধরে যদি হিসাব করি তবুও বর্তমান বিশ্বে ১৮২.৫ কোটি মুসলমান (এরই মধ্যে জনসংখ্যা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে)। সুতরাং সহজেই বুঝা যাচ্ছে, প্রতি মিনিটে জন্ম নেওয়া ২৫০ শিশুর চার ভাগের একভাগ অর্থাৎ ৬২.৫ জনের কানে আযান দেওয়া হচ্ছে প্রতি মিনিটে। সেটা দিন-রাতের যেকেনো সময়। উপরের দুই পরিসংখ্যান থেকে পরিষ্কার হলো, এই আযানের ধ্বনি পৃথিবীর প্রতিটি প্রান্তে প্রতিটি মুহূর্ত ধ্বনিত-প্রতিধ্বনিত হচ্ছে। গত ১৭ এপ্রিল সোমবার ভারতের বিতর্কিত গায়ক সনু নিগম টুইটারে লেখেন, ‘সৃষ্টিকর্তা সবার ভালো করুন। আমি মুসলিম না, তা-ও আমাকে আজান শুনে ঘুম থেকে উঠতে হয়। ভারতে কবে এই জোর করে চাপিয়ে দেওয়া ধর্মভার শেষ হবে।’ আরেকটি পোস্টে সনু লেখেন, ‘মুহাম্মদ সা. যখন ইসলাম তৈরি করেছিলেন, তখন তো বিদ্যুৎ ছিল না। তাহলে এডিসনের পর থেকে কেন আমাদের এই কর্কশ শব্দ সহ্য করতে হবে?’ এরপর থেকে ভারত ও বাংলাদেশে শুরু হয় ব্যাপক প্রতিবাদ। প্রতিবাদে শামিল হন ভারত ও বাংলাদেশের বিখ্যাত শিল্পীরাও। মুসলিমদের পাশাপাশি বাংলাদেশসহ ভারতীয় বেশ ক’জন হিন্দু অভিনেতা-অভিনেত্রী-শিল্পীও আযানের প্রতি ভালোবাসা-শ্রদ্ধার কথা জানালেন। এটা অবশ্য প্রশংসার বিষয়। অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতেও বেশ বড়ো মনের প্রয়োজন। তারা সে মনের পরিচয় দিয়েছেন। তবে যা-ই হোক, যে যা-ই বলুক, আল্লাহু আকবার ধ্বনি দিকে দিকে প্রতিধ্বনিত হবে কেয়ামত পর্যন্ত। এটাই চিরন্তন। সনু নামের অর্বাচিনরা আযানকে কাটাক্ষ করলেও, আযান তাদের ভালো না লাগলেও আযানের ঐ সুমধুর সুর পৃথিবীর প্রান্তে প্রান্তে ধ্বনিত হবেই সারাক্ষণ। সেটা মহান আল্লাহর কুদরতেই হচ্ছে-হবে। সনু নিগমরা থাকবে না। থাকার কথা নেই, সুযোগও নেই। লাঞ্চনার মাধ্যমেই তাদের মৃত্যু হবে। আরেকটা মজার ব্যাপার হলো- বিবিসির খবরে জানা যায়, মসজিদের মাইকে আজানের শব্দে ঘুম ভাঙার আপত্তি তোলা সনু নিগমের বাড়ি থেকে ৬০০ মিটার ভেতরে মসজিদে আজান দেয়ার জন্য কোনো মাইকই নেই! ফজরের আজানের শব্দ শোনা যায় কীনা তা পরখ করার জন্য সাংবাদিকরা গত বুধবার (১৯ এপ্রিল) খুব ভোরে ওই গায়কের বাড়ির সামনে উপস্থিত হলে বিষয়টি তারা জানতে পারেন। ঐদিন বিবিসির সাংবাদিক ভোর ৫টা নাগাদ সনুর বাড়ির সামনে উপস্থিত হন। তার আগেই সেখানে অন্য সাংবাদিকরা অপেক্ষায় ছিলেন। ওই সময় সেখানে অন্ধকার ছিল। সাধারণভাবে ব্যস্ত থাকা মুম্বাইয়ের সড়ক সেসময় শুনশান হয়ে ছিল। কয়েকজন সাংবাদিক ফজরের আজানের সময় তার বাড়ির আশেপাশে অবস্থান নিয়ে জানতে পারেন সেখান থেকে কখনই আজান শোনা যায় না। ৬০০ মিটার দূরে যে মসজিদ রয়েছে সেখানে মাইকই নেই।
Romanized Version
কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি :- কে ওই শোনাল মোরে আযানের ধ্বনি। মর্মে মর্মে সেই সুর, বাজিল কি সুমধুর আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী। কি মধুর আযানের ধ্বনি! আমি তো পাগল হয়ে সে মধুর তানে, কি যে এক আকর্ষণে, ছুটে যাই মুগ্ধমনে কি নিশীথে, কি দিবসে মসজিদের পানে। হৃদয়ের তারে তারে, প্রাণের শোণিত-ধারে, কি যে এক ঢেউ উঠে ভক্তির তুফানে- কত সুধা আছে সেই মধুর আযানে। নদী ও পাখির গানে তারই প্রতিধ্বনি। ভ্রমরের গুণ-গানে সেই সুর আসে কানে কি এক আবেশে মুগ্ধ নিখিল ধরণী। ভূধরে, সাগরে জলে নির্ঝরণী কলকলে, আমি যেন শুনি সেই আযানের ধ্বনি। আহা যবে সেই সুর সুমধু স্বরে, ভাসে দূরে সায়াহ্নের নিথর অম্বরে, প্রাণ করে আনচান, কি মধুর সে আযান, তারি প্রতিধ্বনি শুনি আত্মার ভিতরে। নীরব নিঝুম ধরা, বিশ্বে যেন সবই মরা, এতটুকু শব্দ যবে নাহি কোন স্থানে, মুয়াযযিন উচ্চৈঃস্বরে দাঁড়ায়ে মিনার 'পরে কি সুধা ছড়িয়ে দেয় উষার আযানে! জাগাইতে মোহমুদ্ধ মানব সন্তানে। আহা কি মধুর ওই আযানের ধ্বনি। মর্মে মর্মে সেই সুর বাজিল কি সমধুর আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি, মর্মে মর্মে সেই সুর, বাজিলো কি সুমধুৃর, আকুল হইলো প্রাণ, নাচিলো ধ্বমনি। কি-মধুর আযানের ধ্বনি। কে ঐ শোনালো মোরে আযানের ধ্বনি :- ছোটবেলায় পড়া মহাকবি কায়কোবাদের অমর এই কবিতাটি আজ খুব মনে পড়ছে, কানে বাজছে। মর্মে মর্মে প্রতিধ্বনিত হচ্ছে সেই সুমধুর সুর। পৃথীবিতে দিন-রাতের ২৪ ঘণ্টায় এমন কোনো একটি মুহূর্ত নেই যে আযানের সুর ছাড়া। অর্থাৎ আহ্নিক গতির প্রভাবে যে দিন-রাত হয় এবং গোলাকার পৃথিবী আর সূর্য যখন নিজ নিজ কক্ষপথ অতিক্রম করে তখন পৃথিবীর এক প্রান্তে দিন হলে অপর প্রান্তে রাত। এমনি করে ঘুরতে থাকে সারাক্ষণ। এদিকে সূর্যের উদয়-অস্তের সাথে নামাজের সময় নির্ধারিত। এভাবে সূর্যের পরিভ্রমণের সাথে সাথে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের সময় আবর্তিত হয় পৃথিবীতে। সে হিসেবে দেখা যায় দিনের ২৪ ঘণ্টাই অর্থাৎ প্রতিটি ক্ষণই পৃথিবীর কোনো না কোনো প্রান্তে কোনো না কোনো ওয়াক্তের নামাজের আযান হচ্ছে। এছাড়া মুসলিমদের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী নবজাততের জন্মের পরই তার কানে আযান দিতে হয়। এবার একটু পরিসংখ্যানের দিকে নজর দেই- প্রতি মিনিটে পৃথিবীতে ২৫০ শিশু জন্মগ্রহণ করে। ২০১৫ সালের ৭ জুলাই প্রকাশিত জাতিসংঘের বিশ্ব জনসংখ্যা সমীক্ষা-২০১৫-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্বের জনসংখ্যা ৭৩০ কোটি। বর্তমানে এই সংখ্যা আরও বেশি। আর উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে, বিশ্বে মোট জনসংখ্যার প্রায় চার ভাগের এক ভাগ মুসলমান। এখন ৭৩০ কোটি জনসংখ্যা ধরে যদি হিসাব করি তবুও বর্তমান বিশ্বে ১৮২.