বিচার নিয়ে হাদিস ...

বিচার হাদিস মানুষ সৃষ্টি লগ্ন থেকেই কম বেশি অপরাধের সাথে পরিচিত। এ সুন্দর পৃথিবীতে মানুষ সুন্দর ও সুশৃংখল ভাবে জীবন যাপন করবে এটাই ছিল রবের কাম্য। হাদিস কিন্তু না, তা হয়নি, ইবলিস তার দোসরদের দ্বারা নানা ভাবে মানুষকে ধোকা প্রবঞ্চনার মাধ্যমে অপরাধ সংঘটিত করতে করেছে প্রলুব্ধ। হাদিস বাআর তখন থেকেই পৃথিবীতে শুরু হয়েছে অপরাধ ও অপকর্ম,মানুষ যে অপরাধ প্রবণ হবেন এটা মানব সৃষ্টির ইতিহাস থেকেই প্রমাণিত। আদম আলাইহিস সালামকে সৃষ্টির সময় তাঁকে সৃষ্টির প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বলা হয়ে ছিল, বনী আদমের মাঝে এমন কতগুলো লোক হবে যারা পৃথিবীতে ঝগড়া বিবাদ,কাটাকাটি ফাটাফাটি,মারামারি হানাহানি,খুন খারাবি করবে এবং একে অপরের প্রতি হিংসা পরায়ণ হবে,তিনি তাদের মাঝে ন্যায় ও ইনসাফের সাথে সুবিচার করবেন এবং আমার দেয়া বিধি বিধান তথা আইন কানুন বাস্তবায়ন করবেন। মানুষ সৃষ্টিগত ভাবে সমান নয়,কেউ শক্তিশালী আবার কেউ দুর্বল। আর ধনী গরিবের ব্যবধান তো রয়েছেই। ধনে মালে বিত্ত বৈভবে কেউ হয়েছেন মালিক, আর যাদের ধন মাল কিছুই নেই তারা খেটে খাওয়া শ্রমিক। যুগ যুগ ধরে চলে আসা ধনী গরিবের বৈষম্য গরিবকে করেছে অধিকার বঞ্চিত। শক্তিশালীদের পেশি শক্তি দুর্বলদেরকে করেছে সর্বশান্ত ও নির্যাতিত। মাজলুমদের আর্তনাদ আর অধিকার বঞ্চিতদের ফরিয়াদ আল্লাহর আরশকে ভারি করে তুলেছিল,তাই আল্লাহ তা’য়ালা তাদেরকে এ যুলুম অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচাতে এবং অধিকার হারাদের অধিকার আদায় করে দুনিয়ায় ন্যায় সত্য ইনসাফ কায়েম করার জন্য যুগে যুগে নাবী রাসূলদের পাঠিয়েছেন। তাঁরা প্রকৃতপক্ষেই ছিলেন,ন্যায় অন্যায়ের ফায়সালাকারী,অনাচার অবিচারকে প্রতিহতকারী,অবৈধ অপকর্ম ও পাপ কাজে বাধাদান কারী। তাঁরা মতবিরোধের মিমাংসা করতেন, ঝগড়া বিবাদ মিটিয়ে দিতেন,অত্যাচারী হতে অত্যাচারীত ব্যক্তির বদলা প্রতিশোধ নিতেন, আল্লাহর পক্ষ থেকে নির্ধারিত অপরাধের শাস্তি কায়েম করতেন,অন্যায় অপকর্ম ও পাপ কাজ থেকে জনসাধারণ কে সতর্ক করতেন। নাবী রাসূলদের আগমনের ধারাবাহিকতার পরিসমাপ্তি ঘটেছে। কিন্তু এ সকল কাজের দায়িত্ব ও যিম্মাদারী পৃথিবীতে রয়েই গেছে। তাই যদি অপরাধ করার পর বিচারের মাধ্যমে অপরাধীকে শাস্তি না দেয়া যায় তা হলে অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পাবে, অধিকার বঞ্চিতদের অধিকার ফিরিয়ে না দেয়া যায় তাহলে মানুষের অধিকার ভুলন্ঠিত হবে,অত্যাচারী হতে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে অত্যাচারীত ব্যক্তির বদলা বা প্রতিশোধ ন্যায় বিচারের মাধ্যমে নিশ্চিত করা না যায় তাহলে সমগ্র পৃথিবী অপরাধের স্বর্গ্যােরাজ্যে পরিণত হত কোথাও ন্যায় বিচার ও ইনসাফ খুজে পাওয়া যেত না । পৃথিবীর শান্তি বিঘিœত হত স্থিতিশীলতা নষ্ট হত। সর্বত্রই বিরাজ করত মাইট ইজ রাইট। সুতরাং ভুলে গেলে চলবে না যে ন্যায় বিচার বিশ্ব শান্তির জামিন।
Romanized Version
