ফেসবুকের বিরুদ্ধে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ সম্পর্কে আলোচনা কর? ...

সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুকের বিরুদ্ধে এবার শিশুদের সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে বলা হয়েছে, শিশুরা ফেসবুক প্লাটফর্মে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে মাত্রাতিরিক্ত অর্থ খরচ করলেও ব্যবস্থা নেয়া হয় না। রাজস্ব বাড়ানোর জন্য জেনেশুনে এ প্রতারণা করে এসেছে ফেসবুক। ‘সেন্টার ফর ইনভেস্টিগেটিভ রিপোর্টিংয়ের কাছে পৌঁছানো কয়েক বছরের পুরনো নথিতে এমন তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত আদালতের নথি অনুযায়ী, শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বড় অংকের অর্থ খরচ করে ফেলে আর এ বিষয়ে জেনেও চুপ থাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ২০১২ সালে এমন একটি অভিযোগে ফেসবুকের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়। ফেসবুকের এমন নিশ্চুপ থাকাকে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণা’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। যদিও নথির তথ্য অনুযায়ী, যেসব শিশু অত্যধিক ব্যয় করছে, ফেসবুকের কর্মকর্তারা তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আলোচনায় বসেন। একাধিকবার আলোচনায় বসেও অর্থ ফিরিয়ে দেয়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেননি তারা। জানা যায়, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের প্লাটফর্মে তৃতীয় পক্ষের বিভিন্ন গেমের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে আসছে। এসব বিজ্ঞাপনের সঙ্গেই দেয়া থাকে গেমের অনলাইন লিংক। সাধারণত কম বয়সী শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলে সময় কাটায়। পেইড গেম খেলার সময় না বুঝেই অনেকে মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড থেকে অর্থ হাতিয়ে খরচ করে। বিভিন্ন অনলাইন গেম খেলতে আনুষঙ্গিক কিছু সরঞ্জাম কিনতেও অর্থ হাতিয়ে ব্যয় করতে হয়। এ ধরনের ঘটনা বাড়তে থাকলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। প্রতিষ্ঠানের রাজস্ব কমে যাবে বলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ গুরুত্বপূর্ণ হলেও বিষয়টি এড়িয়ে যায় বলেও অভিযোগ উঠেছে। বিবৃতিতে শুক্রবার ফেসবুক জানিয়েছে, কর্তৃপক্ষ তাদের ব্যবসা নীতি নিয়মিত পর্যালোচনা করে। বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণার অভিযোগ নিষ্পত্তিতে নীতিমালা পরিবর্তনে সম্মত হয়ে অর্থ ফেরত দেয়ার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছিল। পাশাপাশি যেসব শিশু ফেসবুকে গেম খেলার সময় মাত্রাতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করেছে, তাদের অভিভাবকদের ক্ষতিপূরণ দিতে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছিল। এর আগে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা তথ্য কেলেঙ্কারি প্রকাশের পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিল ফেসবুক। ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার একটি অ্যাপ নিজেদের সাইটে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছিল ফেসবুক। ওই অ্যাপের মাধ্যমে প্রায় নয় কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য হাতিয়ে নেয় ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা। বিপুলসংখ্যক ফেসবুক ব্যবহারকারীর এসব তথ্য গত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্প শিবিরের পক্ষে ব্যবহার করা হয়। একাধিক তথ্য কেলেঙ্কারি প্রকাশ পাওয়ায় গত বছর পুরোটাই ক্ষমা চেয়ে কাটিয়েছেন ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ। ফেসবুকের বিরুদ্ধে শিশুদের সঙ্গে প্রতারণার আরেকটি অভিযোগ নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জেনেবুঝে তাদের প্ল্যাটফর্মে শিশুদের