৫ কোটি মুসলমান (এরই মধ্যে জনসংখ্যা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে)। সুতরাং সহজেই বুঝা যাচ্ছে, প্রতি মিনিটে জন্ম নেওয়া ২৫০ শিশুর চার ভাগের একভাগ অর্থাৎ ৬২.৫ জনের কানে আযান দেওয়া হচ্ছে প্রতি মিনিটে। সেটা দিন-রাতের যেকেনো সময়। উপরের দুই পরিসংখ্যান থেকে পরিষ্কার হলো, এই আযানের ধ্বনি পৃথিবীর প্রতিটি প্রান্তে প্রতিটি মুহূর্ত ধ্বনিত-প্রতিধ্বনিত হচ্ছে। গত ১৭ এপ্রিল সোমবার ভারতের বিতর্কিত গায়ক সনু নিগম টুইটারে লেখেন, ‘সৃষ্টিকর্তা সবার ভালো করুন। আমি মুসলিম না, তা-ও আমাকে আজান শুনে ঘুম থেকে উঠতে হয়। ভারতে কবে এই জোর করে চাপিয়ে দেওয়া ধর্মভার শেষ হবে।’ আরেকটি পোস্টে সনু লেখেন, ‘মুহাম্মদ সা. যখন ইসলাম তৈরি করেছিলেন, তখন তো বিদ্যুৎ ছিল না। তাহলে এডিসনের পর থেকে কেন আমাদের এই কর্কশ শব্দ সহ্য করতে হবে?’ এরপর থেকে ভারত ও বাংলাদেশে শুরু হয় ব্যাপক প্রতিবাদ। প্রতিবাদে শামিল হন ভারত ও বাংলাদেশের বিখ্যাত শিল্পীরাও। মুসলিমদের পাশাপাশি বাংলাদেশসহ ভারতীয় বেশ ক’জন হিন্দু অভিনেতা-অভিনেত্রী-শিল্পীও আযানের প্রতি ভালোবাসা-শ্রদ্ধার কথা জানালেন। এটা অবশ্য প্রশংসার বিষয়। অন্য ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতেও বেশ বড়ো মনের প্রয়োজন। তারা সে মনের পরিচয় দিয়েছেন। তবে যা-ই হোক, যে যা-ই বলুক, আল্লাহু আকবার ধ্বনি দিকে দিকে প্রতিধ্বনিত হবে কেয়ামত পর্যন্ত। এটাই চিরন্তন। সনু নামের অর্বাচিনরা আযানকে কাটাক্ষ করলেও, আযান তাদের ভালো না লাগলেও আযানের ঐ সুমধুর সুর পৃথিবীর প্রান্তে প্রান্তে ধ্বনিত হবেই সারাক্ষণ। সেটা মহান আল্লাহর কুদরতেই হচ্ছে-হবে। সনু নিগমরা থাকবে না। থাকার কথা নেই, সুযোগও নেই। লাঞ্চনার মাধ্যমেই তাদের মৃত্যু হবে। আরেকটা মজার ব্যাপার হলো- বিবিসির খবরে জানা যায়, মসজিদের মাইকে আজানের শব্দে ঘুম ভাঙার আপত্তি তোলা সনু নিগমের বাড়ি থেকে ৬০০ মিটার ভেতরে মসজিদে আজান দেয়ার জন্য কোনো মাইকই নেই! ফজরের আজানের শব্দ শোনা যায় কীনা তা পরখ করার জন্য সাংবাদিকরা গত বুধবার (১৯ এপ্রিল) খুব ভোরে ওই গায়কের বাড়ির সামনে উপস্থিত হলে বিষয়টি তারা জানতে পারেন। ঐদিন বিবিসির সাংবাদিক ভোর ৫টা নাগাদ সনুর বাড়ির সামনে উপস্থিত হন। তার আগেই সেখানে অন্য সাংবাদিকরা অপেক্ষায় ছিলেন। ওই সময় সেখানে অন্ধকার ছিল। সাধারণভাবে ব্যস্ত থাকা মুম্বাইয়ের সড়ক সেসময় শুনশান হয়ে ছিল। কয়েকজন সাংবাদিক ফজরের আজানের সময় তার বাড়ির আশেপাশে অবস্থান নিয়ে জানতে পারেন সেখান থেকে কখনই আজান শোনা যায় না। ৬০০ মিটার দূরে যে মসজিদ রয়েছে সেখানে মাইকই নেই। K Ae Shonalo Morre Ajaner Dhvani K We Sonal Morre Ajaner Dhvani Marme Marme Sei Sur Bezel Ki Sumadhura Akola Hail Pran Nachil Dhamani Ki Madhur Ajaner Dhvani Aami Toh Paagal Huye Say Madhur