বিজ্ঞান দিয়েছে বেগ কেড়েছে আবেগ ...

বিজ্ঞান আবেগ বেগ বিংশ শতাব্দীর শেষ দিককার কথা। ধরলাম ১৯৯২-৯৩ সাল। সময়ের হিসেবে নেহাত কম নয়। আমাদের গ্রামের বাজারে হাট বসত সপ্তাহে দুই দিন। সোম আর বৃহস্পিতবার। বাবা বা দাদা বাজার থেকে ফিরলেই ব্যাগ খুলে দেখতাম কী মাছ কিনেছেন! সাধারণত: রুই, মৃগেল, ইলিশ, কালি বাউশ, চাপিলা বা কাচকি, অর্থাৎ যে মাছগুলো সচারচর ধরতে পাওয়া যায় না সেগুলোই কিনতেন।তাও চাকুরীজীবী বলেই মাছটা কিনে খেতে হতো। কারণ, দুই শ্রেনীর লোককে তখন মাছ কিনতে দেখা যেত- এক. চাকুরীজীবী, দুই. বাদাইম্যা (বাপের টাকা খাওয়া অলস পুত্র)। অর্থাৎ মাছ কিনে খাওয়াটা তখন বিজ্ঞান আবেগ বেগ অবস্থাভেদে আভিজাত্য বা অলসতার লক্ষণ ছিল। বেগ কিন্তু এখন আর সেদিন কোথায়? মাছ কিনে খাওয়াটাই এখন মুখ্য। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে এখন ঘরে বেসই কেনা হয় মাছ। মোবাইলে অর্ডার দিলেই হলো। শুনেছি পুকুরে এখন বোয়াল মাছেরও চাষ হয়, ক’দিন পর হয়তো ইলশেরও হবে। তবে প্রযুক্তি কখনই ভালবাসার স্থান দখল করতে পারেনা। যতই ফোনে, ফেসবুকে কাছের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করবার চেষ্টা করিনা কেন তাতে আসল ভালবাসা কখনই পাওয়া যায়না। কাছের মানুষের সঙ্গে সামনা সামনি কথা বলা, জড়িয়ে ধরা এগুলো কি কখনও কোন ডিভাইস দিয়ে সম্ভব? বাবা-মা এর স্পর্শ ছাড়া কি ভালবাসা হয়? পৃথিবীর কোন প্রযুক্তিই ভালবাসার জায়গা দখল করতে পারবেনা। ভালবাসা সে যে জড়িয়ে ধরার আনন্দ, সামনা সামনি কথা বলার আনন্দ তা যতো প্রযুক্তিই আসুক না কেন সেটার আবেগ কখনো মেটাতে পারবে না। আসুন না সময় করে হলেও মাসে একবার প্রিয় মানুষগুলোর মুখোমুখি হই, তাদের জড়িয়ে ধরি।
Romanized Version
বিজ্ঞান আবেগ বেগ বিংশ শতাব্দীর শেষ দিককার কথা। ধরলাম ১৯৯২-৯৩ সাল। সময়ের হিসেবে নেহাত কম নয়। আমাদের গ্রামের বাজারে হাট বসত সপ্তাহে দুই দিন। সোম আর বৃহস্পিতবার। বাবা বা দাদা বাজার থেকে ফিরলেই ব্যাগ খুলে দেখতাম কী মাছ কিনেছেন! সাধারণত: রুই, মৃগেল, ইলিশ, কালি বাউশ, চাপিলা বা কাচকি, অর্থাৎ যে মাছগুলো সচারচর ধরতে পাওয়া যায় না সেগুলোই কিনতেন।তাও চাকুরীজীবী বলেই মাছটা কিনে খেতে হতো। কারণ, দুই শ্রেনীর লোককে তখন মাছ কিনতে দেখা যেত- এক. চাকুরীজীবী, দুই. বাদাইম্যা (বাপের টাকা খাওয়া অলস পুত্র)। অর্থাৎ মাছ কিনে খাওয়াটা তখন বিজ্ঞান আবেগ বেগ অবস্থাভেদে আভিজাত্য বা অলসতার লক্ষণ ছিল। বেগ কিন্তু এখন আর সেদিন কোথায়? মাছ কিনে খাওয়াটাই এখন মুখ্য। