আইন প্রণয়ন করেন কে? ...

আইনপ্রণয়নের উদ্দেশ্যে সংসদে আনীত প্রত্যেকটি প্রস্তাব বিল আকারে উত্থাপিত হইবে। সংসদ কর্তৃক কোন বিল গৃহীত হইলে সম্মতির জন্য তাহা রাষ্ট্রপতির নিকট আইন প্রনয়নের ক্ষমতা কার পেশ করিতে হইবে। আইন প্রণয়ন করেন কে রাষ্ট্রপতির নিকট কোন বিল পেশ আইন প্রণয়ন করেন কে করিবার পর পনর দিনের মধ্যে তিনি তাহাতে সম্মতিদান করিবেন কিংবা অর্থবিল ব্যতীত অন্য কোন বিলের ক্ষেত্রে বিলটি বা আইন প্রনয়নের আইন প্রণয়ন করেন কে ক্ষমতা কার তাহার কোন বিশেষ বিধান পুনর্বিবেচনার কিংবা রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নির্দেশিত কোন সংশোধনী বিবেচনার অনুরোধ জ্ঞাপন করিয়া আইন প্রণয়ন করেন কে একটি আইন প্রনয়নের ক্ষমতা কার বার্তাসহ তিনি বিলটি সংসদে ফেরত দিতে পারিবেন; এবং রাষ্ট্রপতি তাহা করিতে অসমর্থ হইলে উক্ত মেয়াদের অবসানে তিনি বিলটিতে সম্মতিদান করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবে।] রাষ্ট্রপতি যদি বিলটি অনুরূপভাবে সংসদে ফেরত পাঠান, তাহা হইলে সংসদ রাষ্টপতির বার্তাসহ তাহা পুনর্বিবেচনা করিবেন; এবং সংশোধনীসহ বা সংশোধনী ব্যতিরেকে ২[ ***] সংসদ পুনরায় বিলটি গ্রহণ করিলে সম্মতির জন্য আইন প্রনয়নের ক্ষমতা কার তাহা রাষ্ট্রপতির নিকট উপস্থাপিত হইবে এবং অনুরূপ উপস্থাপনের সাত দিনের মধ্যে তিনি বিলটিতে সম্মতিদান করিবেন; এবং রাষ্ট্রপতি তাহা করিতে অসমর্থ হইলে উক্ত মেয়াদের অবসানে তিনি বিলটিতে সম্মতিদান করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবে। সংসদ কর্তৃক গৃহীত বিলটিতে রাষ্ট্রপতি সম্মতিদান করিলে বা তিনি সম্মতিদান করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইলে তাহা আইনে পরিণত হইবে এবং সংসদের আইন বলিয়া অভিহিত হইবে।
Romanized Version
আইনপ্রণয়নের উদ্দেশ্যে সংসদে আনীত প্রত্যেকটি প্রস্তাব বিল আকারে উত্থাপিত হইবে। সংসদ কর্তৃক কোন বিল গৃহীত হইলে সম্মতির জন্য তাহা রাষ্ট্রপতির নিকট আইন প্রনয়নের ক্ষমতা কার পেশ করিতে হইবে। আইন প্রণয়ন করেন কে রাষ্ট্রপতির নিকট কোন বিল পেশ আইন প্রণয়ন করেন কে করিবার পর পনর দিনের মধ্যে তিনি তাহাতে সম্মতিদান করিবেন কিংবা অর্থবিল ব্যতীত অন্য কোন বিলের ক্ষেত্রে বিলটি বা আইন প্রনয়নের আইন প্রণয়ন করেন কে ক্ষমতা কার তাহার কোন বিশেষ বিধান পুনর্বিবেচনার কিংবা রাষ্ট্রপতি কর্তৃক নির্দেশিত কোন সংশোধনী বিবেচনার অনুরোধ জ্ঞাপন করিয়া আইন প্রণয়ন করেন কে একটি আইন প্রনয়নের ক্ষমতা কার বার্তাসহ তিনি বিলটি সংসদে ফেরত দিতে পারিবেন; এবং রাষ্ট্রপতি তাহা করিতে অসমর্থ হইলে উক্ত মেয়াদের অবসানে তিনি বিলটিতে সম্মতিদান করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবে।] রাষ্ট্রপতি যদি বিলটি অনুরূপভাবে সংসদে ফেরত পাঠান, তাহা হইলে সংসদ রাষ্টপতির বার্তাসহ তাহা পুনর্বিবেচনা করিবেন; এবং সংশোধনীসহ বা সংশোধনী ব্যতিরেকে ২[ ***] সংসদ পুনরায় বিলটি গ্রহণ করিলে সম্মতির জন্য আইন প্রনয়নের ক্ষমতা কার তাহা রাষ্ট্রপতির নিকট উপস্থাপিত হইবে এবং অনুরূপ উপস্থাপনের সাত দিনের মধ্যে তিনি বিলটিতে সম্মতিদান করিবেন; এবং রাষ্ট্রপতি তাহা করিতে অসমর্থ হইলে উক্ত মেয়াদের অবসানে তিনি বিলটিতে সম্মতিদান করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবে। সংসদ কর্তৃক গৃহীত বিলটিতে রাষ্ট্রপতি সম্মতিদান করিলে বা তিনি সম্মতিদান করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইলে তাহা আইনে পরিণত হইবে এবং সংসদের আইন বলিয়া অভিহিত হইবে। Ainapranayaner Uddeshye Sansade Anita Pratyekati Prastab Bill Akare Utthapit Haibe Sansad Kartrik Koun Bill Grihit Haile Sammatir Janya Taha Rashtrapatir Nikat Ain Pranayaner Xamata Car Paes Karite Haibe Ain Pranayan Curren K Rashtrapatir Nikat Koun Bill Paes Ain Pranayan Curren K Karibar Par Panar Diner Madhye Tini Tahate Sammatidan Kariben Kingba Arthabil Byatit Anya Koun Biler Xetre Bilti Ba Ain Pranayaner Ain Pranayan Curren K Xamata Car Tahar Koun Vishesha Bidhan Punarbibechnar Kingba Rashtrapati Kartrik Nirdeshit Koun Sangshodhani Bibechnar Anurodh Gyapan Kariya Ain Pranayan Curren K Ekati Ain Pranayaner Xamata Car Bartasah Tini Bilti Sansade Ferat Dite Pariben Evan Rashtrapati Taha Karite Asamartha Haile Ukta Meyader Abasane Tini Biltite Sammatidan Kariyachhen BALIA Ganya Haibe Rashtrapati Jodi Bilti Anurupbhabe Sansade Ferat Pathan Taha Haile Sansad Rashtapatir Bartasah Taha Punarbibechna Kariben Evan Sangshodhnisah Ba Sangshodhani Byatireke 2 ***] Sansad Punray Bilti Grahan Karile Sammatir Janya Ain Pranayaner Xamata Car Taha Rashtrapatir Nikat Upasthapit Haibe Evan Anurup Upasthapaner Saat Diner Madhye Tini Biltite Sammatidan Kariben Evan Rashtrapati Taha Karite Asamartha Haile Ukta Meyader Abasane Tini Biltite Sammatidan Kariyachhen BALIA Ganya Haibe Sansad Kartrik Grihit Biltite Rashtrapati Sammatidan Karile Ba Tini Sammatidan Kariyachhen BALIA Ganya Haile Taha Aine Parinat Haibe Evan Sansader Ain BALIA Abhihit Haibe
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

আইন ও বিধিমালার আলোকে প্রতিটি মন্ত্রণালয় কোন নির্দেশিকা প্রণয়ন করেছে ? ...

তথ্য অবমুক্তকরণ নীতিমালা হলো তথ্য অধিকার আইন, বিধিমালা ও প্রবিধানমালাসমূহের আলোকে প্রণীত কোনো কর্তৃপক্ষের অভ্যমত্মরীণ নীতিমালা, যা অনুসরণ করে কর্তৃপক্ষ ... পাশাপাশি তথ্যের শ্রেণিবিভাগ করে কোন তথ্য স্বजवाब पढ़िये
ques_icon

কখন বাংলাদেশের সর্বপ্রথম জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন করা হয়? ...

