অর্থ যে সমস্ত কিছুর মূল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করো । ...

বাংলাদেশী মুদ্রায় এটি প্রায় ৫০,০০০ কোটি টাকার সমপরিমান। বাংলাদেশে পণ্য আমদানি-রপ্তানির সময় এ কারসাজি করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পণ্য-আমদানি রপ্তানিতে কারসাজির মাধ্যমে কিভাবে অর্থ পাচার হয়ে গেছে, তার একটি চিত্র এই প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। বাংলাদেশ থেকে টাকা বেরিয়ে গেছে দুইভাবে - একটি উপায় হচ্ছে, পণ্য আমদানির সময় কাগজপত্রে বেশি দাম উল্লেখ করে টাকা পাচার, আরেকটি হচ্ছে, পণ্য রপ্তানি করার সময় কাগজপত্রে দাম কম দেখানো। রপ্তানির সময় কম দাম দেখানোর ফলে বিদেশী ক্রেতারা যে অর্থ পরিশোধ করছে, তার একটি অংশ বিদেশেই থেকে যাচ্ছে। বাংলাদেশে আসছে শুধুমাত্র সেই পরিমান অর্থ, যে পরিমান অর্থের কথা দেখানো হচ্ছে অর্থাৎ কাগজপত্রে যে দাম উল্লেখ করা হয়েছে সেটা। অনেক কিছূ বলার আছে, অনেকেই বলবে, না বলার মত ঘটনা তো অবশ্যই না ...হ্যাঁ বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের প্রথম ওয়ান ডে ম্যাচের কথা বলছি। ... আমরা মুগ্ধ ..এবং পুরো খেলায় আশরাফুলের একটি বিষয় আমার নজর কেড়েছে ...বিষয় খানা হলো জিম্বাবুয়েন সাদা খেলোয়াড় আর ডব্লিউ প্রাইস কে তার নামের অর্থ মানে প্রাইস এর অর্থ যে মূল্য তার মূল্য বুঝিয়ে দিয়েছে আমাদের বীরপুরষ। কেমনে... আগে পরিসংখ্যান টা দেখে নেন.. আশরাফুল প্রাইসের মোট বল খেলেছে ৩২ টি , এই বল খেলে ৫টা চার আর একটা ৬ সহ মোট ৩২ রান করেছে। ( আজ আশরাফুলে বলারওয়াইজ এর নিকটতম হলো উৎসেয়ার ১৭ বলে ১৮ রান) ।
Romanized Version
বাংলাদেশী মুদ্রায় এটি প্রায় ৫০,০০০ কোটি টাকার সমপরিমান। বাংলাদেশে পণ্য আমদানি-রপ্তানির সময় এ কারসাজি করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পণ্য-আমদানি রপ্তানিতে কারসাজির মাধ্যমে কিভাবে অর্থ পাচার হয়ে গেছে, তার একটি চিত্র এই প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। বাংলাদেশ থেকে টাকা বেরিয়ে গেছে দুইভাবে - একটি উপায় হচ্ছে, পণ্য আমদানির সময় কাগজপত্রে বেশি দাম উল্লেখ করে টাকা পাচার, আরেকটি হচ্ছে, পণ্য রপ্তানি করার সময় কাগজপত্রে দাম কম দেখানো। রপ্তানির সময় কম দাম দেখানোর ফলে বিদেশী ক্রেতারা যে অর্থ পরিশোধ করছে, তার একটি অংশ বিদেশেই থেকে যাচ্ছে। বাংলাদেশে আসছে শুধুমাত্র সেই পরিমান অর্থ, যে পরিমান অর্থের কথা দেখানো হচ্ছে অর্থাৎ কাগজপত্রে যে দাম উল্লেখ করা হয়েছে সেটা। অনেক কিছূ বলার আছে, অনেকেই বলবে, না বলার মত ঘটনা তো অবশ্যই না ...হ্যাঁ বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের প্রথম ওয়ান ডে ম্যাচের কথা বলছি। ... আমরা মুগ্ধ ..এবং পুরো খেলায় আশরাফুলের একটি বিষয় আমার নজর কেড়েছে ...