বিচার হাদিস মানুষ সৃষ্টি লগ্ন থেকেই কম বেশি অপরাধের সাথে পরিচিত। এ সুন্দর পৃথিবীতে মানুষ সুন্দর ও সুশৃংখল ভাবে জীবন যাপন করবে এটাই ছিল রবের কাম্য। হাদিস কিন্তু না, তা হয়নি, ইবলিস তার দোসরদের দ্বারা নানা ভাবে মানুষকে ধোকা প্রবঞ্চনার মাধ্যমে অপরাধ সংঘটিত করতে করেছে প্রলুব্ধ। হাদিস বাআর তখন থেকেই পৃথিবীতে শুরু হয়েছে অপরাধ ও অপকর্ম,মানুষ যে অপরাধ প্রবণ হবেন এটা মানব সৃষ্টির ইতিহাস থেকেই প্রমাণিত। আদম আলাইহিস সালামকে সৃষ্টির সময় তাঁকে সৃষ্টির প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বলা হয়ে ছিল, বনী আদমের মাঝে এমন কতগুলো লোক হবে যারা পৃথিবীতে ঝগড়া বিবাদ,কাটাকাটি ফাটাফাটি,মারামারি হানাহানি,খুন খারাবি করবে এবং একে অপরের প্রতি হিংসা পরায়ণ হবে,তিনি তাদের মাঝে ন্যায় ও ইনসাফের সাথে সুবিচার করবেন এবং আমার দেয়া বিধি বিধান তথা আইন কানুন বাস্তবায়ন করবেন। মানুষ সৃষ্টিগত ভাবে সমান নয়,কেউ শক্তিশালী আবার কেউ দুর্বল। আর ধনী গরিবের ব্যবধান তো রয়েছেই। ধনে মালে বিত্ত বৈভবে কেউ হয়েছেন মালিক, আর যাদের ধন মাল কিছুই নেই তারা খেটে খাওয়া শ্রমিক। যুগ যুগ ধরে চলে আসা ধনী গরিবের বৈষম্য গরিবকে করেছে অধিকার বঞ্চিত। শক্তিশালীদের পেশি শক্তি দুর্বলদেরকে করেছে সর্বশান্ত ও নির্যাতিত। মাজলুমদের আর্তনাদ আর অধিকার বঞ্চিতদের ফরিয়াদ আল্লাহর আরশকে ভারি করে তুলেছিল,তাই আল্লাহ তা’য়ালা তাদেরকে এ যুলুম অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচাতে এবং অধিকার হারাদের অধিকার আদায় করে দুনিয়ায় ন্যায় সত্য ইনসাফ কায়েম করার জন্য যুগে যুগে নাবী রাসূলদের পাঠিয়েছেন। তাঁরা প্রকৃতপক্ষেই ছিলেন,ন্যায় অন্যায়ের ফায়সালাকারী,অনাচার অবিচারকে প্রতিহতকারী,অবৈধ অপকর্ম ও পাপ কাজে বাধাদান কারী। তাঁরা মতবিরোধের মিমাংসা করতেন, ঝগড়া বিবাদ মিটিয়ে দিতেন,অত্যাচারী হতে অত্যাচারীত ব্যক্তির বদলা প্রতিশোধ নিতেন, আল্লাহর পক্ষ থেকে নির্ধারিত অপরাধের শাস্তি কায়েম করতেন,অন্যায় অপকর্ম ও পাপ কাজ থেকে জনসাধারণ কে সতর্ক করতেন। নাবী রাসূলদের আগমনের ধারাবাহিকতার পরিসমাপ্তি ঘটেছে। কিন্তু এ সকল কাজের দায়িত্ব ও যিম্মাদারী পৃথিবীতে রয়েই গেছে। তাই যদি অপরাধ করার পর বিচারের মাধ্যমে অপরাধীকে শাস্তি না দেয়া যায় তা হলে অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পাবে, অধিকার বঞ্চিতদের অধিকার ফিরিয়ে না দেয়া যায় তাহলে মানুষের অধিকার ভুলন্ঠিত হবে,অত্যাচারী হতে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে অত্যাচারীত ব্যক্তির বদলা বা প্রতিশোধ ন্যায় বিচারের মাধ্যমে নিশ্চিত করা না যায় তাহলে সমগ্র পৃথিবী অপরাধের স্বর্গ্যােরাজ্যে পরিণত হত কোথাও ন্যায় বিচার ও ইনসাফ খুজে পাওয়া যেত না । পৃথিবীর শান্তি বিঘিœত হত স্থিতিশীলতা নষ্ট হত। সর্বত্রই বিরাজ করত মাইট ইজ রাইট। সুতরাং ভুলে গেলে চলবে না যে ন্যায় বিচার বিশ্ব শান্তির জামিন।