গেম খেলার নামে অর্থ হাতিয়ে প্রতারণা করে। তাদের মা-বাবার ক্রেডিট কার্ডের অর্থ খরচ হলেও ব্যবস্থা নেয় না। কম বয়সী শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলে সময় কাটায়। অনেক সময় বাবা–মায়ের ক্রেডিট কার্ড থেকে ব্যাপক খরচ করে ফেলে। গেমের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অনেক কিছু কেনে। একই ঘটনা বারবার জানা সত্ত্বেও ফেসবুকের পক্ষ থেকে এ নিয়ে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বছরের পর বছর ধরে এ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণা’ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। তারা বুঝতে পেরেছে, এ ধরনের ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নিতে গেলে তাদের মুনাফা কমে যাবে। তাই এ ধরনের প্রতারণায় ফেসবুকের অনুমতি রয়েছে। সম্প্রতি আদালত থেকে প্রকাশিত নথিপত্রে এ তথ্য পাওয়া যায় বলে দাবি করেছে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট গিজমোডো। ২০১৬ সালের ফেডারেল কোর্টে নিষ্পত্তি হওয়া একটি মামলার নথিপত্র গত বৃহস্পতিবার উন্মুক্ত হয়। ক্যালিফোর্নিয়ার সান হোসের আদালতে করা ওই মামলায় ফেসবুকের বিরুদ্ধে শিশু-কিশোরদের ভাঙিয়ে অর্থ আয় করার অভিযোগ আনা হয়। শিশুদের শত শত টাকা অ্যাংরি বার্ডস বা অন্যান্য গেম খেলার জন্য খরচ করার অনুমতি দেওয়া হয়। এতে দেখা যায়, মা-বাবার টাকা যাতে বেশি খরচ না হয়, সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবলেও শেষ পর্যন্ত মুনাফা কমে যাওয়ার ভয়ে সে পথে হাঁটেনি ফেসবুক। গতকাল শুক্রবার এক বিবৃতিতে ফেসবুক বলেছে, ‘আমরা নিয়মিত আমাদের চর্চাগুলো পরীক্ষা করি। ২০১৬ সালে আমাদের নীতিমালা পরিবর্তনের সম্মত হয়ে অর্থ ফেরত দেওয়ার সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপর জন্য অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছিল।’ ওই মামলার নথিপত্র এমন সময়ে প্রকাশিত হলো, যখন কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারি থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে ফেসবুক। গত বছরে যুক্তরাজ্যের নির্বাচনী পরামর্শক কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে ফেসবুক থেকে তথ্য নিয়ে নির্বাচনী কাজে লাগানোর বিষয়টি ফাঁস হয়, যা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারি হিসেবে পরিচিতি হয়। সম্প্রতি ফেসবুকের ব্যবসায়িক মডেল নিয়ে কিছু প্রশ্ন উঠছে। ওই প্রশ্নগুলোর পরিপ্রেক্ষিতে তাদের কার্যক্রম পরিচালনার মূলনীতিগুলো ব্যাখ্যা করেছেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ।
Romanized Version
সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুকের বিরুদ্ধে এবার শিশুদের সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে বলা হয়েছে, শিশুরা ফেসবুক প্লাটফর্মে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে মাত্রাতিরিক্ত অর্থ খরচ করলেও ব্যবস্থা নেয়া হয় না। রাজস্ব বাড়ানোর জন্য জেনেশুনে এ প্রতারণা করে এসেছে ফেসবুক। ‘সেন্টার ফর ইনভেস্টিগেটিভ রিপোর্টিংয়ের কাছে পৌঁছানো কয়েক বছরের পুরনো নথিতে এমন তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত আদালতের নথি অনুযায়ী, শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বড় অংকের অর্থ খরচ করে ফেলে আর এ বিষয়ে জেনেও চুপ থাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ২০১২ সালে এমন একটি অভিযোগে ফেসবুকের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়। ফেসবুকের এমন নিশ্চুপ থাকাকে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণা’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। যদিও নথির তথ্য অনুযায়ী, যেসব শিশু অত্যধিক ব্যয় করছে, ফেসবুকের কর্মকর্তারা তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আলোচনায় বসেন। একাধিকবার আলোচনায় বসেও অর্থ ফিরিয়ে