বিষয় খানা হলো জিম্বাবুয়েন সাদা খেলোয়াড় আর ডব্লিউ প্রাইস কে তার নামের অর্থ মানে প্রাইস এর অর্থ যে মূল্য তার মূল্য বুঝিয়ে দিয়েছে আমাদের বীরপুরষ। কেমনে... আগে পরিসংখ্যান টা দেখে নেন.. আশরাফুল প্রাইসের মোট বল খেলেছে ৩২ টি , এই বল খেলে ৫টা চার আর একটা ৬ সহ মোট ৩২ রান করেছে। ( আজ আশরাফুলে বলারওয়াইজ এর নিকটতম হলো উৎসেয়ার ১৭ বলে ১৮ রান) । Bangladeshi Mudray AT Pray 50 000 Koti Takar Samapariman Bangladeshe Panya Amadani Raptanir Samay A Karsaji Kara Hayechhe Ble Pratibedne Ullekh Kara Hayechhe Bishwer Bibhinna Desh Theke Panya Amadani Raptanite Karsajir Madhyame Kibhabe Earth Pachar Haye Gechhe Taur Ekati Chitra AE Pratibedne Uthe Esechhe Bangladesh Theke Taka Beriye Gechhe Duibhabe - Ekati Upay Hachchhe Panya Amadanir Samay Kagajapatre Bedshee Daam Ullekh Kare Taka Pachar Arekati Hachchhe Panya Raptani Karar Samay Kagajapatre Daam Com Dekhano Raptanir Samay Com Daam Dekhanor Fale Bideshi Kretara Je Earth Parishodh Karachhe Taur Ekati Angsh Bideshei Theke Jachchhe Bangladeshe Ashche Shudhumatra Sei Pariman Earth Je Pariman Arther Katha Dekhano Hachchhe Arthat Kagajapatre Je Daam Ullekh Kara Hayechhe SATA Anek Kichhu Balar Ache Anekei Balabe Na Balar Matt Ghatana Toh Abashyai Na Hyan Bangladesh Jimbabuyer Pratham One Day Myacher Katha Balachhi Amara Mugdha Evan Puro Khelay Asharafuler Ekati Vysya Amar Nazr Kerechhe Vysya Khana Holo Jimbabuyen Sadda Khelwar Are Dabliu Price K Taur Namer Earth Mane Price Aare Earth Je Mulya Taur Mulya Bujhiye Diyechhe Amader Birpurash Kemne Age Parisankhyan Ta Dekhe Nen Asharaful Praiser Mot Ball Khelechhe 32 Te , AE Ball Khele 5ta CHAR Are Ekata 6 Huh Mot 32 Run Karechhe ( Az Asharafule Balarwaij Aare Nikatatam Holo Utseyar 17 Ble 18 Run
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


অর্থ যে সমস্ত কিছুর মূল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হল , জীবনে চলতে হলে অর্থের প্রয়োজন। আবার অতিরিক্ত অর্থের কোপানলে পড়েও মানুষ ধ্বংস হয়। কথায় বলে দুনিয়াটা টাকার বশ। এ পৃথিবীতে অর্থ বা ঐশ্বর্য মানুষের একান্ত কামনা। অর্থের জন্য মানুষ জীবনসংগ্রামে লিপ্ত হয়। এ পৃথিবীতে বেঁচে থাকার জন্য অর্থের প্রয়োজন অনস্বীকার্য। জীবনের প্রতিক্ষেত্রে অর্থের চাহিদা অপূরণীয়। মানুষ প্রতিনিয়ত জীবন সংগ্রামে সম্পদের মোহে লিপ্ত। মানুষ তার কাঙ্ক্ষিত অর্থ অর্জনের জন্য কঠোর পরিশ্রম করে। বর্তমান পৃথিবীতে একমাত্র অর্থের মাপকাঠি দ্বারাই প্রতিপত্তি ও সম্মান নির্ণীত হয়। বিপদে-আপদে, উৎসবে, জন্ম-মৃত্যুতে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই অর্থের প্রয়োজন। তাই মীর মশাররফ হোসেন দুঃখ করে বলেছেন, “জন্মমাত্র টাকা, জীবনে টাকা, জীবনান্তে টাকা, জগতে টাকারই খেলা।” পার্থিব জীবনে অর্থের অধিক প্রয়োজন হলেও পৃথিবীতে অন্যায়, অত্যাচার, অসুন্দর ও অঘটনের মূল উৎসও হলো অর্থ। অর্থকে কেন্দ্র করেই চলেছে মানুষের মধ্যে দুর্নীতির প্রতিযোগিতা। মানুষের জীবনে অর্থের প্রয়োজন কখনই অস্বীকার করা যায় না। কিন্তু অর্থ অনেক সমস্যার সৃষ্টি করে; অনেক অনর্থ ঘটায়। অর্থের ক্ষতিকর প্রভাব আছে বলে এর প্রাচুর্য অথবা দুর্লভ্যতা জটিলতার দিকে ঠেলে দেয়। অর্থের মোহ মানুষকে অন্যায়ের পথে নিয়ে যায়। মানুষ জীবনধারণের জন্য অর্থ উপার্জন করে, এর জন্য মানুষকে যথেষ্ট শ্রম দিতে হয়।