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে এখন ঘরে বেসই কেনা হয় মাছ। মোবাইলে অর্ডার দিলেই হলো। শুনেছি পুকুরে এখন বোয়াল মাছেরও চাষ হয়, ক’দিন পর হয়তো ইলশেরও হবে। তবে প্রযুক্তি কখনই ভালবাসার স্থান দখল করতে পারেনা। যতই ফোনে, ফেসবুকে কাছের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করবার চেষ্টা করিনা কেন তাতে আসল ভালবাসা কখনই পাওয়া যায়না। কাছের মানুষের সঙ্গে সামনা সামনি কথা বলা, জড়িয়ে ধরা এগুলো কি কখনও কোন ডিভাইস দিয়ে সম্ভব? বাবা-মা এর স্পর্শ ছাড়া কি ভালবাসা হয়? পৃথিবীর কোন প্রযুক্তিই ভালবাসার জায়গা দখল করতে পারবেনা। ভালবাসা সে যে জড়িয়ে ধরার আনন্দ, সামনা সামনি কথা বলার আনন্দ তা যতো প্রযুক্তিই আসুক না কেন সেটার আবেগ কখনো মেটাতে পারবে না। আসুন না সময় করে হলেও মাসে একবার প্রিয় মানুষগুলোর মুখোমুখি হই, তাদের জড়িয়ে ধরি।Bigyan Abeg Bag Bingsh Shatabdir Sesh Dikkar Katha Dharalam 1992 93 Saala Samayer Hisebe Nehat Com Noy Amader Gramer Bajare Hat Basat Saptahe Dui Dinh Som Are Brihaspitabar Baba Ba Dada Bazaar Theke Firlei Bag Khule Dekhtam Key Mass Kinechhen Sadharanat Rui Mrigel Ilish Kali Baush Chapila Ba Kachki Arthat Je Machhgulo Sacharachar Dharate Powa Jay Na Seguloi Quintana Tao Chakurijibi Balei Machhta Kine Khete Hato Karan Dui Shrenir Lokke Takhan Mass Kinte Dekha Jet Ec Chakurijibi Dui Badaimya Baper Taka Khawa Also Putra Arthat Mass Kine Khawata Takhan Bigyan Abeg Bag Abasthabhede Abhijatya Ba Alasatar Lakshan Chhil Bag Kintu Ekhan Are Sedin Kothay Mass Kine Khawatai Ekhan Mukhya Bigyan O Prajuktir Juge Ekhan Ghare Besai Cena Hay Mass Mobaile Order Dilei Halo Shunechhi Pukure Ekhan Bwal Machherao Chash Hay Kodin Par Hayato Ilasherao Habe Tove Prajukti Kakhanai Bhalbasar Sthan Dakhal Karate Parena Jatai Fone Fesbuke Kachher Manusher Sange Jogajog Karabar Cheshta Karina Can Tate Asal Bhalobasa Kakhanai Powa Jayna Kachher Manusher Sange Samana Samni Katha Bala Jariye Dhara Egulo Ki Kakhanao Koun Device Diye Sambhab Baba MA Aare Sparsh Chhara Ki Bhalobasa Hay Prithibir Koun Prajuktii Bhalbasar Jayga Dakhal Karate Parbena Bhalobasa Say Je Jariye Dharar Ananth Samana Samni Katha Balar Ananth Ta Jato Prajuktii Asuk Na Can Setar Abeg Kakhano Metate Parbe Na Asun Na Camay Kare Haleo Mase Ekabar Priya Manushgulor Mukhomukhi Hui Tader Jariye Dhari
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

বিজ্ঞান মানুষকে দিয়েছে বেগ কেড়ে নিয়েছে আবেগ-- কথাটি ব্যাখ্যা কর। ...

