বিজ্ঞান যাদু? ...

বিজ্ঞান যাদু আপনাকে একটি বরফ এবং একটি সুতা দেয়া হল। বরফটিকে সুতাটি দিয়ে ঝুলাতে হবে। কিন্তু সুতা দিয়ে বরফটিকে বাঁধতে পারবেন না। কি ঝুলাতে পারবেন? অবাক হচ্ছেন নাকি এটা ভেবে যে এটা কি করে সম্ভব? হ্যাঁ, এটা আসলেই সম্ভব। তাহলে বলি কিভাবে এটা করা সম্ভব। প্রথমে যে সুতা দিয়ে বরফটিকে ঝুলাবেন, সেটিকে পানিতে ভালো করে ভিজিয়ে নিন। এবার বরফের টুকরাটিকে একটা পাত্রে নিয়ে সুতাটির এক প্রান্তকে বরফের টুকরার মাঝ বরাবর রাখি। এখন ধীরে ধীরে সুতা বরাবর বরফের উপরে লবণ ছিটাতে থাকুন। ২-৩ মিনিট অপেক্ষা করার পরে দেখবেন সুতাটি বরফ কেটে ভিতরে ঢুকে যাবে এবং তারপরে বরফটি আবার সুতাসহ জমে যাবে। এখন আপনি সুতাটির অপর প্রান্ত ধরে বরফটিকে উপরে উঠালে দেখবেন বরফটি সুতার সাহায্যে ঝুলছে।এখন ভাবছেন এটা কিভাবে হল? তাহলে চলুন, এর কারণটা জেনে নিই।এটা তো আমরা সকলেই জানি শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় পানি বরফে পরিণত হয়। এই শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাকে পানির ফ্রিজিং পয়েন্ট বা হিমাংক বলে। পানির এই ফ্রিজিং পয়েন্টকে চাইলে কমিয়ে শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার নিচে নিয়ে আসা যায়।উপরের ম্যাজিকটিতে ঠিক এই ধরণের ঘটনা ঘটে। বরফের উপর সুতা রেখে তার উপরে লবণ ছিটিয়ে দেয়ার ফলে পানির হিমাংক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে কিছুটা কমে আসে। ফলে বরফ শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় থাকলেও তা গলতে শুরু করে। যার ফলে সুতাটি বরফের ভিতরে ঢুকতে থাকে। যখন লবণের ক্রিয়া শেষ হয়ে যায়, তখন আবার হিমাংক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় চলে আসে এবং বরফ সুতার চারপাশে জমতে শুরু করে। ফলে যখন বরফ জমাট বেঁধে যায়, তখন সুতাটিকে উপরে তুললে বরফও সুতার সাথে উপরে উঠে আসে এবং ঝুলতে থাকে।বিজ্ঞান এক ধরণের যাদু র মত। আর বিজ্ঞান কিছু মজার প্রজেক্ট বিজ্ঞান শিক্ষার মাঝে আনন্দ আর মজা নিয়ে আসে।
Romanized Version
বিজ্ঞান যাদু আপনাকে একটি বরফ এবং একটি সুতা দেয়া হল। বরফটিকে সুতাটি দিয়ে ঝুলাতে হবে। কিন্তু সুতা দিয়ে বরফটিকে বাঁধতে পারবেন না। কি ঝুলাতে পারবেন? অবাক হচ্ছেন নাকি এটা ভেবে যে এটা কি করে সম্ভব? হ্যাঁ, এটা আসলেই সম্ভব। তাহলে বলি কিভাবে এটা করা সম্ভব। প্রথমে যে সুতা দিয়ে বরফটিকে ঝুলাবেন, সেটিকে পানিতে ভালো করে ভিজিয়ে নিন। এবার বরফের টুকরাটিকে একটা পাত্রে নিয়ে সুতাটির এক প্রান্তকে বরফের টুকরার মাঝ বরাবর রাখি। এখন ধীরে ধীরে সুতা বরাবর বরফের উপরে লবণ ছিটাতে থাকুন। ২-৩ মিনিট অপেক্ষা করার পরে দেখবেন সুতাটি বরফ কেটে ভিতরে ঢুকে যাবে এবং তারপরে বরফটি আবার সুতাসহ জমে যাবে। এখন আপনি সুতাটির অপর প্রান্ত ধরে বরফটিকে উপরে উঠালে দেখবেন বরফটি সুতার সাহায্যে ঝুলছে।এখন ভাবছেন এটা কিভাবে হল? তাহলে চলুন, এর কারণটা জেনে নিই।