অর্থ জীবনে সুখের উপকরণ। অবৈধ পথে তা উপার্জনের জন্য লোভী মানুষ তৎপর। এ লোভ মানুষকে পাপের দিকে ঠেলে দেয়। অন্যায়ের পথে পরিচালিত করে। তাই অর্থকে অনর্থের মূল বলা অস্বাভাবিক কিছু নয়। জগতের সকল অশান্তি ও অনর্থের মূলে রয়েছে অর্থ। অর্থের লোভেই সীমার ইমাম হোসেনকে হত্যা করেছিল। অর্থের লোভেই মানুষ নৈতিকতা বিসর্জন দেয়। অর্থই মানুষকে ভুল পথে চালিত করে। তাই মীর মশাররফ হোসেন ‘বিষাদসিন্ধু’ গন্থে আরও বলেছেন, “হায়রে পাতকী অর্থ। তুই জগতে সকল অনর্থের মূল।” অর্থই মানুষের জীবন নাশের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।অর্থ বা সম্পদ মানব জীবনের জন্যে অপরিহার্য হলেও অর্থের যথাযোগ্য ব্যবহার না হলে ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে নেমে আসে অকল্যাণ। অর্থ উপার্জনের পন্থা যদি সৎ না হয়, কিংবা অন্যায় স্বার্থ হাসিলের জন্যে যদি অর্থের অপব্যবহার করা হয়, কিংবা হীন স্বার্থে ব্যক্তিগত বা জাতীয় সম্পদের অপচয় করা হয় তবে তা বিরাট ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। জীবনের প্রয়োজনে অর্থের ভূমিকা ও প্রয়োজনীয়তা কেউ অস্বীকার করেন না। অর্থ ও সম্পদ ছাড়া জীবনে সুখ, শান্তি ও কল্যাণ নিশ্চিত করা যায় না। কিন্তু অর্থ ও সম্পদ অনেক সময় সুখ ও কল্যাণের বদলে অকল্যাণ বয়ে আনে। জগতে সমস্ত অপকর্মের মূলে রয়েছে অর্থ। অন্যায় স্বার্থ হাসিলের জন্যে অর্থকে টোপ হিসেবে কাজে লাগায় হীন চরিত্রের মানুষ। অর্থলোলুপ মানুষ অর্থের লোভে জঘন্য কাজে লিপ্ত হয়। তার ন্যায়-অন্যায় বিবেচনা, নীতি-আদর্শ তখন লোপ পায়। সমাজে নৈতিক অবক্ষয় ও সীমাহীন দুর্নীতির কারণ উদগ্র অর্থ-লালসা। অন্যায় পথে অর্জিত অর্থ মানুষকে বিবেকহীন ও দাম্ভিক করে তোলে। অর্থের দাপটে তার বুদ্ধি-বিবেচনা লোপ পায়। ’দুনিয়াটা টাকার বশ’- এই তার অর্থ-বিত্ত ব্যবহারের মূলমন্ত্র হয়ে দাঁড়ায়। পৃথিবীতে সকল মানুষ সমান হলেও এক শ্রেণীর লোক অর্থ-বিত্ত কুক্ষিগত করে মানবসমাজকে শ্রেণীবিভক্ত করেছে। সমাজে সৃষ্টি হয়েছে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য।
Romanized Version
অর্থ যে সমস্ত কিছুর মূল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হল , জীবনে চলতে হলে অর্থের প্রয়োজন। আবার অতিরিক্ত অর্থের কোপানলে পড়েও মানুষ ধ্বংস হয়। কথায় বলে দুনিয়াটা টাকার বশ। এ পৃথিবীতে অর্থ বা ঐশ্বর্য মানুষের একান্ত কামনা। অর্থের জন্য মানুষ জীবনসংগ্রামে লিপ্ত হয়। এ পৃথিবীতে বেঁচে থাকার জন্য অর্থের প্রয়োজন অনস্বীকার্য। জীবনের প্রতিক্ষেত্রে অর্থের চাহিদা অপূরণীয়। মানুষ প্রতিনিয়ত জীবন সংগ্রামে সম্পদের মোহে লিপ্ত। মানুষ তার কাঙ্ক্ষিত অর্থ অর্জনের জন্য কঠোর পরিশ্রম করে। বর্তমান পৃথিবীতে একমাত্র অর্থের মাপকাঠি দ্বারাই প্রতিপত্তি ও সম্মান নির্ণীত হয়। বিপদে-আপদে, উৎসবে, জন্ম-মৃত্যুতে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই অর্থের প্রয়োজন। তাই মীর মশাররফ হোসেন দুঃখ করে বলেছেন, “জন্মমাত্র টাকা, জীবনে টাকা, জীবনান্তে টাকা, জগতে টাকারই খেলা।” পার্থিব জীবনে অর্থের অধিক প্রয়োজন হলেও পৃথিবীতে অন্যায়, অত্যাচার, অসুন্দর ও অঘটনের মূল উৎসও হলো অর্থ। অর্থকে কেন্দ্র করেই চলেছে মানুষের মধ্যে দুর্নীতির প্রতিযোগিতা। মানুষের জীবনে অর্থের প্রয়োজন কখনই অস্বীকার করা যায় না। কিন্তু অর্থ অনেক সমস্যার সৃষ্টি করে; অনেক অনর্থ ঘটায়। অর্থের ক্ষতিকর প্রভাব আছে বলে এর প্রাচুর্য অথবা দুর্লভ্যতা জটিলতার দিকে ঠেলে দেয়। অর্থের মোহ মানুষকে অন্যায়ের পথে নিয়ে যায়। মানুষ জীবনধারণের জন্য অর্থ উপার্জন করে, এর জন্য মানুষকে যথেষ্ট শ্রম দিতে হয়।