Tane Ki Je Ec Akarshane Chhute Jai Mugdhamane Ki Nishithe Ki Dibse Masajider Pane Hridyer Tare Tare Praner Shonit Dhare Ki Je Ec Dheu Uthe Bhaktir Tufane Kat Sudha Ache Sei Madhur Ajane Nadi O Pakhir Gane Tarai Pratidhbani Bhramarer Goon Gane Sei Sur Ase Kane Ki Ec Abeshe Mugdha Nikhil Dharani Bhudhre Sagre Jale Nirjharani Kalakale Aami Jen Shuni Sei Ajaner Dhvani Aaha Jabe Sei Sur Sumdhu Sware Bhase Dure Sayahner Nithar Ombre Pran Kare Anachan Ki Madhur Say Ajan Tari Pratidhbani Shuni Atmar Bhitre Nirab Nijhum Dhara Bishwe Jen Sabai Mara Etatuku Shabd Jabe Nahi Koun Sthane Muyajajin Uchchaihsware Danraye Minar Pare Ki Sudha Chhariye Dey Ushar Ajane Jagaite Mohmuddha Menabe Santane Aaha Ki Madhur We Ajaner Dhvani Marme Marme Sei Sur Bezel Ki Samadhur Akola Hail Pran Nachil Dhamani K Ae Shonalo Morre Ajaner Dhvani Marme Marme Sei Sur Bajilo Ki Sumdhurir Akola Hailo Pran Nachilo Dhbamani Ki Madhur Ajaner Dhvani K Ae Shonalo Morre Ajaner Dhvani Chhotbelay Para Mahakabi Kaykobader Amar AE Kabitati Az Khub Money Parachhe Kane Bajchhe Marme Marme Pratidhbanit Hachchhe Sei Sumadhura Sur Prithibite Dinh Rater 24 Ghantay Eman Kono Ekati Muhurta Nei Je Ajaner Sur Chhara Arthat Ahnik Gatir Prabhabe Je Dinh Raat Hya Evan Golakar Prithibi Are Surya Jakhan Nij Nij Kakshapath Atikram Kare Takhan Prithibir Ec Prante Dinh Hale Apr Prante Raat Emani Kare Ghurte Thake Sarakshan Edike Surjer Uday Aster Sathe Namajer Camay Nirdharit Ebhabe Surjer Paribhramaner Sathe Sathe Paanch Wakta Namajer Camay Abartit Hya Prithibite Say Hisebe Dekha Jay Diner 24 Ghantai Arthat Pratiti Xanai Prithibir Kono Na Kono Prante Kono Na Kono Wakter Namajer Ajan Hachchhe Echhara Muslimder Dharmiya Riti Anujayi Nabajatter Janmer Parai Taur Kane Ajan Dite Hya Ebar Ekatu Parisankhyaner Dike Nazr Dei Prati Minite Prithibite 250 Sishu Janmagrahan Kare 2015 Saler 7 Gooli Prakashit Jatisangher Biswa Janasankhya Samiksha 2015 Aare Pratibedan Anujayi Bishwer Janasankhya 730 Koti Bartamane AE Sankhya RO Bedshee Are Uikipidiyar Tathya Mate Bishwe Mot Janasankhyar Pray CHAR Bhager Ec Bhag Musalaman Ekhan 730 Koti Janasankhya Dhare Jodi Hisab Kari Tabuo Bartaman Bishwe 182 5 Koti Musalaman Erai Madhye Janasankhya RO Briddhi Peyechhe Sutarang Sahajei Bujha Jachchhe Prati Minite Janma Newa 250 Shishur CHAR Bhager Ekabhag Arthat 