Bichar Hadis Manus Srishti Lagna Thekei Com Bedshee Aparadher Sathe Parichit A Sundar Prithibite Manus Sundar O Sushrinkhal Bhabe Jeevan Japan Karabe Etai Chhil Raber Kamya Hadis Kintu Na Ta Hayani Ibalis Taur Dosarader Dwara Nana Bhabe Manushake Dhoka Prabanchanar Madhyame Aparadh Sanghatit Karate Karechhe Pralubdha Hadis Baar Takhan Thekei Prithibite Shuru Hayechhe Aparadh O Apakarma Manus Je Aparadh Praban Haben Etah Menabe Srishtir Itihas Thekei Pramanit Adam Alaihis Salamake Srishtir Camay Tanke Srishtir Prayojniyta Samparke Bala Huye Chhil Bani Adamer Majhe Eman Katagulo Loka Habe Jara Prithibite Jhagara Bibad Katakati Fatafati Maramari Hanahani Khoon Kharabi Karabe Evan Aka Aparer Prati Hinsa Parayan Habe Tini Tader Majhe Nyay O Inasafer Sathe Subichar Karaben Evan Amar Dea Bidhi Bidhan Tatha Ain Kanun Bastabayan Karaben Manus Srishtigat Bhabe Saman Noy Keu Shaktishali Abar Keu Durbal Are Dhoni Gariber Byabadhan Toh Rayechhei Dhane Mule Bitta Baibhbe Keu Hayechhen Malik Are Jader Dhan Mala Kichhui Nei Tara Khete Khawa Shramik Jug Jug Dhare Chale Asa Dhoni Gariber Baishamya Garibake Karechhe Adhikar Banchit Shaktishalider Peshi Shakti Durbaladerke Karechhe Sarbashanta O Nirjatit Majlumder Artanad Are Adhikar Banchitader Fariyad Allahar Arashake Vary Kare Tulechhil Tai Allah Taoyala Taderake A Julum Atyacharer Haut Theke Banchate Evan Adhikar Harader Adhikar Aday Kare Duniyay Nyay SATHYA Inasaf Kayem Karar Janya Juge Juge Nabi Rasulder Pathiyechhen Tanra Prakritapakshei Chhilen Nyay Anyayer Faysalakari Anachar Abicharke Pratihatakari Abaidh Apakarma O Papa Kaje Badhadan Kurri Tanra Matabirodher Mimansa Karaten Jhagara Bibad Mitiye Diten Atyachari Hate Atyacharit Byaktir Badala Pratishodh Niten Allahar Pax Theke Nirdharit Aparadher Shasti Kayem Karaten Anyay Apakarma O Papa Kaj Theke Janasadharan K Satark Karaten Nabi Rasulder Agamaner Dharabahiktar Parismapti Ghatechhe Kintu A Sakal Kajer Dayitba O Jimmadari Prithibite Rayei Gechhe Tai Jodi Aparadh Karar Par Bicharer Madhyame Aparadhike Shasti Na Dea Jay Ta Hale Aparadh Prabanata Briddhi Pabe Adhikar Banchitader Adhikar Firiye Na Dea Jay Tahle Manusher Adhikar Bhulanthit Habe Atyachari Hate Manbadhikar Pratishthar Madhyame Atyacharit Byaktir Badala Ba Pratishodh Nyay Bicharer Madhyame Nishchit Kara Na Jay Tahle Samagra Prithibi Aparadher Swargyaerajye Parinat Hato Kothao Nyay Bichar O Inasaf Khuje Powa Jet Na Prithibir Shanti Bighiœt Hato Sthitishilta Nashta Hato Sarbatrai Biraj Karat Might Is Right Sutarang Bhule Gele Chalabe Na Je Nyay Bichar Biswa Shantir Jamin