বিজ্ঞান মানুষকে দিয়েছে বেগ কেড়ে নিয়েছে আবেগ -- ব্যাখা : বিজ্ঞান মানুষকে দিয়েছে বেগ কেড়ে নিয়েছে আবেগ। মানুষ মাত্রেই আবেগনির্ভর প্রাণী। আবেগই মানুষের পথ চলার ক্ষেত্রে চালিকাশক্তিরূপে কাজ করে। ফলजवाब पढ़िये
ques_icon

More Answers


বিংশ শতাব্দীর শেষ দিককার কথা। ধরলাম ১৯৯২-৯৩ সাল। সময়ের হিসেবে নেহাত কম নয়। আমাদের গ্রামের বাজারে হাট বসত সপ্তাহে দুই দিন। সোম আর বৃহস্পিতবার। বাবা বা দাদা বাজার থেকে ফিরলেই ব্যাগ খুলে দেখতাম কী মাছ কিনেছেন! সাধারণত: রুই, মৃগেল, ইলিশ, কালি বাউশ, চাপিলা বা কাচকি, অর্থাৎ যে মাছগুলো সচারচর ধরতে পাওয়া যায় না সেগুলোই কিনতেন।তাও চাকুরীজীবী বলেই মাছটা কিনে খেতে হতো। কারণ, দুই শ্রেনীর লোককে তখন মাছ কিনতে দেখা যেত- এক. চাকুরীজীবী, দুই. বাদাইম্যা (বাপের টাকা খাওয়া অলস পুত্র)। অর্থাৎ মাছ কিনে খাওয়াটা তখন অবস্থাভেদে আভিজাত্য বা অলসতার লক্ষণ ছিল। কিন্তু এখন আর সেদিন কোথায়? মাছ কিনে খাওয়াটাই এখন মুখ্য। বিজ্ঞান দিয়েছে ও প্রযুক্তির যুগে এখন ঘরে বেসই কেনা হয় মাছ। মোবাইলে অর্ডার দিলেই হলো। শুনেছি পুকুরে এখন বোয়াল মাছেরও চাষ হয়, ক’দিন পর হয়তো ইলশেরও হবে। তবে প্রযুক্তি কখনই ভালবাসার স্থান দখল করতে পারেনা। যতই ফোনে, ফেসবুকে কাছের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করবার চেষ্টা করিনা কেন তাতে আসল ভালবাসা কখনই বেগ পাওয়া যায়না। কাছের মানুষের সঙ্গে সামনা সামনি কথা বলা, জড়িয়ে ধরা এগুলো কি কখনও কোন ডিভাইস দিয়ে সম্ভব? বাবা-মা এর স্পর্শ ছাড়া কি ভালবাসা হয়? পৃথিবীর কোন প্রযুক্তিই ভালবাসার জায়গা দখল করতে পারবেনা। ভালবাসা সে যে জড়িয়ে ধরার আনন্দ, সামনা সামনি কথা বলার আনন্দ তা যতো প্রযুক্তিই কেড়েছে আসুক না কেন সেটার আবেগ কখনো মেটাতে পারবে না। আসুন না সময় করে হলেও মাসে একবার প্রিয় মানুষগুলোর মুখোমুখি হই, তাদের জড়িয়ে ধরি।
Romanized Version
বিংশ শতাব্দীর শেষ দিককার কথা। ধরলাম ১৯৯২-৯৩ সাল। সময়ের হিসেবে নেহাত কম নয়। আমাদের গ্রামের বাজারে হাট বসত সপ্তাহে দুই দিন। সোম আর বৃহস্পিতবার। বাবা বা দাদা বাজার থেকে ফিরলেই ব্যাগ খুলে দেখতাম কী মাছ কিনেছেন! সাধারণত: রুই, মৃগেল, ইলিশ, কালি বাউশ, চাপিলা বা কাচকি, অর্থাৎ যে মাছগুলো সচারচর ধরতে পাওয়া যায় না সেগুলোই কিনতেন।তাও চাকুরীজীবী বলেই মাছটা কিনে খেতে হতো। কারণ, দুই শ্রেনীর লোককে তখন মাছ কিনতে দেখা যেত- এক. চাকুরীজীবী, দুই. বাদাইম্যা (বাপের টাকা খাওয়া অলস পুত্র)। অর্থাৎ মাছ কিনে খাওয়াটা তখন অবস্থাভেদে আভিজাত্য বা অলসতার লক্ষণ ছিল। কিন্তু এখন আর সেদিন কোথায়? মাছ কিনে খাওয়াটাই এখন মুখ্য। বিজ্ঞান দিয়েছে ও প্রযুক্তির যুগে এখন ঘরে বেসই কেনা হয় মাছ। মোবাইলে