62 5 Janer Kane Ajan Dewa Hachchhe Prati Minite SATA Dinh Rater Jekeno Camay Uparer Dui Parisankhyan Theke Parishkar Holo AE Ajaner Dhvani Prithibir Pratiti Prante Pratiti Muhurta Dhbanit Pratidhbanit Hachchhe Gata 17 April Sombar Bharter Bitarkit Gayak Sonu Nigam Tuitare Lekhen ‘srishtikarta Sawaar Valu Karoon Aami Muslim Na Ta O Amake Ajan Shune Ghum Theke Uthate Hya Bharte Kabe AE Jor Kare Chapiye Dewa Dharmabhar Sesh Habe ’ Arekati Poste Sonu Lekhen ‘muhammad Sa Jakhan Islam Tairi Karechhilen Takhan Toh Bidyut Chhil Na Tahle Edisner Par Theke Can Amader AE Karkash Shabd Sahya Karate Habe ’ Erapar Theke Bharat O Bangladeshe Shuru Hya Byapak Pratibad Pratibade Shamil Hahn Bharat O Bangladesher Bikhyat Shilpirao Muslimder Pashapashi Bangladeshasah Bharatiya Bash Kojan Hindu Abhineta Abhinetri Shilpio Ajaner Prati Bhalobasa Shraddhar Katha Janalen Etah Abashya Prashansar Vysya Anya Dharmer Prati Shraddhashil Hateo Bash Boro Maner Prayojan Tara Say Maner Parichay Diyechhen Tove Ja E Hoek Je Ja E Baluk Allahu Akabar Dhvani Dike Dike Pratidhbanit Habe Keyamat Parjanta Etai Chirantan Sonu Namer Arbachinra Ajanake Kataksh Karaleo Ajan Tader Valu Na Lagleo Ajaner Ae Sumadhura Sur Prithibir Prante Prante Dhbanit Hawaii Sarakshan SATA Mahan Allahar Kudaratei Hachchhe Habe Sonu Nigamara Thakbe Na Thakur Katha Nei Sujogao Nei Lanchanar Madhyamei Tader Mrityu Habe Arekata Majar Byapar Holo Bibisir Khabare Jaana Jay Masajider Maike Ajaner Shabde Ghum Bhangar Apatti Tola Sonu Nigmer Bari Theke 600 Meter Bhetre Masajide Ajan Their Janya Kono Maikai Nei Fajarer Ajaner Shabd Shona Jay Kina Ta Parakh Karar Janya Sangbadikra Gata Budhbar 19 April Khub Bhore We Gayker Barir Samne Upasthit Hale Bishayati Tara Jante Paren Aidin Bibisir Sangbadik Bhor 5ta Nagad Sanur Barir Samne Upasthit Hahn Taur Agei Sekhane Anya Sangbadikra Apekshay Chhilen We Camay Sekhane Andhakar Chhil Sadharanabhabe Byasta Thaka Mumbaiyer Cadc Sesamay Shunshan Huye Chhil Kayekajan Sangbadik Fajarer Ajaner Camay Taur Barir Ashepashe Abasthan Niye Jante Paren Sekhan Theke Kakhanai Ajan Shona Jay Na 600 Meter Dure Je Masajid Rayechhe Sekhane Maikai Nei
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Ke Ae Shonalo Morre Ajaner Dhvani Ei Sarmpake Alochana Kor ,Who Is The Son Of Azan To Talk About This?,


vokalandroid