অর্থ জীবনে সুখের উপকরণ। অবৈধ পথে তা উপার্জনের জন্য লোভী মানুষ তৎপর। এ লোভ মানুষকে পাপের দিকে ঠেলে দেয়। অন্যায়ের পথে পরিচালিত করে। তাই অর্থকে অনর্থের মূল বলা অস্বাভাবিক কিছু নয়। জগতের সকল অশান্তি ও অনর্থের মূলে রয়েছে অর্থ। অর্থের লোভেই সীমার ইমাম হোসেনকে হত্যা করেছিল। অর্থের লোভেই মানুষ নৈতিকতা বিসর্জন দেয়। অর্থই মানুষকে ভুল পথে চালিত করে। তাই মীর মশাররফ হোসেন ‘বিষাদসিন্ধু’ গন্থে আরও বলেছেন, “হায়রে পাতকী অর্থ। তুই জগতে সকল অনর্থের মূল।” অর্থই মানুষের জীবন নাশের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।অর্থ বা সম্পদ মানব জীবনের জন্যে অপরিহার্য হলেও অর্থের যথাযোগ্য ব্যবহার না হলে ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে নেমে আসে অকল্যাণ। অর্থ উপার্জনের পন্থা যদি সৎ না হয়, কিংবা অন্যায় স্বার্থ হাসিলের জন্যে যদি অর্থের অপব্যবহার করা হয়, কিংবা হীন স্বার্থে ব্যক্তিগত বা জাতীয় সম্পদের অপচয় করা হয় তবে তা বিরাট ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। জীবনের প্রয়োজনে অর্থের ভূমিকা ও প্রয়োজনীয়তা কেউ অস্বীকার করেন না। অর্থ ও সম্পদ ছাড়া জীবনে সুখ, শান্তি ও কল্যাণ নিশ্চিত করা যায় না। কিন্তু অর্থ ও সম্পদ অনেক সময় সুখ ও কল্যাণের বদলে অকল্যাণ বয়ে আনে। জগতে সমস্ত অপকর্মের মূলে রয়েছে অর্থ। অন্যায় স্বার্থ হাসিলের জন্যে অর্থকে টোপ হিসেবে কাজে লাগায় হীন চরিত্রের মানুষ। অর্থলোলুপ মানুষ অর্থের লোভে জঘন্য কাজে লিপ্ত হয়। তার ন্যায়-অন্যায় বিবেচনা, নীতি-আদর্শ তখন লোপ পায়। সমাজে নৈতিক অবক্ষয় ও সীমাহীন দুর্নীতির কারণ উদগ্র অর্থ-লালসা। অন্যায় পথে অর্জিত অর্থ মানুষকে বিবেকহীন ও দাম্ভিক করে তোলে। অর্থের দাপটে তার বুদ্ধি-বিবেচনা লোপ পায়। ’দুনিয়াটা টাকার বশ’- এই তার অর্থ-বিত্ত ব্যবহারের মূলমন্ত্র হয়ে দাঁড়ায়। পৃথিবীতে সকল মানুষ সমান হলেও এক শ্রেণীর লোক অর্থ-বিত্ত কুক্ষিগত করে মানবসমাজকে শ্রেণীবিভক্ত করেছে। সমাজে সৃষ্টি হয়েছে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য।Earth Je Samasta Kichhur Mul Samparke Bistarit Alochana Kara Hall , Jibne Chalate Hale Arther Prayojan Abar Atirikta Arther Kopanale Pareo Manus Dhbans Hya Kathay Ble Duniyata Takar Vs A Prithibite Earth Ba Aishwarya Manusher Ekanta Kamna Arther Janya Manus Jibanasangrame Lipta Hya A Prithibite Benche Thakur Janya Arther Prayojan Anaswikarjya Jibner Pratikshetre Arther Sahida Apurniya Manus Pratiniyat Jeevan Sangrame Sampader Mohey Lipta Manus Taur Kankshit Earth Arjaner Janya Kathor Parishram Kare Bartaman Prithibite Ekamatra Arther