এটা তো আমরা সকলেই জানি শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় পানি বরফে পরিণত হয়। এই শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাকে পানির ফ্রিজিং পয়েন্ট বা হিমাংক বলে। পানির এই ফ্রিজিং পয়েন্টকে চাইলে কমিয়ে শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার নিচে নিয়ে আসা যায়।উপরের ম্যাজিকটিতে ঠিক এই ধরণের ঘটনা ঘটে। বরফের উপর সুতা রেখে তার উপরে লবণ ছিটিয়ে দেয়ার ফলে পানির হিমাংক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে কিছুটা কমে আসে। ফলে বরফ শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় থাকলেও তা গলতে শুরু করে। যার ফলে সুতাটি বরফের ভিতরে ঢুকতে থাকে। যখন লবণের ক্রিয়া শেষ হয়ে যায়, তখন আবার হিমাংক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় চলে আসে এবং বরফ সুতার চারপাশে জমতে শুরু করে। ফলে যখন বরফ জমাট বেঁধে যায়, তখন সুতাটিকে উপরে তুললে বরফও সুতার সাথে উপরে উঠে আসে এবং ঝুলতে থাকে।বিজ্ঞান এক ধরণের যাদু র মত। আর বিজ্ঞান কিছু মজার প্রজেক্ট বিজ্ঞান শিক্ষার মাঝে আনন্দ আর মজা নিয়ে আসে।Bigyan Jadu Apanake Ekati Baraf Evan Ekati Suta Dea Hall Barafatike Sutati Diye Jhulate Habe Kintu Suta Diye Barafatike Bandhate Paraben Na Ki Jhulate Paraben Abec Hssen Naki Etah Bhebe Je Etah Ki Kare Sambhab Hyan Etah Asalei Sambhab Tahle Bali Kibhabe Etah Kara Sambhab Prathame Je Suta Diye Barafatike Jhulaben Setike Panite Valu Kare Bhijiye Nin Ebar Barafer Tukratike Ekata Patre Niye Sutatir Ec Prantake Barafer Tukrar Mujhe Barabar Rakhi Ekhan Dhire Dhire Suta Barabar Barafer Upare Laban Chhitate Thakun 2 3 Minute Apeksha Karar Pare Dekhben Sutati Baraf Kete Bhitre Dhuke Jabe Evan Tarapare Barafati Abar Sutasah Game Jabe Ekhan Apni Sutatir Apr Pranta Dhare Barafatike Upare Uthale Dekhben Barafati Sutar Sahajye Jhulchhe Ekhan Bhabchhen Etah Kibhabe Hall Tahle Chalun Aare Karanata Jene Nii Etah Toh Amara Sakalei JANI Shunya Digri Selsiyas Tapmatray Pani Barafe Parinat Hay AE Shunya Digri Selsiyas Tapmatrake Panir Freezing Payenta Ba Himank Ble Panir AE Freezing Payentake Chaile Kamiye Shunya Digri Selsiyas Tapmatrar Niche Niye Asa Jay Uparer Myajiktite Thik AE Dharaner Ghatana Ghate Barafer Upar Suta Rekhe Taur Upare Laban Chhitiye Their Fale Panir Himank Shunya Digri Selsiyas Theke Kichhuta Kame Ase Fale Baraf Shunya Digri Selsiyas Tapmatray Thakleo Ta Galate Shuru Kare Jar Fale Sutati Barafer Bhitre Dhukte Thake Jakhan Labaner Kriya Sesh Huye Jay Takhan Abar Himank Shunya Digri Selsiyas Tapmatray Chale Ase Evan Baraf Sutar Charpashe Jamate Shuru Kare Fale Jakhan Baraf Jamat Bendhe Jay Takhan Sutatike Upare Tulle Barafao Sutar Sathe Upare Uthe Ase Evan Jhulte Thake Bigyan Ec Dharaner Jadu Ra Matt Are Bigyan Kichhu Majar Prajekta Bigyan Shikshar Majhe Ananth Are Majaa Niye Ase