অর্ডার দিলেই হলো। শুনেছি পুকুরে এখন বোয়াল মাছেরও চাষ হয়, ক’দিন পর হয়তো ইলশেরও হবে। তবে প্রযুক্তি কখনই ভালবাসার স্থান দখল করতে পারেনা। যতই ফোনে, ফেসবুকে কাছের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করবার চেষ্টা করিনা কেন তাতে আসল ভালবাসা কখনই বেগ পাওয়া যায়না। কাছের মানুষের সঙ্গে সামনা সামনি কথা বলা, জড়িয়ে ধরা এগুলো কি কখনও কোন ডিভাইস দিয়ে সম্ভব? বাবা-মা এর স্পর্শ ছাড়া কি ভালবাসা হয়? পৃথিবীর কোন প্রযুক্তিই ভালবাসার জায়গা দখল করতে পারবেনা। ভালবাসা সে যে জড়িয়ে ধরার আনন্দ, সামনা সামনি কথা বলার আনন্দ তা যতো প্রযুক্তিই কেড়েছে আসুক না কেন সেটার আবেগ কখনো মেটাতে পারবে না। আসুন না সময় করে হলেও মাসে একবার প্রিয় মানুষগুলোর মুখোমুখি হই, তাদের জড়িয়ে ধরি।Bingsh Shatabdir Sesh Dikkar Katha Dharalam 1992 93 Saala Samayer Hisebe Nehat Com Noy Amader Gramer Bajare Hat Basat Saptahe Dui Dinh Som Are Brihaspitabar Baba Ba Dada Bazaar Theke Firlei Bag Khule Dekhtam Key Mass Kinechhen Sadharanat Rui Mrigel Ilish Kali Baush Chapila Ba Kachki Arthat Je Machhgulo Sacharachar Dharate Powa Jay Na Seguloi Quintana Tao Chakurijibi Balei Machhta Kine Khete Hato Karan Dui Shrenir Lokke Takhan Mass Kinte Dekha Jet Ec Chakurijibi Dui Badaimya Baper Taka Khawa Also Putra Arthat Mass Kine Khawata Takhan Abasthabhede Abhijatya Ba Alasatar Lakshan Chhil Kintu Ekhan Are Sedin Kothay Mass Kine Khawatai Ekhan Mukhya Bigyan Diyechhe O Prajuktir Juge Ekhan Ghare Besai Cena Hay Mass Mobaile Order Dilei Halo Shunechhi Pukure Ekhan Bwal Machherao Chash Hay Kodin Par Hayato Ilasherao Habe Tove Prajukti Kakhanai Bhalbasar Sthan Dakhal Karate Parena Jatai Fone Fesbuke Kachher Manusher Sange Jogajog Karabar Cheshta Karina Can Tate Asal Bhalobasa Kakhanai Bag Powa Jayna Kachher Manusher Sange Samana Samni Katha Bala Jariye Dhara Egulo Ki Kakhanao Koun Device Diye Sambhab Baba MA Aare Sparsh Chhara Ki Bhalobasa Hay Prithibir Koun Prajuktii Bhalbasar Jayga Dakhal Karate Parbena Bhalobasa Say Je Jariye Dharar Ananth Samana Samni Katha Balar Ananth Ta Jato Prajuktii Kerechhe Asuk Na Can Setar Abeg Kakhano Metate Parbe Na Asun Na Camay Kare Haleo Mase Ekabar Priya Manushgulor Mukhomukhi Hui Tader Jariye Dhari
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bigyan Diyechhe Bag Kerechhe Abeg,Science Has Caught The Emotions Emotions,


vokalandroid