Mapkathi Dwarai Pratipatti O Samman Nirnit Hya Bipde Apade Utsabe Janma Mrityute Jibner Pratiti Xetrei Arther Prayojan Tai Mir Mashararaf Hossain Duhkh Kare Balechhen “janmamatra Taka Jibne Taka Jibnante Taka Jagate Takarai Khela ” Parthiv Jibne Arther Adhik Prayojan Haleo Prithibite Anyay Atyachar Asundar O Aghataner Mul Utsao Holo Earth Arthake Kendra Karei Chalechhe Manusher Madhye Durnitir Pratijogita Manusher Jibne Arther Prayojan Kakhanai Aswikar Kara Jay Na Kintu Earth Anek Samasyar Srishti Kare Anek Anartha Ghatay Arther Xatikar Prabhab Ache Ble Aare Prachurjya Athaba Durlabhyata Jatiltar Dike Thele Dey Arther Moh Manushake Anyayer Pathe Niye Jay Manus Jibanadharner Janya Earth Uparjan Kare Aare Janya Manushake Jatheshta Shram Dite Hya Earth Jibne Sukher Upakaran Abaidh Pathe Ta Uparjaner Janya Lobhi Manus Ttpar A Luv Manushake Paper Dike Thele Dey Anyayer Pathe Parichalit Kare Tai Arthake Anarther Mul Bala Aswabhabik Kichhu Noy Jagater Sakal Ashanti O Anarther Mule Rayechhe Earth Arther Lobhei Simar Imam Hosenake Hatya Karechhil Arther Lobhei Manus Naitikata Bisarjan Dey Arthai Manushake Bhool Pathe Chalit Kare Tai Mir Mashararaf Hossain ‘bishadsindhuo Ganthe RO Balechhen “hayre Patki Earth Tui Jagate Sakal Anarther Mul ” Arthai Manusher Jeevan Nasher Karan Huye Danray Earth Ba Sampada Menabe Jibner Janye Apariharjya Haleo Arther Jathajogya Byabahar Na Hale Byakti O Samaj Jibne Neme Ase Akalyan Earth Uparjaner Pantha Jodi St Na Hya Kingba Anyay Swartha Hasiler Janye Jodi Arther Apabyabahar Kara Hya Kingba Hin Swarthe Byaktigat Ba Jatiya Sampader Apachay Kara Hya Tove Ta Birat Xatir Karan Huye Danray Jibner Prayojane Arther Bhumika O Prayojniyta Keu Aswikar Curren Na Earth O Sampada Chhara Jibne Sukh Shanti O Kalyan Nishchit Kara Jay Na Kintu Earth O Sampada Anek Camay Sukh O Kalyaner Badale Akalyan Be Aane Jagate Samasta Apakarmer Mule Rayechhe Earth Anyay Swartha Hasiler Janye Arthake Top Hisebe Kaje Lagay Hin Charitrer Manus Arthalolup Manus Arther Lobhe Jaghanya Kaje Lipta Hya Taur Nyay Anyay Bibechana Niti Adarsh Takhan Lop Pay Samaje Naitik Abakshay O Simahin Durnitir Karan Udagra Earth Lalsa Anyay Pathe Arjit Earth Manushake Bibekhin O Dambhik Kare Tole Arther Dapte Taur Buddhi Bibechana Lop Pay ’duniyata Takar Basho AE Taur Earth Bitta Byabaharer Mulamantra Huye Danray Prithibite Sakal Manus Saman Haleo Ec Shrenir Loka Earth Bitta Kukshigat Kare Manabasamajke Shrenibibhakta Karechhe Samaje Srishti Hayechhe Dhoni Daridrer Baishamya
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Ortho Je Samasta Kichhur Mul Somporke Bistarit Alochana Karo,Discuss In Detail The Meaning Of Everything.,


vokalandroid