ওয়াজের বিষয়সমূহ কি? ...

বয়ানের মধ্যে তারগীবী কথার সাথে যে পাঁচটি বিষয় ফরযে আইন তথা: আক্কাইদ, ইবাদাত, মু'আমালাত (লেন-দেন), মু'আশারাত (সামাজিকতা) এবং আখলাক (আত্মশুদ্ধি) তার উপর আলোচনা রাখবে। এরজন্য ওয়ায়েজীনদের মধ্যে ওয়াজের বিষয় বস্তু বন্টন করে দেয়া ভাল। (সূরায়ে বাকারা:১৭৭, বুখারী শরীফ হাঃ নং ৫০, মুসলিম শরীফ হাঃ নং ৯) ।এমনকি ইসলামপূর্ব যুগেও যুগে যুগে মনীষী ও পণ্ডিতদের পক্ষ থেকে জনসাধারণের প্রতি ওয়াজ-নসিহতের বিষয়টি পাওয়া যায়। কোরআনে কারিমে ইরশাদ ... ওয়াজের বিষয়. ওয়াজ যেন দ্বিন ও শরিয়তের বিভিন্ন শাখা থেকে যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে হয়ে থাকে। অপ্রয়োজনীয় ও বেহুদা হাসি-মজায় যেন সময় নষ্ট না হয়।ওয়াজ-মাহফিল যেহেতু একটি দ্বীনি বিষয়, তাই দ্বীনের অন্যান্য বিষয়ের মতো এক্ষেত্রেও রাসূল (সা.) সাহাবায়ে কেরাম ... বক্ষমান নিবন্ধে ওয়াজের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য ও বর্তমান প্রেক্ষিত নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হলো। হাদিসের আলোকে বলা যায় যে, ওয়াজের উদ্দেশ্য হবে মানুষকে ইহ-পরকালীন কল্যাণের পথনির্দেশ করে আল্লাহর সন্তুষ্টি হাসিল করা।
Romanized Version
বয়ানের মধ্যে তারগীবী কথার সাথে যে পাঁচটি বিষয় ফরযে আইন তথা: আক্কাইদ, ইবাদাত, মু'আমালাত (লেন-দেন), মু'আশারাত (সামাজিকতা) এবং আখলাক (আত্মশুদ্ধি) তার উপর আলোচনা রাখবে। এরজন্য ওয়ায়েজীনদের মধ্যে ওয়াজের বিষয় বস্তু বন্টন করে দেয়া ভাল। (সূরায়ে বাকারা:১৭৭, বুখারী শরীফ হাঃ নং ৫০, মুসলিম শরীফ হাঃ নং ৯) ।এমনকি ইসলামপূর্ব যুগেও যুগে যুগে মনীষী ও পণ্ডিতদের পক্ষ থেকে জনসাধারণের প্রতি ওয়াজ-নসিহতের বিষয়টি পাওয়া যায়। কোরআনে কারিমে ইরশাদ ... ওয়াজের বিষয়. ওয়াজ যেন দ্বিন ও শরিয়তের বিভিন্ন শাখা থেকে যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে হয়ে থাকে। অপ্রয়োজনীয় ও বেহুদা হাসি-মজায় যেন সময় নষ্ট না হয়।ওয়াজ-মাহফিল যেহেতু একটি দ্বীনি বিষয়, তাই দ্বীনের অন্যান্য বিষয়ের মতো এক্ষেত্রেও রাসূল (সা.) সাহাবায়ে কেরাম ... বক্ষমান নিবন্ধে ওয়াজের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য ও বর্তমান প্রেক্ষিত নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হলো। হাদিসের আলোকে বলা যায় যে, ওয়াজের উদ্দেশ্য হবে মানুষকে ইহ-পরকালীন কল্যাণের পথনির্দেশ করে আল্লাহর সন্তুষ্টি হাসিল করা।