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


আমরা টিভির সামনে বসে কতই না ম্যাজিক শো দেখি। ম্যাজিশিয়ান রুমাল থেকে খরগোশ বানাচ্ছে, টুপির মধ্যে থেকে কত কিছু বের করে আনছে! আমরা হাততালি দিই, তারপর গালে হাত দিয়ে ভাবি, `আচ্ছা, কীভাবে হল এটা?’ ম্যাজিশিয়ান কিন্তু কখনওই বলে না সে কীভাবে ম্যাজিকটা করল। তাই আমরাও আমাদের প্রশ্নের উত্তর পাই না। আজকে আমরা একটা ম্যাজিক শিখব, নিজেরা করব এবং জানব কীভাবে ম্যাজিকটা হল। তো, শুরু করা যাক। প্রথমে এই ম্যাজিকটার জন্য আমাদের দরকার এক কাপ দুধ, একটা মাঝারি আকারের সাদা রংয়ের প্লেট, থালা-বাসন ধোওয়ার বা লিকুইড সাবান (যেমনঃ ভিম, ট্রিক্স বা লাইফবয়), কটনবাড আর লাল, নীল, সবুজ বিভিন্ন রঙের ফুড কালার। এইটুকু শুনে তোমরা অনেকেই কপাল কুচকে বলতে পার, ‘ফুড কালারটা আবার কী?’ ফুড কালার খাবারে ব্যবহার করা রং। জর্দা, মিষ্টি, কেক ইত্যাদি বানাতে ব্যবহার করা হয়। ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে গেলেই পাওয়া যাবে। আর কপাল ভালো থাকলে তোমার বাসার ফ্রিজেই পাওয়া যাবে। এবার, শুরু করা যাক ম্যাজিক। প্রথমে প্লেটে খুব অল্প পরিমাণে দুধ ঢেলে দিতে হবে। এবার আস্তে করে ফুড কালারের লাল, নীল, সবুজ, হলুদ কয়েকটা রং এক ফোঁটা করে ঐ দুধের মাঝে দিবো। খেয়াল রাখতে হবে ঐ রঙের ফোঁটাগুলো যেন কাছাকাছি থাকে এবং প্লেটের একদম মাঝের দিকে থাকে। এইবার একটি কটনবাড নিয়ে ওটার এক পাশ প্লেটের মাঝে স্পর্শ করাই। কিছু কি হচ্ছে? উঁহু। হল না তো কিছু। আচ্ছা, এবার কটনবাডের আরেকটি প্রান্তে একটু লিকুয়িড সাবান লাগাই এবং ঐ প্রান্তটা এইবার প্লেটের মধ্যে রংয়ের উপর লাগাই। ১০-১৫ সেকেন্ড ধরে রাখি। ম্যাজিইইইক! রংগুলো ম্যাজিকের মতো পুরো প্লেটে ছড়িয়ে গেলো। কী অদ্ভূত সুন্দর দেখাচ্ছে! তাই না? ম্যাজিকটা দেখে অবাক হলে নিশ্চয়ই? এইবার তোমাদের মনে প্রশ্ন জাগছে, আচ্ছা এটা কীভাবে হল? কেন হল? আমি টিভির ঐ দুষ্টু ম্যাজিশিয়ান না। তাই আমি তোমাদেরকে বলে দিব, এটা কীভাবে হল।আমরা সবাই ছোটবেলা থেকেই জানি, দুধ একটি সুষম খাদ্য। একটা বিজ্ঞান যাদু সুষম খাদ্যে সব রকম উপাদান থাকে। দুধেও ভিটামিন, খনিজ, প্রোটিন, তেল ইত্যাদি সব থাকে। যখন লিকুইড সাবান দুধে মেশানো হয়, তখনই ম্যাজিকটা শুরু হয়। সাবানের দুই প্রান্তে দুই রকম বৈশিষ্ট্য থাকে, এটাকে বলে বাইপোলার বৈশিষ্ট্য। এই বৈশিষ্ট্যের কারণেই সাবান ঐ দুধের প্রোটিন আর তেল এর বন্ধন কে দুর্বল করে দেয়। সাবানের একটি প্রান্ত বিজ্ঞান যাদু দুধে মিশে যায় আর আরেকটি প্রান্ত দুধের তেল এর অণুগুলার সঙ্গে মিশতে চায়। ঠিক তখনই দুধের তেলের অণুগুলো দুধের মাঝেই ছুটোছুটি শুরু করে আর সাবানের ঐ প্রান্তের অণুগুলো তাদের পিছনে ছুটতে থাকে। তখন ঐ ফুড কালারের রংগুলোর কারণে অণুগুলোর এই ছুটোছুটি আমরা দেখতে পারি।
