বিভিন্ন ডাক্তারি কোর্স ...

ভর্তির প্রক্রিয়া অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষার (নিট) মেধাতালিকায় স্থান পাওয়ার পর ই-কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির সুযোগ মেলে কোর্সের মেয়াদ ... এমবিবিএস পাশ করার পর সংশ্লিষ্ট হাসপাতালেরই বিভিন্ন বিভাগে এক বছর ধরে 'ইন্টার্ন' হিসেবে হাতেকলমে ডাক্তারি শিখতে হয়৷ ডাক্তারি পড়াশোনা বেসরকারিকরণের দিকেই যাচ্ছে, তাই এত জটিলতা ... ডাক্তারি কোর্সে ভর্তি হতে আগ্রহী ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে চরম উৎকণ্ঠা।
Romanized Version
ভর্তির প্রক্রিয়া অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষার (নিট) মেধাতালিকায় স্থান পাওয়ার পর ই-কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির সুযোগ মেলে কোর্সের মেয়াদ ... এমবিবিএস পাশ করার পর সংশ্লিষ্ট হাসপাতালেরই বিভিন্ন বিভাগে এক বছর ধরে 'ইন্টার্ন' হিসেবে হাতেকলমে ডাক্তারি শিখতে হয়৷ ডাক্তারি পড়াশোনা বেসরকারিকরণের দিকেই যাচ্ছে, তাই এত জটিলতা ... ডাক্তারি কোর্সে ভর্তি হতে আগ্রহী ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে চরম উৎকণ্ঠা।Bhartir Prakriya Abhinna Prabeshika Parikshar Nit Medhatalikay Sthan Pawar Par E Kaunselingyer Madhyame Medical Kaleje Bhartir Sujog Mele Korser Meyad ... MBBS Pash Karar Par Sangshlishta Haspatalerai Bibhinna Bibhage Ec Bachhar Dhare Intern Hisebe Hatekalame Daktari Shikhte Hayar Daktari Parashona Besarakarikaraner Dikei Jachchhe Tai Et Jatilata ... Daktari Korse Bharti Hate Agrahi Chhatrachhatrider Madhye Charam Utkantha
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


পশ্চিমবঙ্গে সংক্ষিপ্ত ডাক্তারি কোর্সের প্রথম ব্যাচ ভর্তি হয়েছিল ১৯৮০ সালে। এই কোর্স চালু করার পেছনে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে যুক্তি ছিল, গ্রামাঞ্চলে গরিব জনসাধারণের চিকিৎসার জন্য এই কোর্স চালু করা হয়েছে। কারণ, এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তাররা গ্রামে থাকতে চায় না। গ্রামাঞ্চলের অধিকাংশ মানুষ যেহেতু খালিপায়ে চলাফেরা করে, তাদের চিকিৎসার জন্য এই ডাক্তারদের 'খালিপদ ডাক্তার' আখ্যা দেওয়া হয়েছিল। প্রথমে ঠিক ছিল এই কোর্স যারা পাশ করবে তারা কমিউনিটি ফিজিশিয়ান আখ্যা পাবে। উচ্চ মাধ্যমিকের নম্বরের ভিত্তিতেই এই কোর্সে ভর্তি করা হয়েছিল এবং এই ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনের চাপে সরকার চাকরির প্রতিশ্রুতি দিতে বাধ্য হয়েছিল। কিন্তু মূলত সমাজের উঁচুতলার প্রবল বিরোধিতার মুখে সরকার পাশ করা ডাক্তারদের নথিভুক্তিকরণের (রেজিস্ট্রেশনের) ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হয় এবং তিনটে ব্যাচের পর কোর্স বন্ধ করে দেয়। শুধুমাত্র গ্রামাঞ্চলে স্বাস্থ্যকেন্দ্রেই ডাক্তারি করা যাবে এবং কোন প্রাইভেট প্র্যাক্টিশ করা যাবে না, এমনই বিজ্ঞাপন সরকার দিয়েছিল এবং সেইমত ছাত্রছাত্রীরা ভর্ত্তি হয়েছিল। গ্রামাঞ্চলে কম খরচে ডাক্তারি পরিষেবা দেওয়ার একটা প্রচেষ্টা তখন সরকারের তরফে নেওয়া হয়েছিল। আবার সেইরকম একটি কোর্স চালু করার প্রচেষ্টা রাজ্য সরকার নিচ্ছে। বিরোধিতাও হচ্ছে। সরকারের যুক্তি এবং বিরোধিতার যুক্তি প্রায় একই রকম আছে। উভয়ের