Bayaner Madhye Targibi Kathar Sathe Je Panchati Bishay Faraje Ain Tatha Akkaid Ibadat Mu Amalat Laen Than Mu Asharat Samajikta Evan Akhalak Atmashuddhi Taur Upar Alochana Rakhbe Erajanya Wayejinder Madhye Wajer Bishay Bastu Bantan Kare Deya Bhal Suraye Bakara 177 Bukhari Shareef Hah Nong 50 Muslim Shareef Hah Nong 9 Emanaki Isalampurba Jugeo Juge Juge Manishi O Panditader Pax Theke Janasadharner Prati Waj Nasihter Bishayati Pawa Jay Korane Karime Irashad ... Wajer Bishay Waj Jen Dwin O Shariyter Bibhinna Shakha Theke Jekono Gurutbapurna Bishye Haye Thake Aprayojniya O Behuda Hasi Majay Jen Samay Nashta Na Hay Waj Mahfil Jehetu Ekati Dwini Bishay Tai Dwiner Anyanya Bishyer Mato Ekshetreo Rasul Sa Sahabaye Keram ... Bakshaman Nibandhe Wajer Lakshya Uddeshya O Bartaman Prekshit Niye Sankshipta Alochana Kara Holo Hadiser Aloke Bala Jay Je Wajer Uddeshya Habe Manushake Yh Parakalin Kalyaner Pathanirdesh Kare Allahar Santushti Hasil Kara
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


ওয়াজের বিষয় : ওয়াজ-মাহফিল করার বিষয়সমূহ : ওয়াজ-নসিহত করা অর্থাৎ উপদেশ দেওয়া একটি উত্তম ও মহৎ কাজ। সওয়াব ও পুণ্যের বিষয় হল ওয়াজের বিষয় । উপদেশ দিয়ে কাউকে সৎপথে আনতে পারলে আহ্বানকারীও আমলকারীর অনুরূপ সওয়াব পাবে। পবিত্র কুরআনেও ওয়াজ করার কথা রয়েছে। রাসুলে কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম প্রায়ই ওয়াজ করতেন। সাহাবিদেরকে উপদেশ দিতেন। জীবনের করণীয় ও বর্জনীয় ওয়াজের বিষয় বাতলে দিতেন। প্রয়োজন হলে কোনো ওয়াজের বিষয় সংশোধন করে দিতেন। রাসুল সা. এর পর সাহাবিগণও ওয়াজ করতেন। তাঁদের এ ওয়াজের কোনো নির্দিষ্ট সময় ও স্থান ছিল না। যখন যেখানে যতটুকু প্রয়োজন মনে করেছেন, ততটুকু উপদেশ দিয়েছেন। তবে তাঁরা সাধারণত ফরজ নামাযের পর মসজিদে কোনো দরকারি কথা থাকলে বলে দিতেন, ওয়াজ-নসিহত করতেন। যুদ্ধের ময়দানে, কাউকে বিদায় জানাতে, কারো বাড়িতে গেলে, কারো জানাযায় ইত্যাদি সময়ে কোথাও কোথাও ওয়াজ করেছেন বলে হাদিস ও সিরাতের কিতাবে পাওয়া যায়। কিন্তু ওয়াজের জন্য স্বতন্ত্র কোনো জায়গা বা মাঠ ছিল না। ওয়াজ করা একটি ইবাদতও বটে। রাসুল সা. ও সাহাবায়ে কেরাম এ ইবাদতটি অত্যন্ত নিষ্ঠা ও গুরুত্বের সঙ্গে আদায় করেছেন। ওয়াজ-নসিহত করে তাঁরা কোনো বিনিময় গ্রহণ করতেন না। সুতরাং একজন বিজ্ঞ ব্যক্তি নিজের এবং শ্রোতাদের সুযোগ ও প্রয়োজনমতো যে-কোনো সময় ওয়াজ করতে পারেন। মানুষের প্রয়োজনকে সামনে রেখে দীনের কথা বলাই হচ্ছে ওয়াজ-নসিহত। দাওয়াতের গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হচ্ছে ওয়াজ। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন : ادْعُ إِلَى سَبِيلِ رَبِّكَ بِالْحِكْمَةِ وَالْمَوْعِظَةِ الْحَسَنَةِ وَجَادِلْهُمْ بِالَّتِي هِيَ أَحْسَنُ অর্থ : আপনি মানুষকে আপনার রবের দিকে ডাকুন প্রজ্ঞা ও উত্তম ওয়াজের মাধ্যমে। (প্রয়োজনে) তাদের সঙ্গে উত্তম পন্থায় বিতর্ক করুন। (সূরা নাহল : ১২৫) قَالَ الْعِرْبَاضُ صَلَّى بِنَا رَسُولُ اللَّهِ -صلى الله عليه وسلم- ذَاتَ يَوْمٍ ثُمَّ أَقْبَلَ عَلَيْنَا فَوَعَظَنَا مَوْعِظَةً بَلِيغَةً ذَرَفَتْ مِنْهَا الْعُيُونُ وَوَجِلَتْ مِنْهَا الْقُلُوبُ অর্থ : হযরত ইরবায রা. বলেন, একবার রাসুলে কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদেরকে নিয়ে নামায পড়লেন। অতঃপর আমাদের মুখোমুখি হয়ে অলঙ্কারপূর্ণ ওয়াজ করলেন; ফলে চোখ অশ্রুসজল হয়ে উঠল, অন্তর ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়ল। (সুনানে আবী দাউদ, হাদিস নং- ৪৬০৯) ওয়াজের জন্যে আলাদা মাহফিলেরও তেমন কোনো প্রয়োজন নেই। মসজিদেই ওয়াজ হতে পারে। রাসুল সা. ও সাহাবায়ে কেরাম সাধারণত মসজিদেই ওয়াজ করতেন। হা, মসজিদে জায়গা সঙ্কুলান না হলে বা অন্য কোনো সমস্যা থাকলে বাইরে কোথাও ওয়াজের মাহফিল করতে শরিয়তগত কোনো বাধানিষেধ নেই। ওয়াজ-নসিহত নিরেট একটি পুণ্যের কাজ হলেও আজকে এর ভেতর অনেক অনিষ্টতা প্রবেশ করেছে। ওয়াজ করতে ও করাতে গিয়ে শরিয়তের মেজাজ, চাহিদা, দাবি ও বিধানের প্রতি ভ্রƒক্ষেপ করা হয় না। কোনোভাবে একটি ওয়াজ করাতে পারাকেই সফলতার মানদ- মনে করা হচ্ছে। আমাদের সমাজে প্রচলিত সব ওয়াজ মাহফিলই কি শরিয়তের নিক্তিতে উত্তীর্ণ? আগত ওয়াজের বিষয়গুলো মনোযোগ সহকারে পড়া উচিত।
Romanized Version
ওয়াজের বিষয় : ওয়াজ-মাহফিল করার বিষয়সমূহ : ওয়াজ-নসিহত করা অর্থাৎ উপদেশ দেওয়া একটি উত্তম ও মহৎ কাজ। সওয়াব ও পুণ্যের বিষয় হল ওয়াজের বিষয় । উপদেশ দিয়ে কাউকে সৎপথে আনতে পারলে আহ্বানকারীও আমলকারীর অনুরূপ সওয়াব পাবে। পবিত্র কুরআনেও ওয়াজ করার কথা রয়েছে। রাসুলে কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম প্রায়ই ওয়াজ করতেন। সাহাবিদেরকে উপদেশ দিতেন। জীবনের করণীয় ও বর্জনীয় ওয়াজের বিষয় বাতলে দিতেন। প্রয়োজন হলে কোনো ওয়াজের বিষয় সংশোধন করে দিতেন। রাসুল সা. এর পর সাহাবিগণও ওয়াজ করতেন। তাঁদের এ ওয়াজের কোনো নির্দিষ্ট সময় ও স্থান ছিল না। যখন যেখানে যতটুকু প্রয়োজন মনে করেছেন, ততটুকু উপদেশ দিয়েছেন। তবে তাঁরা সাধারণত ফরজ নামাযের পর মসজিদে কোনো দরকারি কথা থাকলে বলে দিতেন, ওয়াজ-নসিহত করতেন। যুদ্ধের ময়দানে, কাউকে বিদায় জানাতে, কারো বাড়িতে গেলে, কারো জানাযায় ইত্যাদি সময়ে কোথাও কোথাও ওয়াজ করেছেন বলে হাদিস ও সিরাতের কিতাবে পাওয়া যায়। কিন্তু ওয়াজের জন্য স্বতন্ত্র কোনো জায়গা বা মাঠ ছিল না। ওয়াজ করা একটি ইবাদতও বটে। রাসুল সা. ও সাহাবায়ে কেরাম এ ইবাদতটি অত্যন্ত নিষ্ঠা ও গুরুত্বের সঙ্গে আদায় করেছেন। ওয়াজ-নসিহত করে তাঁরা কোনো বিনিময় গ্রহণ করতেন না। সুতরাং একজন বিজ্ঞ ব্যক্তি নিজের এবং শ্রোতাদের সুযোগ ও প্রয়োজনমতো যে-কোনো সময় ওয়াজ করতে পারেন। মানুষের প্রয়োজনকে সামনে রেখে দীনের কথা বলাই হচ্ছে ওয়াজ-নসিহত। দাওয়াতের গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হচ্ছে ওয়াজ। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন : ادْعُ إِلَى سَبِيلِ رَبِّكَ بِالْحِكْمَةِ وَالْمَوْعِظَةِ الْحَسَنَةِ وَجَادِلْهُمْ بِالَّتِي هِيَ أَحْسَنُ অর্থ : আপনি মানুষকে আপনার রবের দিকে ডাকুন প্রজ্ঞা ও উত্তম ওয়াজের মাধ্যমে। (প্রয়োজনে) তাদের সঙ্গে উত্তম পন্থায় বিতর্ক করুন। (সূরা নাহল : ১২৫) قَالَ الْعِرْبَاضُ صَلَّى بِنَا رَسُولُ اللَّهِ -صلى الله عليه وسلم- ذَاتَ يَوْمٍ ثُمَّ أَقْبَلَ عَلَيْنَا فَوَعَظَنَا مَوْعِظَةً بَلِيغَةً ذَرَفَتْ مِنْهَا الْعُيُونُ وَوَجِلَتْ مِنْهَا الْقُلُوبُ অর্থ : হযরত ইরবায রা. বলেন, একবার রাসুলে কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদেরকে নিয়ে নামায পড়লেন। অতঃপর আমাদের মুখোমুখি হয়ে অলঙ্কারপূর্ণ ওয়াজ করলেন; ফলে চোখ অশ্রুসজল হয়ে উঠল, অন্তর ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়ল। (সুনানে আবী দাউদ, হাদিস নং- ৪৬০৯) ওয়াজের জন্যে আলাদা মাহফিলেরও তেমন কোনো প্রয়োজন নেই। মসজিদেই ওয়াজ হতে পারে। রাসুল সা. ও সাহাবায়ে কেরাম সাধারণত মসজিদেই ওয়াজ করতেন। হা, মসজিদে জায়গা সঙ্কুলান না হলে বা অন্য কোনো সমস্যা থাকলে বাইরে কোথাও ওয়াজের মাহফিল করতে শরিয়তগত কোনো বাধানিষেধ নেই। ওয়াজ-নসিহত নিরেট একটি পুণ্যের কাজ হলেও আজকে এর ভেতর অনেক অনিষ্টতা প্রবেশ করেছে। ওয়াজ করতে ও করাতে গিয়ে শরিয়তের মেজাজ, চাহিদা, দাবি ও বিধানের প্রতি ভ্রƒক্ষেপ করা হয় না। কোনোভাবে একটি ওয়াজ করাতে পারাকেই সফলতার মানদ- মনে করা হচ্ছে। আমাদের সমাজে প্রচলিত সব ওয়াজ মাহফিলই কি শরিয়তের নিক্তিতে উত্তীর্ণ? আগত ওয়াজের বিষয়গুলো মনোযোগ সহকারে পড়া উচিত।Wajer Bishay Was Mahfil Karar Bishayasamuh Was Nasihat Kara Arthat Upadesh Dewa Ekati Uttam O Maht Kaj Swab O Punyer Vysya Hall Wajer Bishay Upadesh Diye Kauke Stpathe Anate Parle Ahbanakario Amalakarir Anurup Swab Pabe Pavitra Kuraneo Was Karar Katha Rayechhe Rasule Karim Sallallahu Alaihi Wasallam Prayai Was Karaten Sahabiderke Upadesh Diten Jibner Karaniya O Barjaniya Wajer Bishay Batle Diten Prayojan Hale Kono Wajer Bishay Sangshodhan Kare Diten Rasul Sa Aare Par Sahabiganao Was Karaten Tander A Wajer Kono Nirdishta Camay O Sthan Chhil Na Jakhan Jekhanay