Romanized Version
আমরা টিভির সামনে বসে কতই না ম্যাজিক শো দেখি। ম্যাজিশিয়ান রুমাল থেকে খরগোশ বানাচ্ছে, টুপির মধ্যে থেকে কত কিছু বের করে আনছে! আমরা হাততালি দিই, তারপর গালে হাত দিয়ে ভাবি, `আচ্ছা, কীভাবে হল এটা?’ ম্যাজিশিয়ান কিন্তু কখনওই বলে না সে কীভাবে ম্যাজিকটা করল। তাই আমরাও আমাদের প্রশ্নের উত্তর পাই না। আজকে আমরা একটা ম্যাজিক শিখব, নিজেরা করব এবং জানব কীভাবে ম্যাজিকটা হল। তো, শুরু করা যাক। প্রথমে এই ম্যাজিকটার জন্য আমাদের দরকার এক কাপ দুধ, একটা মাঝারি আকারের সাদা রংয়ের প্লেট, থালা-বাসন ধোওয়ার বা লিকুইড সাবান (যেমনঃ ভিম, ট্রিক্স বা লাইফবয়), কটনবাড আর লাল, নীল, সবুজ বিভিন্ন রঙের ফুড কালার। এইটুকু শুনে তোমরা অনেকেই কপাল কুচকে বলতে পার, ‘ফুড কালারটা আবার কী?’ ফুড কালার খাবারে ব্যবহার করা রং। জর্দা, মিষ্টি, কেক ইত্যাদি বানাতে ব্যবহার করা হয়। ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে গেলেই পাওয়া যাবে। আর কপাল ভালো থাকলে তোমার বাসার ফ্রিজেই পাওয়া যাবে। এবার, শুরু করা যাক ম্যাজিক। প্রথমে প্লেটে খুব অল্প পরিমাণে দুধ ঢেলে দিতে হবে। এবার আস্তে করে ফুড কালারের লাল, নীল, সবুজ, হলুদ কয়েকটা রং এক ফোঁটা করে ঐ দুধের মাঝে দিবো। খেয়াল রাখতে হবে ঐ রঙের ফোঁটাগুলো যেন কাছাকাছি থাকে এবং প্লেটের একদম মাঝের দিকে থাকে। এইবার একটি কটনবাড নিয়ে ওটার এক পাশ প্লেটের মাঝে স্পর্শ করাই। কিছু কি হচ্ছে? উঁহু। হল না তো কিছু। আচ্ছা, এবার কটনবাডের আরেকটি প্রান্তে একটু লিকুয়িড সাবান লাগাই এবং ঐ প্রান্তটা এইবার প্লেটের মধ্যে রংয়ের উপর লাগাই। ১০-১৫ সেকেন্ড ধরে রাখি। ম্যাজিইইইক! রংগুলো ম্যাজিকের মতো পুরো প্লেটে ছড়িয়ে গেলো। কী অদ্ভূত সুন্দর দেখাচ্ছে! তাই না? ম্যাজিকটা দেখে অবাক হলে নিশ্চয়ই? এইবার তোমাদের মনে প্রশ্ন জাগছে, আচ্ছা এটা কীভাবে হল? কেন হল? আমি টিভির ঐ দুষ্টু ম্যাজিশিয়ান না। তাই আমি তোমাদেরকে বলে দিব, এটা কীভাবে হল।আমরা সবাই ছোটবেলা থেকেই জানি, দুধ একটি সুষম খাদ্য। একটা বিজ্ঞান যাদু সুষম খাদ্যে সব রকম উপাদান থাকে। দুধেও ভিটামিন, খনিজ, প্রোটিন, তেল ইত্যাদি সব থাকে। যখন লিকুইড সাবান দুধে মেশানো হয়, তখনই ম্যাজিকটা শুরু হয়। সাবানের দুই প্রান্তে দুই রকম বৈশিষ্ট্য থাকে, এটাকে বলে বাইপোলার বৈশিষ্ট্য। এই বৈশিষ্ট্যের কারণেই সাবান ঐ দুধের প্রোটিন আর তেল এর বন্ধন কে দুর্বল করে দেয়। সাবানের একটি প্রান্ত বিজ্ঞান যাদু দুধে মিশে যায় আর আরেকটি প্রান্ত দুধের তেল এর অণুগুলার সঙ্গে মিশতে চায়। ঠিক তখনই দুধের তেলের অণুগুলো দুধের মাঝেই ছুটোছুটি শুরু করে আর সাবানের ঐ প্রান্তের অণুগুলো তাদের পিছনে ছুটতে থাকে। তখন ঐ ফুড কালারের রংগুলোর কারণে অণুগুলোর এই ছুটোছুটি আমরা দেখতে পারি।