যুক্তির লক্ষ্য গ্রামাঞ্চলের গরিবদের চিকিৎসার পরিষেবা। বিরোধীদের যুক্তি, এই কোর্সের মাধ্যমে গ্রামের ডাক্তার তৈরির অর্থ হল, গ্রামাঞ্চলের জন্য আধা স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং শহরের জন্য পুরা। গ্রামাঞ্চলের জনগণকে আসলে বঞ্চিত করা হবে। প্রথমবার কোর্স চালু করেও ডাক্তারি নথিভুক্তিকরণের ব্যবস্থা সরকার করতে পারেনি। করার খুব জোরালো চেষ্টাও করেনি। এমনকী আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের বিরুদ্ধেই দাঁড়িয়েছিল। ছাত্রছাত্রীরা পাশ করে বেরিয়ে আসার পর প্রথম হাইকোর্টে, তারপর সুপ্রিম কোর্টে লড়ে। শেষ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্ট নথিভুক্তিকরণের পক্ষে রায় দেয়। এবং বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিল এদের নথিভুক্ত করতে বাধ্য হয়। সুপ্রিম কোর্টের এই রায় বিভিন্ন রাজ্য সরকারকে, এমনকী কেন্দ্রীয় সরকারকে সংক্ষিপ্ত ডাক্তারি কোর্স খুলতে উৎসাহিত করে। ১৯৮৮ সালে তৃতীয় তথা শেষ ব্যাচ বেরিয়ে আসার পর ২০০৩-০৪ সালে সবাই নথিভুক্ত হয়। সুপ্রিম কোর্টের রায়টির জোরেই পশ্চিমবঙ্গ সরকার পুনরায় এই কোর্স চালু করতে পারছে।
Romanized Version
পশ্চিমবঙ্গে সংক্ষিপ্ত ডাক্তারি কোর্সের প্রথম ব্যাচ ভর্তি হয়েছিল ১৯৮০ সালে। এই কোর্স চালু করার পেছনে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে যুক্তি ছিল, গ্রামাঞ্চলে গরিব জনসাধারণের চিকিৎসার জন্য এই কোর্স চালু করা হয়েছে। কারণ, এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তাররা গ্রামে থাকতে চায় না। গ্রামাঞ্চলের অধিকাংশ মানুষ যেহেতু খালিপায়ে চলাফেরা করে, তাদের চিকিৎসার জন্য এই ডাক্তারদের 'খালিপদ ডাক্তার' আখ্যা দেওয়া হয়েছিল। প্রথমে ঠিক ছিল এই কোর্স যারা পাশ করবে তারা কমিউনিটি ফিজিশিয়ান আখ্যা পাবে। উচ্চ মাধ্যমিকের নম্বরের ভিত্তিতেই এই কোর্সে ভর্তি করা হয়েছিল এবং এই ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনের চাপে সরকার চাকরির প্রতিশ্রুতি দিতে বাধ্য হয়েছিল। কিন্তু মূলত সমাজের উঁচুতলার প্রবল বিরোধিতার মুখে সরকার পাশ করা ডাক্তারদের নথিভুক্তিকরণের (রেজিস্ট্রেশনের) ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হয় এবং তিনটে ব্যাচের পর কোর্স বন্ধ করে দেয়। শুধুমাত্র গ্রামাঞ্চলে স্বাস্থ্যকেন্দ্রেই ডাক্তারি করা যাবে এবং কোন প্রাইভেট প্র্যাক্টিশ করা যাবে না, এমনই বিজ্ঞাপন সরকার দিয়েছিল এবং সেইমত ছাত্রছাত্রীরা ভর্ত্তি হয়েছিল। গ্রামাঞ্চলে কম খরচে ডাক্তারি পরিষেবা দেওয়ার একটা প্রচেষ্টা তখন সরকারের তরফে নেওয়া হয়েছিল। আবার সেইরকম একটি কোর্স চালু করার প্রচেষ্টা রাজ্য সরকার নিচ্ছে। বিরোধিতাও হচ্ছে। সরকারের যুক্তি এবং বিরোধিতার যুক্তি প্রায় একই রকম আছে। উভয়ের যুক্তির লক্ষ্য গ্রামাঞ্চলের গরিবদের চিকিৎসার পরিষেবা। বিরোধীদের যুক্তি, এই কোর্সের মাধ্যমে গ্রামের ডাক্তার তৈরির অর্থ হল, গ্রামাঞ্চলের জন্য আধা স্বাস্থ্য পরিষেবা এবং শহরের জন্য পুরা। গ্রামাঞ্চলের জনগণকে আসলে বঞ্চিত করা হবে। প্রথমবার কোর্স চালু করেও ডাক্তারি নথিভুক্তিকরণের ব্যবস্থা সরকার করতে পারেনি। করার খুব জোরালো চেষ্টাও করেনি। এমনকী আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের বিরুদ্ধেই দাঁড়িয়েছিল। ছাত্রছাত্রীরা পাশ করে বেরিয়ে আসার পর প্রথম হাইকোর্টে, তারপর