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর শিক্ষানীতি প্রণয়নের জন্য সরকার অধ্যাপক কবীর চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করেছিল। কমিটির প্রতিবেদনের পর বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার আরও মতামত নেয়ার জন্য সেটি ওয়েবসাইটে প্রजवाब पढ़िये
ques_icon

More Answers


আইন প্রণয়ন করেন কে : আইন প্রণয়ন করেন আইনসভা। আইন প্রণয়ন সংসদের মাধ্যমে আইন প্রণয়নের বিষয়টি ১৭৭৩ সাল পর্যন্ত এদেশের মানুষের কাছে অপরিচিত ছিল। ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ১৭৭৩ সালে গভর্নর জেনারেল-ইন-কাউন্সিলকে বিধি প্রণয়নের ক্ষমতা এবং ১৮৮৩ সাল থেকে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের পদ্ধতি অনুসরণ করে আইন প্রণয়নের ক্ষমতা প্রদান করে। ১৮৬১ সাল থেকে শুরু করে ১৯৪৭ সালে ভারতে ব্রিটিশ শাসন অবসানের পূর্ব পর্যন্ত কেন্দ্রীয় এবং প্রাদেশিক আইন পরিষদ যথাক্রমে কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক বিষয়ে আইন প্রণয়ন করে আসছিল। পরবর্তী সময়ে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত শাসনতন্ত্রের অধীনে নির্বাচিত সংসদ আইন পাশ করত। ১৯৭২ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের শাসনতন্ত্র বলবৎ হবার পর আইন প্রণয়নের জন্য ভোটের মাধ্যমে জাতীয় সংসদ নির্বাচিত হয়। প্রায় সব বিল উত্থাপন করে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। খুব অল্পসংখ্যক বেসরকারি সদস্যের বিল সংসদীয় বিধিবিধান অনুযায়ী সংসদের কোনো সদস্য দ্বারা উত্থাপন করা হয়। সাধারণত সংশিষ্ট মন্ত্রণালয় নীতিনির্দেশনা সংক্রান্ত নথিপত্র তৈরি করে এবং একটি প্রাথমিক বিলের খসড়া তৈরি করে সারাংশসহ বিলের খসড়া ক্যাবিনেট মিটিংয়ে অনুমোদনের জন্য ক্যাবিনেট ডিভিশনে প্রেরণ করা হয়। ক্যাবিনেটের অনুমোদনের পর যে মন্ত্রণালয় এ বিল উত্থাপন করেছে সেই মন্ত্রনালয়কে বিলের চুড়ান্ত খসড়া তৈরি করার নির্দেশ দেওয়া হয় এবং ক্যাবিনেট তা বিবেচনা করে দেখেন। তারপর আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় উদ্যোক্তা মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে হয় একটা চূড়ান্ত খসড়া বিল তৈরি করবে নয়ত খসড়া বিলটি পুঙ্খানুপুঙ্খ খতিয়ে দেখবে। তারপর চূড়ান্ত খসড়া বিল অথবা খতিয়ে দেখা বিল উদ্যোক্তা মন্ত্রণালয়ের কাছে পাঠানো হয় এবং অনুমোদন প্রাপ্তির পর এটাকে সংসদ সচিবালয়ে পাঠানো হয়। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ড্রাফট বিল পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য ল’কমিশনে পাঠাতে পারে এবং কমিশনের প্রতিবেদন পাওয়ার পর বিলটি কমিশনের পরামর্শ অনুযায়ী পরিমার্জন করা হয়। এ বিলটি উদ্দ্যোক্তা মন্ত্রণালয়ের নিকট পাঠানোর আগে এ কাজ সম্পন্ন করা হয়। কোনো অর্থ বিল (কর ধার্যের প্রস্তাব, সরকারি তহবিল থেকে ব্যয় অথবা অন্যান্য আর্থিক বিষয়) রাষ্ট্রপতির অনমোদন ব্যতিরেকে জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা যায় না। মহামান্য রাষ্ট্রপতির সুপারিশের