Amara Tibhir Samne Base Katty Na Magic Show Dekhi Magician Rumal Theke Kharagosh Banachchhe Tupir Madhye Theke Kat Kichhu Ber Kare Anse Amara Hattali Dii Tarapar Gale Haut Diye Bhabi Accha Kibhabe Hall Etah ’ Magician Kintu Kakhanaoi Ble Na Say Kibhabe Myajikata Karal Tai Amarao Amader Prashner Uttar Pai Na Ajake Amara Ekata Magic Shikhab Nijera Karab Evan Janub Kibhabe Myajikata Hall Toh Shuru Kara Jak Prathame AE Myajiktar Janya Amader Darakar Ec Cup Doodh Ekata Majhari Akarer Sadda Rangyer Plate Thala Basan Dhowar Ba Liquid Saban Jemanah Bhim Tricks Ba Lifebuoy Katanabad Are Lal Neil Sabuj Bibhinna Ranger Food Color Eituku Shune Tomra Anekei Kapal Kuchke Volte Per ‘fud Kalarata Abar Key ’ Food Color Khabare Byabahar Kara Wrong Jarda Misti Cake Ityadi Banate Byabahar Kara Hay Departmental Store Gelei Powa Jabe Are Kapal Valu Thakle Tomar Basar Frijei Powa Jabe Ebar Shuru Kara Jak Magic Prathame Plete Khub Alpa Parimane Doodh Dhele Dite Habe Ebar Aste Kare Food Kalarer Lal Neil Sabuj Halud Kayekata Wrong Ec Fonta Kare Ae Dudher Majhe Dibo Kheyal Rakhte Habe Ae Ranger Fontagulo Jen Kachhakachhi Thake Evan Pleter Ekadam Majher Dike Thake Eibar Ekati Katanabad Niye Otar Ec Pash Pleter Majhe Sparsh Karai Kichhu Ki Hachchhe Unhu Hall Na Toh Kichhu Accha Ebar Katanabader Arekati Prante Ekatu Likuyid Saban Lagai Evan Ae Prantata Eibar Pleter Madhye Rangyer Upar Lagai 10 15 Second Dhare Rakhi Myajiiiik Rangulo Myajiker Mato Puro Plete Chhariye Gelo Key Adbhut Sundar Dekhachchhe Tai Na Myajikata Dekhe Abec Hale Nishchayai Eibar Tomader Money Prashna Jagchhe Accha Etah Kibhabe Hall Can Hall Aami Tibhir Ae Dushtu Magician Na Tai Aami Tomaderke Ble Div Etah Kibhabe Hall Amara Sabai Chhotbela Thekei JANI Doodh Ekati Susham Khadya Ekata Bigyan Jadu Susham Khadye Sab Rakam Upadan Thake Dudheo Vitamin Khanij Protein Tel Ityadi Sab Thake Jakhan Liquid Saban Dudhe Meshano Hay Takhanai Myajikata Shuru Hay Sabaner Dui Prante Dui Rakam Baishishtya Thake Etake Ble Baipolar Baishishtya AE Baishishtyer Karnei Saban Ae Dudher Protein Are Tel Aare Bandhan K Durbal Kare Dey Sabaner Ekati Pranta Bigyan Jadu Dudhe Mishe Jay Are Arekati Pranta Dudher Tel Aare Anugular Sange Mishte Say Thik Takhanai Dudher Teler Anugulo Dudher Majhei Chhutochhuti Shuru Kare Are Sabaner Ae Pranter Anugulo Tader Pichhne Chhutte Thake Takhan Ae Food Kalarer Rangulor Karne Anugulor AE Chhutochhuti Amara Dekhte Pari
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bigyan Jadu,Magic Magic?,


vokalandroid