দেয়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেননি তারা। জানা যায়, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের প্লাটফর্মে তৃতীয় পক্ষের বিভিন্ন গেমের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে আসছে। এসব বিজ্ঞাপনের সঙ্গেই দেয়া থাকে গেমের অনলাইন লিংক। সাধারণত কম বয়সী শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলে সময় কাটায়। পেইড গেম খেলার সময় না বুঝেই অনেকে মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড থেকে অর্থ হাতিয়ে খরচ করে। বিভিন্ন অনলাইন গেম খেলতে আনুষঙ্গিক কিছু সরঞ্জাম কিনতেও অর্থ হাতিয়ে ব্যয় করতে হয়। এ ধরনের ঘটনা বাড়তে থাকলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। প্রতিষ্ঠানের রাজস্ব কমে যাবে বলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ গুরুত্বপূর্ণ হলেও বিষয়টি এড়িয়ে যায় বলেও অভিযোগ উঠেছে। বিবৃতিতে শুক্রবার ফেসবুক জানিয়েছে, কর্তৃপক্ষ তাদের ব্যবসা নীতি নিয়মিত পর্যালোচনা করে। বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণার অভিযোগ নিষ্পত্তিতে নীতিমালা পরিবর্তনে সম্মত হয়ে অর্থ ফেরত দেয়ার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছিল। পাশাপাশি যেসব শিশু ফেসবুকে গেম খেলার সময় মাত্রাতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করেছে, তাদের অভিভাবকদের ক্ষতিপূরণ দিতে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছিল। এর আগে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা তথ্য কেলেঙ্কারি প্রকাশের পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিল ফেসবুক। ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার একটি অ্যাপ নিজেদের সাইটে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছিল ফেসবুক। ওই অ্যাপের মাধ্যমে প্রায় নয় কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য হাতিয়ে নেয় ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা। বিপুলসংখ্যক ফেসবুক ব্যবহারকারীর এসব তথ্য গত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্প শিবিরের পক্ষে ব্যবহার করা হয়। একাধিক তথ্য কেলেঙ্কারি প্রকাশ পাওয়ায় গত বছর পুরোটাই ক্ষমা চেয়ে কাটিয়েছেন ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ। ফেসবুকের বিরুদ্ধে শিশুদের সঙ্গে প্রতারণার আরেকটি অভিযোগ নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জেনেবুঝে তাদের প্ল্যাটফর্মে শিশুদের গেম খেলার নামে অর্থ হাতিয়ে প্রতারণা করে। তাদের মা-বাবার ক্রেডিট কার্ডের অর্থ খরচ হলেও ব্যবস্থা নেয় না। কম বয়সী শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলে সময় কাটায়। অনেক সময় বাবা–মায়ের ক্রেডিট কার্ড থেকে ব্যাপক খরচ করে ফেলে। গেমের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অনেক কিছু কেনে। একই ঘটনা বারবার জানা সত্ত্বেও ফেসবুকের পক্ষ থেকে এ নিয়ে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বছরের পর বছর ধরে এ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণা’ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। তারা বুঝতে পেরেছে, এ ধরনের ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নিতে গেলে তাদের মুনাফা কমে যাবে। তাই এ ধরনের প্রতারণায় ফেসবুকের অনুমতি রয়েছে। সম্প্রতি আদালত থেকে প্রকাশিত নথিপত্রে এ তথ্য পাওয়া যায় বলে দাবি করেছে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট গিজমোডো। ২০১৬ সালের ফেডারেল কোর্টে নিষ্পত্তি হওয়া একটি মামলার নথিপত্র গত বৃহস্পতিবার উন্মুক্ত হয়। ক্যালিফোর্নিয়ার সান হোসের আদালতে করা ওই মামলায় ফেসবুকের বিরুদ্ধে শিশু-কিশোরদের ভাঙিয়ে অর্থ আয় করার অভিযোগ আনা হয়। শিশুদের শত শত টাকা অ্যাংরি বার্ডস বা অন্যান্য গেম খেলার জন্য খরচ করার অনুমতি দেওয়া হয়। এতে দেখা যায়, মা-বাবার টাকা যাতে বেশি খরচ না হয়, সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবলেও শেষ পর্যন্ত মুনাফা কমে যাওয়ার ভয়ে সে পথে হাঁটেনি ফেসবুক। গতকাল শুক্রবার এক বিবৃতিতে ফেসবুক বলেছে, ‘আমরা নিয়মিত আমাদের চর্চাগুলো পরীক্ষা করি। ২০১৬ সালে আমাদের নীতিমালা পরিবর্তনের সম্মত হয়ে অর্থ ফেরত দেওয়ার সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপর জন্য অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছিল।’ ওই মামলার নথিপত্র এমন সময়ে প্রকাশিত হলো, যখন কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারি থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে ফেসবুক। গত বছরে যুক্তরাজ্যের নির্বাচনী পরামর্শক কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে ফেসবুক থেকে তথ্য নিয়ে নির্বাচনী কাজে লাগানোর বিষয়টি ফাঁস হয়, যা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারি হিসেবে পরিচিতি হয়। সম্প্রতি ফেসবুকের ব্যবসায়িক মডেল নিয়ে কিছু প্রশ্ন উঠছে। ওই প্রশ্নগুলোর পরিপ্রেক্ষিতে তাদের কার্যক্রম পরিচালনার মূলনীতিগুলো ব্যাখ্যা করেছেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ। Sosyal Media Jayanta Fesbuker Biruddhe Ebar Shishuder Sange Pratarnar Madhyame Earth Hatiye Neyar Abhijog Uthechhe Abhijoge Bala Hayechhe Shishura Facebook Platafarme Game Khelar Camay Na Bujhei MA Babar Credit Card Byabahar Kare Matratirikta Earth Kharach Karaleo Byabastha Neya Hya Na Rajaswa Baranor Janya Jeneshune A Pratarana Kare Esechhe Facebook ‘sentar For Investigative Riportingyer Kachhe Paunchhano Kayek Bachharer Purno Nathite Eman Tathya Prakash Peyechhe Brihaspatibar Prakashit Adalter Nathi Anujayi Shishura Fesbuke Game Khelar Camay Na Bujhei MA Babar Credit Card Byabahar Kare Bar Anker Earth Kharach Kare Fele Are A Vise Jeneo Chup Thake Facebook Kartripaksh 2012 Sale Eman Ekati Abhijoge Fesbuker Biruddhe Ekati Mamla Hya Fesbuker Eman Nishchup Thakake ‘bandhutbapurna Pratarnao Ble Ullekh Kara Hayechhe Jadio Nathir Tathya Anujayi Jesab Sishu Atyadhik Byay Karachhe Fesbuker Karmakartara Tader Vise Byabastha Nite Alochnay Besan Ekadhikbar Alochnay Baseo Earth Firiye Their Vise Kono Siddhante Paunchhate Parenani Tara Jaana Jay Facebook Kartripaksh Tader Platafarme Tritiya Paksher Bibhinna Gemer Bigyapan Pradarshan Kare Ashche Esab Bigyapaner Sangei Dea Thake Gemer Online Link Sadharanat Com Bayasi Shishura Fesbuke Game Khele Camay Katay Paid Game Khelar Camay Na Bujhei Aneke MA Babar Credit Card Theke Earth Hatiye Kharach Kare Bibhinna Online Game Khelte Anushangik Kichhu Saranjam Kinteo Earth Hatiye Byay Karate Hya A Dharaner Ghatana Barte Thakleo Kono Byabastha Neya Hayani Pratishthaner Rajaswa Kame Jabe Ble Facebook Kartripaksh Gurutbapurna Haleo Bishayati Eriye Jay Baleo Abhijog Uthechhe Bibritite Shukrabar Facebook Janiyechhe Kartripaksh Tader Byabasa Niti Niymit Parjalochna Kare Bandhutbapurna Pratarnar Abhijog Nishpattite Nitimala Paribartane Samut Huye Earth Ferat Their Padakshep Neya Hayechhil Pashapashi Jesab Sishu Fesbuke Game Khelar Camay Matratirikta Earth Byay Karechhe Tader Abhibhabakader Xatipuran Dite Earth Baradda Kara Hayechhil Aare Age Kyamabrij Analitika Tathya Kelenkari Prakasher Par Tibra Samalochnar Mukhe Presil Facebook Kyamabrij Analitikar Ekati App Nijeder Saite Byabaharer Anumodan Diyechhil Facebook We Aper Madhyame Pray Noy Koti Facebook Byabaharkarir Tathya Hatiye Ney Kyamabrij