সুপ্রিম কোর্টে লড়ে। শেষ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্ট নথিভুক্তিকরণের পক্ষে রায় দেয়। এবং বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিল এদের নথিভুক্ত করতে বাধ্য হয়। সুপ্রিম কোর্টের এই রায় বিভিন্ন রাজ্য সরকারকে, এমনকী কেন্দ্রীয় সরকারকে সংক্ষিপ্ত ডাক্তারি কোর্স খুলতে উৎসাহিত করে। ১৯৮৮ সালে তৃতীয় তথা শেষ ব্যাচ বেরিয়ে আসার পর ২০০৩-০৪ সালে সবাই নথিভুক্ত হয়। সুপ্রিম কোর্টের রায়টির জোরেই পশ্চিমবঙ্গ সরকার পুনরায় এই কোর্স চালু করতে পারছে। Pashchimabange Sankshipta Daktari Korser Pratham Batch Bharti Hayechhil 1980 Sale AE Course Chalu Karar Pechhne Rajya Sorcerer Tarf Theke Jukti Chhil Gramanchale Garib Janasadharner Chikitsar Janya AE Course Chalu Kara Hayechhe Karan MBBS Pash Kara Daktarara Grame Thakte Say Na Gramanchaler Adhikangsh Manus Jehetu Khalipaye Chalafera Kare Tader Chikitsar Janya AE Daktarader Khalipad Daktar Akhya Dewa Hayechhil Prathame Thik Chhil AE Course Jara Pash Karabe Tara Kamiuniti Physician Akhya Pabe Uchch Madhyamiker Nambarer Bhittitei AE Korse Bharti Kara Hayechhil Evan AE Chhatrachhatrider Andolaner Chape Sarkar Chakrir Pratishruti Dite Badhya Hayechhil Kintu Mulat Samajer Unchutlar Prabal Birodhitar Mukhe Sarkar Pash Kara Daktarader Nathibhuktikaraner Rejistreshaner Byabastha Karate Byartha Hay Evan Tinte Byacher Par Course Bandh Kare Dey Shudhumatra Gramanchale Swasthyakendrei Daktari Kara Jabe Evan Koun Pvt Pryaktish Kara Jabe Na Emanai Bigyapan Sarkar Diyechhil Evan Seimat Chhatrachhatrira Bhartti Hayechhil Gramanchale Com Kharache Daktari Parisheba Dewar Ekata Pracheshta Takhan Sorcerer Tarafe Newa Hayechhil Abar Seirakam Ekati Course Chalu Karar Pracheshta Rajya Sarkar Nichchhe Birodhitao Hachchhe Sorcerer Jukti Evan Birodhitar Jukti Pray Ekai Rakam Ache Ubhayer Juktir Lakshya Gramanchaler Garibder Chikitsar Parisheba Birodhider Jukti AE Korser Madhyame Gramer Daktar Tairir Earth Hall Gramanchaler Janya Adha Swasthya Parisheba Evan Shaharer Janya Pura Gramanchaler Janaganake Ashley Banchit Kara Habe Prathamabar Course Chalu Kareo Daktari Nathibhuktikaraner Byabastha Sarkar Karate Pareni Karar Khub Joralo Cheshtao Kareni Emanaki Andolanarat Chhatra Chhatrider Biruddhei Danriyechhil Chhatrachhatrira Pash Kare Beriye Asar Par Pratham Haikorte Tarapar Supreme Korte Lare Sesh Parjanta Supreme Court Nathibhuktikaraner Pakshe Rai Dey Evan Bengal Medical Council Eder Nathibhukta Karate Badhya Hay Supreme Korter AE Rai Bibhinna Rajya Sarakarke Emanaki Kendriya Sarakarke Sankshipta Daktari Course Khulte Utsahit Kare 1988 Sale Tritiya Tatha Sesh Batch Beriye Asar Par 2003 04 Sale Sabai Nathibhukta Hay Supreme Korter Raytir Jorei Pashchimabanga Sarkar Punray AE Course Chalu Karate Parchhe
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bibhinna Daktari Course,Various Medical Courses,


vokalandroid