Jatatuku Prayojan Money Karechhen Tatatuku Upadesh Diyechhen Tove Tanra Sadharanat Faraj Namajer Par Masajide Kono Darakari Katha Thakle Ble Diten Was Nasihat Karaten Juddher Mayadane Kauke Biday Janate Karo Barite Gele Karo Janajay Ityadi Some Kothao Kothao Was Karechhen Ble Hadis O Sirater Kitabe Powa Jay Kintu Wajer Janya Swatantra Kono Jayga Ba Math Chhil Na Was Kara Ekati Ibadatao Bate Rasul Sa O Sahabaye Keram A Ibadatati Atyanta Nistha O Gurutber Sange Aday Karechhen Was Nasihat Kare Tanra Kono Binimay Grahan Karaten Na Sutarang Ekajan Bigya Byakti Nizar Evan Shrotader Sujog O Prayojanamato Je Kono Camay Was Karate Paren Manusher Prayojanake Samne Rekhe Diner Katha Balai Hachchhe Was Nasihat Dawater Gurutbapurna Madhyam Hachchhe Was Pavitra Kurane Allah Taala Irashad Curren : ادْعُ إِلَى سَبِيلِ رَبِّكَ بِالْحِكْمَةِ وَالْمَوْعِظَةِ الْحَسَنَةِ وَجَادِلْهُمْ بِالَّتِي هِيَ أَحْسَنُ Earth : Apni Manushake Apanar Raber Dike Dakun Pragya O Uttam Wajer Madhyame Prayojane Tader Sange Uttam Panthay Bitark Karoon Sura Nahal : 125 قَالَ الْعِرْبَاضُ صَلَّى بِنَا رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم ذَاتَ يَوْمٍ ثُمَّ أَقْبَلَ عَلَيْنَا فَوَعَظَنَا مَوْعِظَةً بَلِيغَةً ذَرَفَتْ مِنْهَا الْعُيُونُ وَوَجِلَتْ مِنْهَا الْقُلُوبُ Earth : Hajarat Irabaj Ra Baleno Ekabar Rasule Karim Sallallahu Alaihi Wasallam Amaderke Niye Namaj Paralen Atahpar Amader Mukhomukhi Huye Alankarapurna Was Karalen Fale Chokh Ashrusajal Huye Uthal Antar Bhitasantrasta Huye Paral Sunane Abi Daud Hadis Nong 4609 Wajer Janye Alada Mahfilerao Teman Kono Prayojan Nei Masajidei Was Hate Pare Rasul Sa O Sahabaye Keram Sadharanat Masajidei Was Karaten Ha Masajide Jayga Sankulan Na Hale Ba Anya Kono Samasya Thakle Baire Kothao Wajer Mahfil Karate Shariyatagat Kono Badhanishedh Nei Was Nasihat Niret Ekati Punyer Kaj Haleo Ajake Aare Bhetar Anek Anishtata Prabesh Karechhe Was Karate O Karate Giye Shariyter Mejaj Sahida Dabi O Bidhaner Prati Bhraƒxep Kara Hya Na Konobhabe Ekati Was Karate Parakei Safalatar Manad Money Kara Hachchhe Amader Samaje Prachalit Sab Was Mahfilai Ki Shariyter Niktite Uttirna Agatha Wajer Bishayagulo Manojog Sahakare Para Uchit
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Wajer Bishayasamuh Ki,What Are The Things Of Waj,


vokalandroid