Analitika Bipulasankhyak Facebook Byabaharkarir Esab Tathya Gata Markin Presidenta Nirbachane Trump Shibirer Pakshe Byabahar Kara Hya Ekadhik Tathya Kelenkari Prakash Paway Gata Bachhar Purotai Xama Cheye Katiyechhen Fesbuker Sahapratishthata O Pradhan Nirbahi Karmakarta CEO March Jakarbarg Fesbuker Biruddhe Shishuder Sange Pratarnar Arekati Abhijog Niye Shorgol Shuru Hayechhe Abhijog Uthechhe Facebook Kartripaksh Jenebujhe Tader Plyatafarme Shishuder Game Khelar Name Earth Hatiye Pratarana Kare Tader MA Babar Credit Karder Earth Kharach Haleo Byabastha Ney Na Com Bayasi Shishura Fesbuke Game Khele Camay Katay Anek Camay Baba–mayer Credit Card Theke Byapak Kharach Kare Fele Gemer Sange Sangshlishta Anek Kichhu Kane Ekai Ghatana Barbar Jaana Sattbeo Fesbuker Pax Theke A Niye Kono Byabastha Newa Hayani Bachharer Par Bachhar Dhare A ‘bandhutbapurna Pratarnao Kare Jachchhe Pratishthanati Tara Bujhte Perechhe A Dharaner Xetre Byabastha Nite Gele Tader Munafa Kame Jabe Tai A Dharaner Pratarnay Fesbuker Anumati Rayechhe Samprati Adalat Theke Prakashit Nathipatre A Tathya Powa Jay Ble Dabi Karechhe Prajuktibishayak Website Gijmodo 2016 Saler Federal Korte Nishpatti Hwa Ekati Mamlar Nathipatra Gata Brihaspatibar Unmukt Hya Kyaliforniyar Sun Hoser Adalate Kara We Mamlay Fesbuker Biruddhe Sishu Kishorder Bhangiye Earth Ai Karar Abhijog Ana Hya Shishuder Shat Shat Taka Angry Birds Ba Anyanya Game Khelar Janya Kharach Karar Anumati Dewa Hya Ete Dekha Jay MA Babar Taka Jate Bedshee Kharach Na Hya Say Vise Padakshep Newar Katha Bhableo Sesh Parjanta Munafa Kame Jawar Vue Say Pathe Hanteni Facebook Gatakal Shukrabar Ec Bibritite Facebook Balechhe ‘amara Niymit Amader Charchagulo Pariksha Kari 2016 Sale Amader Nitimala Paribartaner Samut Huye Earth Ferat Dewar Sunirdishta Padakshepar Janya Earth Baradda Kara Hayechhil ’ We Mamlar Nathipatra Eman Some Prakashit Holo Jakhan Kemabrij Analitika Kelenkari Theke Ghure Danranor Cheshta Karachhe Facebook Gata Bachhare Juktarajyer Nirbachani Paramarshak Kemabrij Analitikar Biruddhe Facebook Theke Tathya Niye Nirbachani Kaje Laganor Bishayati Phas Hya Ja Kemabrij Analitika Kelenkari Hisebe Parichiti Hya Samprati Fesbuker Byabasayik Model Niye Kichhu Prashna Uthachhe We Prashnagulor Pariprekshite Tader Karjakram Parichalnar Mulnitigulo Byakhya Karechhen Fesbuker Pradhan Nirbahi March Jakarbarg
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

দিনাজপুরের পার্বতীপুর প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ টি কী ? ...

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার জ্ঞানাঙ্কুর পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়মের , দুর্নীতি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ তুলেছেন ব্যবস্থাপনা কমিটির সাত সদস্য। অনিয়মের অভিযোগ এর প্রতিजवाब पढ़िये
ques_icon

ভারতীয় সেনাদের হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করেছে কেন পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ? ...

ভারতের আটক বৈমানিক উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে ছেড়ে দেয়ার ১২ ঘন্টা না পেরোতেই পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের বিরুদ্ধে হত্যা ষড়যন্ত্র এর অভিযোগ এনেছে ভারত। আইএসআই ও পাকিস্তানের সেনাবাহিনী जवाब पढ़िये
ques_icon

অর্থ মন্ত্রণালয় অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ সম্পর্কে আলোচনা করো । ...