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন, “--এবং যতক্ষণ পর্যন্ত তাদের নেতারা (শাসক গোষ্ঠী ও ইমামগণ) আল্লাহর কিতাব অনুযায়ী বিধান (ও ফায়সালা) না দেয় এবং আল্লাহ যা অবতীর্ণ করেছেন তা বরণ না করে, ততক্ষণ পর্যন্ত আল্লাহ তাদের মাঝে গৃহদ্বন্দ্ব বহাল রাখেন।” (ইবনে মাজাহ ৪০১৯, বাইহাক্বীর শুআবুল ঈমান ১০৫৫০, সহীহ তারগীব ৭৫৯ নং)আল্লাহর রসূল (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম) আমাকে বললেন, “হে আব্দুর রহমান বিন সামুরাহ! তুমি সরকারী পদ চেয়ো না। কারণ তুমি যদি তা না চেয়ে পাও, তাহলে তাতে তোমাকে সাহায্য করা হবে। আর যদি তুমি তা চাওয়ার কারণে পাও, তাহলে তা তোমাকে সঁপে দেওয়া হবে। (এবং তাতে আল্লাহর সাহায্য পাবে না।) আর যখন তুমি কোন কথার উপর কসম খাবে, অতঃপর তা থেকে অন্য কাজ উত্তম মনে করবে, তখন উত্তম কাজটা কর এবং তোমার কসমের কাফ্ফারা দিয়ে দাও।” (বুখারী ৬৭২২, ৭১৪৬, মুসলিম ৪৩৭০ নং)
Romanized Version
রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন, “--এবং যতক্ষণ পর্যন্ত তাদের নেতারা (শাসক গোষ্ঠী ও ইমামগণ) আল্লাহর কিতাব অনুযায়ী বিধান (ও ফায়সালা) না দেয় এবং আল্লাহ যা অবতীর্ণ করেছেন তা বরণ না করে, ততক্ষণ পর্যন্ত আল্লাহ তাদের মাঝে গৃহদ্বন্দ্ব বহাল রাখেন।” (ইবনে মাজাহ ৪০১৯, বাইহাক্বীর শুআবুল ঈমান ১০৫৫০, সহীহ তারগীব ৭৫৯ নং)আল্লাহর রসূল (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম) আমাকে বললেন, “হে আব্দুর রহমান বিন সামুরাহ! তুমি সরকারী পদ চেয়ো না। কারণ তুমি যদি তা না চেয়ে পাও, তাহলে তাতে তোমাকে সাহায্য করা হবে। আর যদি তুমি তা চাওয়ার কারণে পাও, তাহলে তা তোমাকে সঁপে দেওয়া হবে। (এবং তাতে আল্লাহর সাহায্য পাবে না।) আর যখন তুমি কোন কথার উপর কসম খাবে, অতঃপর তা থেকে অন্য কাজ উত্তম মনে করবে, তখন উত্তম কাজটা কর এবং তোমার কসমের কাফ্ফারা দিয়ে দাও।” (বুখারী ৬৭২২, ৭১৪৬, মুসলিম ৪৩৭০ নং) Rasulullah Sallallahu ‘alaihi Wasallam Balechhen “ Evan Jatakshan Parjanta Tader Netara Shasak Goshthi O Imamagan Allahar Kitab Anujayi Bidhan O Faysala Na Dey Evan Allah Ja Abatirna Karechhen Ta Baran Na Kare Tatakshan Parjanta Allah Tader Majhe Grihadwandwa Bahal Rakhen ” Ibane Majah 4019 Baihakbir Shuabul Iman 10550 Sahih Targib 759 Nong Allahar Rasul Sallallahu ‘alaihi Wasallam Amake Balalen “he Abdur Rahaman Binh Samurah Tumi Sarakari Pada Cheyo Na Karan Tumi Jodi Ta Na Cheye Pao Tahle Tate Tomake Sahajya Kara Habe Are Jodi Tumi Ta Chawar Karne Pao Tahle Ta Tomake Sanpe Dewa Habe Evan Tate Allahar Sahajya Pabe Na Are Jakhan Tumi Koun Kathar Upar Kasam Khabe Atahpar Ta Theke Anya Kaj Uttam Money Karabe Takhan Uttam Kajta Cor Evan Tomar Kasamer Kaffara Diye Dow ” Bukhari 6722 7146 Muslim 4370 Nong
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bichar Niye Hadis,Hadith On Trial,


vokalandroid