পর স্পীকার বিলটিকে সংসদে উপস্থাপনের জন্য তারিখ নির্ধারণ করেন। বিলটি সংসদে উপস্থাপনের পূর্বে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী সংসদ-সদস্যদের ওই বিলের কপি প্রদান করেন। বিল উপস্থাপনকে ফার্স্ট রিডিং বলা হয়। তারপর এ বিলটির উপর বিশদ আলোচনার জন্য আরেকটি তারিখ ধার্য্য করা হয় যাকে বিলের সেকেন্ড রিডিং বলে অভিহিত করা হয়। এ পর্যায়ে বিলের উপর আলোচনা হতে পারে অথবা একটি স্থায়ী কমিটি অথবা বাছাই কমিটির কাছে পাঠানো অথবা জনমত যাচাইয়ের জন্য প্রচার করা যেতে পারে। কমিটি রিপোর্টসহ বিলটিকে সংসদে পাঠাবে। এরকম রিপোর্টসহ বিলটি বিবেচনার জন্য রাখা হয়। বিলটি গৃহীত হলে স্পীকার ভোটের জন্য সংসদে পেশ করেন। বিলটিতে যদি কোনো সংশোধনী আনার প্রস্তাব করা হয় এবং ভোটে দেওয়া হয় তখন সংশোধিত বিলটি সংসদে বিবেচনার জন্য পেশ করা হয়। সেকেন্ড রিডিংয়ের পর যদি কোনো বিল পাশ হয় তাহলে একে থার্ড রিডিং বলা হয়। কোনো বিল পাশ হতে হলে উপস্থিত সংসদ-সদস্যদের অধিকাংশের ভোটের প্রয়োজন। বিল পাস হওয়ার পর স্পীকার এতে স্বাক্ষর দান করেন। এরপর বিলটি রাষ্ট্রপতির সম্মতির জন্য পাঠানো হয়। রাষ্ট্রপতির সম্মতির পর বিলটি জাতীয় সংসদের একটি আইন হিসেবে সরকারি গেজেটে ছাপা হয়।
Romanized Version
আইন প্রণয়ন করেন কে : আইন প্রণয়ন করেন আইনসভা। আইন প্রণয়ন সংসদের মাধ্যমে আইন প্রণয়নের বিষয়টি ১৭৭৩ সাল পর্যন্ত এদেশের মানুষের কাছে অপরিচিত ছিল। ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ১৭৭৩ সালে গভর্নর জেনারেল-ইন-কাউন্সিলকে বিধি প্রণয়নের ক্ষমতা এবং ১৮৮৩ সাল থেকে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের পদ্ধতি অনুসরণ করে আইন প্রণয়নের ক্ষমতা প্রদান করে। ১৮৬১ সাল থেকে শুরু করে ১৯৪৭ সালে ভারতে ব্রিটিশ শাসন অবসানের পূর্ব পর্যন্ত কেন্দ্রীয় এবং প্রাদেশিক আইন পরিষদ যথাক্রমে কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক বিষয়ে আইন প্রণয়ন করে আসছিল। পরবর্তী সময়ে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত শাসনতন্ত্রের অধীনে নির্বাচিত সংসদ আইন পাশ করত। ১৯৭২ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের শাসনতন্ত্র বলবৎ হবার পর আইন প্রণয়নের জন্য ভোটের মাধ্যমে জাতীয় সংসদ নির্বাচিত হয়। প্রায় সব বিল উত্থাপন করে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। খুব অল্পসংখ্যক বেসরকারি সদস্যের বিল সংসদীয় বিধিবিধান অনুযায়ী সংসদের কোনো সদস্য দ্বারা উত্থাপন করা হয়। সাধারণত সংশিষ্ট মন্ত্রণালয় নীতিনির্দেশনা সংক্রান্ত নথিপত্র তৈরি করে এবং একটি প্রাথমিক বিলের খসড়া তৈরি করে সারাংশসহ বিলের খসড়া ক্যাবিনেট মিটিংয়ে অনুমোদনের জন্য ক্যাবিনেট ডিভিশনে প্রেরণ করা হয়। ক্যাবিনেটের অনুমোদনের পর যে মন্ত্রণালয় এ বিল উত্থাপন করেছে সেই মন্ত্রনালয়কে বিলের চুড়ান্ত খসড়া তৈরি করার নির্দেশ দেওয়া হয় এবং ক্যাবিনেট তা বিবেচনা করে দেখেন। তারপর আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় উদ্যোক্তা মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে হয় একটা চূড়ান্ত খসড়া বিল তৈরি করবে নয়ত খসড়া বিলটি পুঙ্খানুপুঙ্খ খতিয়ে দেখবে। তারপর চূড়ান্ত খসড়া বিল অথবা খতিয়ে দেখা বিল উদ্যোক্তা মন্ত্রণালয়ের কাছে পাঠানো হয় এবং অনুমোদন প্রাপ্তির পর এটাকে সংসদ সচিবালয়ে পাঠানো হয়। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ড্রাফট বিল পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য ল’কমিশনে পাঠাতে পারে এবং কমিশনের প্রতিবেদন পাওয়ার পর বিলটি কমিশনের পরামর্শ অনুযায়ী পরিমার্জন করা হয়। এ বিলটি উদ্দ্যোক্তা মন্ত্রণালয়ের নিকট পাঠানোর আগে এ কাজ সম্পন্ন করা হয়। কোনো অর্থ বিল (কর ধার্যের প্রস্তাব, সরকারি তহবিল থেকে ব্যয় অথবা অন্যান্য আর্থিক বিষয়) রাষ্ট্রপতির অনমোদন ব্যতিরেকে জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা যায় না। মহামান্য রাষ্ট্রপতির সুপারিশের পর স্পীকার বিলটিকে সংসদে উপস্থাপনের জন্য তারিখ নির্ধারণ করেন। বিলটি সংসদে উপস্থাপনের পূর্বে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী সংসদ-সদস্যদের ওই বিলের কপি প্রদান করেন। বিল উপস্থাপনকে ফার্স্ট রিডিং বলা হয়। তারপর এ বিলটির উপর বিশদ আলোচনার জন্য আরেকটি তারিখ ধার্য্য করা হয় যাকে বিলের সেকেন্ড রিডিং বলে অভিহিত করা হয়। এ পর্যায়ে বিলের উপর আলোচনা হতে পারে অথবা একটি স্থায়ী কমিটি অথবা বাছাই কমিটির কাছে পাঠানো অথবা জনমত যাচাইয়ের জন্য প্রচার করা যেতে পারে। কমিটি রিপোর্টসহ বিলটিকে সংসদে পাঠাবে। এরকম রিপোর্টসহ বিলটি বিবেচনার জন্য রাখা হয়। বিলটি গৃহীত হলে স্পীকার ভোটের জন্য সংসদে পেশ করেন। বিলটিতে যদি কোনো সংশোধনী আনার প্রস্তাব করা হয় এবং ভোটে দেওয়া হয় তখন সংশোধিত বিলটি সংসদে বিবেচনার জন্য পেশ করা হয়। সেকেন্ড রিডিংয়ের পর যদি কোনো বিল পাশ হয় তাহলে একে থার্ড রিডিং বলা হয়। কোনো বিল পাশ হতে হলে উপস্থিত সংসদ-সদস্যদের অধিকাংশের ভোটের প্রয়োজন। বিল পাস হওয়ার পর স্পীকার এতে স্বাক্ষর দান করেন। এরপর বিলটি রাষ্ট্রপতির সম্মতির জন্য পাঠানো হয়। রাষ্ট্রপতির সম্মতির পর বিলটি জাতীয় সংসদের একটি আইন হিসেবে সরকারি গেজেটে ছাপা হয়।Ain Pranayan Curren K : Ain Pranayan Curren Ainasabha Ain Pranayan Sansader Madhyame Ain Pranayaner Bishayati 1773 Saala Parjanta Edesher Manusher Kachhe Aparichit Chhil British Parliament 1773 Sale Gov Jenarel In Kaunsilake Bidhi Pranayaner Xamata Evan 1883 Saala Theke British Parlamenter Paddhati Anusaran Kare Ain Pranayaner Xamata Pradan Kare 1861 Saala Theke Shuru Kare 1947 Sale Bharte British Hasn Abasaner Purba Parjanta Kendriya Evan Pradeshik Ain Parishad Jathakrame Kendriya O Pradeshik Bishye Ain Pranayan Kare Asachhil Parabarti Samaye 1971 Saala Parjanta Shasanatantrer Adhine Nirbachit Sansad Ain Pash Karat 1972 Saler 16 Disembar Bangladesher Shasanatantra Balabt Habar Par Ain Pranayaner Janya Bhoter Madhyame Jatiya Sansad Nirbachit Hay Pray Sab Bill Utthapan Kare Sorcerer