অর্থ মন্ত্রণালয় অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ সম্পর্কে আলোচনা করা হল , অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ ও অধীনস্থ অফিসসমূহের ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের অনুন্নয়ন বাজেট বরাদ্দ।অর্থ মন্ত্রণালয়ের অধীনে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগে जवाब पढ़िये
ques_icon

More Answers


অর্থ হাতিয়ে সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুকের বিরুদ্ধে এবার শিশুদের সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে বলা হয়েছে, শিশুরা ফেসবুক প্লাটফর্মে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে। মাত্রা তিরিক্ত অর্থ খরচ করলেও ব্যবস্থা নেয়া হয় না।রাজস্ব বাড়ানোর জন্য জেনেশুনে এ প্রতারণা করে এসেছে ফেসবুক। ‘সেন্টার ফর ইনভেস্টিগেটিভ রিপোর্টিংয়ের কাছে পৌঁছানো কয়েক বছরের পুরনো নথিতে এমন তথ্য প্রকাশ পেয়েছে।বৃহস্পতিবার প্রকাশিত আদালতের নথি অনুযায়ী, শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বড় অংকের অর্থ খরচ করে ফেলে আর এ বিষয়ে জেনেও চুপ থাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। অর্থ হাতিয়ে ২০১২ সালে এমন একটি অভিযোগে ফেসবুকের বিরুদ্ধে অর্থ হাতিয়ে একটি মামলা হয়। ফেসবুকের এমন নিশ্চুপ থাকাকে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণা’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে অর্থ হাতিয়ে ।
Romanized Version
অর্থ হাতিয়ে সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুকের বিরুদ্ধে এবার শিশুদের সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে বলা হয়েছে, শিশুরা ফেসবুক প্লাটফর্মে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে। মাত্রা তিরিক্ত অর্থ খরচ করলেও ব্যবস্থা নেয়া হয় না।রাজস্ব বাড়ানোর জন্য জেনেশুনে এ প্রতারণা করে এসেছে ফেসবুক। ‘সেন্টার ফর ইনভেস্টিগেটিভ রিপোর্টিংয়ের কাছে পৌঁছানো কয়েক বছরের পুরনো নথিতে এমন তথ্য প্রকাশ পেয়েছে।বৃহস্পতিবার প্রকাশিত আদালতের নথি অনুযায়ী, শিশুরা ফেসবুকে গেম খেলার সময় না বুঝেই মা-বাবার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বড় অংকের অর্থ খরচ করে ফেলে আর এ বিষয়ে জেনেও চুপ থাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। অর্থ হাতিয়ে ২০১২ সালে এমন একটি অভিযোগে ফেসবুকের বিরুদ্ধে অর্থ হাতিয়ে একটি মামলা হয়। ফেসবুকের এমন নিশ্চুপ থাকাকে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ প্রতারণা’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে অর্থ হাতিয়ে ।Earth Hatiye Sosyal Media Jayanta Fesbuker Biruddhe Ebar Shishuder Sange Pratarnar Madhyame Earth Hatiye Neyar Abhijog Uthechhe Abhijoge Bala Hayechhe Shishura Facebook Platafarme Game Khelar Camay Na Bujhei MA Babar Credit Card Byabahar Kare Maatra Tirikta Earth Kharach Karaleo Byabastha Neya Hya Na Rajaswa Baranor Janya Jeneshune A Pratarana Kare Esechhe Facebook ‘sentar For Investigative Riportingyer Kachhe Paunchhano Kayek Bachharer Purno Nathite Eman Tathya Prakash Peyechhe Brihaspatibar Prakashit Adalter Nathi Anujayi Shishura Fesbuke Game Khelar Camay Na Bujhei MA Babar Credit Card Byabahar Kare Bar Anker Earth Kharach Kare Fele Are A Vise Jeneo Chup Thake Facebook Kartripaksh Earth Hatiye 2012 Sale Eman Ekati Abhijoge Fesbuker Biruddhe Earth Hatiye Ekati Mamla Hya Fesbuker Eman Nishchup Thakake ‘bandhutbapurna Pratarnao Ble Ullekh Kara Hayechhe Earth Hatiye
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Fesbuker Biruddhe Ortho Hatiye Neyar Abhijog Somporke Alochana Kor ,Discuss The Allegation Of Taking Money Against Facebook?,


vokalandroid