Sangshlishta Mantranalay Khub Alpasankhyak Besarakari Sadasyer Bill Sansadiya Bidhibidhan Anujayi Sansader Kono Sadasya Dwara Utthapan Kara Hay Sadharanat Sangshishta Mantranalay Nitinirdeshana Sankranta Nathipatra Tairi Kare Evan Ekati Prathamik Biler Khasara Tairi Kare Sarangshasah Biler Khasara Cabinet Mitingye Anumodner Janya Cabinet Dibhishane Preran Kara Hay Kyabineter Anumodner Par Je Mantranalay A Bill Utthapan Karechhe Sei Mantranalayake Biler Churanta Khasara Tairi Karar Nirdesh Dewa Hay Evan Cabinet Ta Bibechana Kare Dekhen Tarapar Ain Bichar O Sansad Bishayak Mantranalay Udyokta Mantranalyer Anurodhe Hay Ekata Churanta Khasara Bill Tairi Karabe Nayat Khasara Bilti Punkhanupunkha Khatiye Dekhbe Tarapar Churanta Khasara Bill Athaba Khatiye Dekha Bill Udyokta Mantranalyer Kachhe Pathano Hay Evan Anumodan Praptir Par Etake Sansad Sachibalye Pathano Hay Ain Bichar O Sansad Bishayak Mantranalay Drafat Bill Pariksha Nirikshar Janya Lokamishne Pathate Pare Evan Kamishner Pratibedan Pawar Par Bilti Kamishner Paramarsh Anujayi Parimarjan Kara Hay A Bilti Uddyokta Mantranalyer Nikat Pathanor Age A Kaj Sampann Kara Hay Kono Earth Bill Cor Dharjer Prastab Sarakari Tahabil Theke Byay Athaba Anyanya Arthik Bishay Rashtrapatir Anamodan Byatireke Jatiya Sansade Upasthapan Kara Jay Na Mahamanya Rashtrapatir Suparisher Par Speaker Biltike Sansade Upasthapaner Janya Tarikh Nirdharan Curren Bilti Sansade Upasthapaner Purbe Sangshlishta Mantri Sansad Sadasyader We Biler Copy Pradan Curren Bill Upasthapanake First Reading Bala Hay Tarapar A Biltir Upar Bishad Alochnar Janya Arekati Tarikh Dharjya Kara Hay Jake Biler Second Reading Ble Abhihit Kara Hay A Parjaye Biler Upar Alochana Hate Pare Athaba Ekati Sthayi Kamiti Athaba Bachhai Kamitir Kachhe Pathano Athaba Janamat Jachaiyer Janya Prachar Kara Jete Pare Kamiti Riportasah Biltike Sansade Pathabe Erakam Riportasah Bilti Bibechnar Janya Rakha Hay Bilti Grihit Hale Speaker Bhoter Janya Sansade Paes Curren Biltite Jodi Kono Sangshodhani Anar Prastab Kara Hay Evan Bhote Dewa Hay Takhan Sangshodhit Bilti Sansade Bibechnar Janya Paes Kara Hay Second Ridingyer Par Jodi Kono Bill Pash Hay Tahle Aka Third Reading Bala Hay Kono Bill Pash Hate Hale Upasthit Sansad Sadasyader Adhikangsher Bhoter Prayojan Bill Pass Hwar Par Speaker Ete Swakshar Dan Curren Erapar Bilti Rashtrapatir Sammatir Janya Pathano Hay Rashtrapatir Sammatir Par Bilti Jatiya Sansader Ekati Ain Hisebe Sarakari Gejete Chhapa Hay
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Ain Pranayan Koren Ke,Who Is The Law?,


vokalandroid