বিচারের ব্যবস্থা ...

বিচারের ব্যবস্থা বাংলাদেশের বিচারের বিভাগে রয়েছে উর্দ্ধতন বিচারের বিভাগ সুপ্রীম কোর্ট।এবং অধস্তন বিচারের বিভাগ নিম্ন আদালতসমূহ। সুপ্রীম কোর্ট সুপ্রীম কোর্ট হলো দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এর রয়েছে দুটি বিভাগ, আপীল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ। বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি এবং উভয় বিভাগের অন্যান্য বিচারকদের নিয়ে সুপ্রীম কোর্ট গঠিত। প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারকরা সংবিধানের বিধানাবলি সাপেক্ষে তাদের বিচারিক দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে স্বাধীন। রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শক্রমে প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারককে নিয়োগ দিয়ে থাকেন। সুপ্রীম কোর্টের বিচারকদের সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবীদের মধ্যে থেকে নিয়োগ করা হয়। আপীল বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে আপীল বিভাগে বসেন। আর হাইকোর্ট বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা বসেন হাইকোর্ট বিভাগে।হাইকোর্ট বিভাগের বিচারিক পুনর্বিবেচনার ক্ষমতা রয়েছে। যেকোন সংক্ষুব্ধ ব্যক্তির আবেদনের উপর ভিত্তি করে হাইকোর্ট বিভাগ প্রজাতন্ত্রের বিষয়াবলির সঙ্গে সম্পর্কিত কোনো দায়িত্ব পালনরত ব্যক্তিসহ যেকোন ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষকে সংবিধানে নিশ্চয়তা বিধান করা যেকোন মৌলিক অধিকার বলবৎ করার আদেশ বা নির্দেশ দিতে পারেন। মৌলিক অধিকার বলবৎ করার ক্ষেত্রে হাইকোর্ট বিভাগকে মৌলিক অধিকারের কিম্বা সংবিধানের যেকোন অংশের সঙ্গে সঙ্গতিহীন যেকোন আইনকে সঙ্গতিহীনতা জনিত অসিদ্ধ বা বাতিল ঘোষণা করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগের কোম্পানী, জাহাজ ও সমুদ্র সম্পর্কিত মামলা, বৈবাহিক ইস্যু, ট্রেডমার্ক, কপিরাইট ইত্যাদি সম্পর্কিত মামলায়ও মৌলিক এখতিয়ার রয়েছে। কোনো মামলায় জড়িত সংবিধানের ব্যাখ্যা দেয়ার মতো আইনের গুরুত্বপূর্ণ কোনো প্রশ্ন কিম্বা সাধারণ জনগুরুত্ববপূর্ণ কোনো বিষয় জড়িত থাকলে হাইকোর্ট বিভাগ সেই মামলাটি অধস্তন আদালত থেকে প্রত্যাহার করে নিয়ে নিজ আদালতে নিষ্পত্তি করতে পারে।হাইকোর্ট বিভাগের আপীল নিষ্পত্তি করার এবং মামলা পুনর্বিবেচনা করার আইনবলে প্রাপ্ত এখতিয়ার রয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগ যেখানে সত্যায়ন করে যে মামলায় আইনের এমন এক বড় ধরনের প্রশ্ন জড়িত সেজন্য বাংলাদেশের সংবিধানের ব্যাখ্যা দেয়ার প্রয়োজন আছে কিম্বা যেখানে কোনো ব্যক্তিকে মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত করে অথবা আদালত অবমাননার জন্য শাস্তি আরোপ করে সেখানে হাইকোর্ট বিভাগের দেয়া রায়, ডিক্রি, আদেশ বা দন্ডাদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আপিল করার অধিকার থাকে। বাংলাদেশের সুপ্রীম কোর্টের উভয় বিভাগ হলো কোর্ট অব রেকর্ড বা নথি সংরক্ষণকারী আদালত এবং তাদের আদালত অবমাননা আইন ১৯২৬ এর (এর পরিবর্তে আদালত অবমাননা অধ্যাদেশ ২০০৮, বলবৎ আছে। হাইকোর্ট বিভাগ এই অধ্যাদেশকে অসিদ্ধ বা বাতিল ঘোষণা করেছে। এই বাতিল বিচারের ঘোষণার বিরুদ্ধে একটি আপিল আপিল বিভাগে নিষ্পত্তির অপেক্ষায় আছে।) বিধানাবলি সাপেক্ষে তদন্ত করে যেকোন ব্যক্তিকে আদালত অবমাননার জন্য সাজা দেয়ার ক্ষমতা আছে। আপীল বিচারের বিভাগের ঘোষিত আইন হাইকোর্ট বিভাগের জন্য অবশ্য পালনীয় এবং সুপ্রীম কোর্টের যেকোন বিভাগের ঘোষিত আইন অধস্তন সকল আদালত মেনে চলতে বাধ্য। দেশের শাসন বিভাগীয় ব্যাবস্থা ও বিচার বিভাগীয় সকল কর্তৃপক্ষ সুপ্রীম কোর্টের সাহায্যার্থে কাজ করবে। জাতীয় সংসদ প্রণীত কোনো আইন সাপেক্ষে সুপ্রীম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগ ও আপীল বিভাগের রীতিনীতি ও কার্যপদ্ধতি নিয়ন্ত্রণের জন্য রাষ্ট্রপতির অনুমোদনক্রমে নিয়মবিধি প্রণয়ন করতে পারেন। সুপ্রীম কোর্ট তার কোনো বিভাগের কর্মচারীদের নিয়োগ সম্পর্কিত যেকোন দায়িত্ব এক বা একাধিক বিচারকের হাতে অর্পণ করতে পারেন। কর্মচারীদের চাকরির শর্তাবলি নির্ধারণে জাতীয় সংসদ প্রণীত আইন সাপেক্ষে প্রধান বিচারপতি বা তার ক্ষমতার্পিত অন্য বিচারক বা কর্মকর্তা রাষ্ট্রপতির অনুমোদনক্রমে সুপ্রীম কোর্টের প্রণীত বিধিবিধান অনুযায়ী সুপ্রীম কোর্টের কর্মচারীদের নিয়োগ দিয়ে থাকেন। দেশের সকল অধস্তন আদালত ও আইন বলে গঠিত ট্রাইবুন্যালের উপর হাইকোর্ট বিভাগের তত্ত্বাবধান ও নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। আপীল বিভাগ হাইকোর্ট বিভাগের কিম্বা জাতীয় সংসদ প্রণীত আইনবলে গঠিত অপর কোনো আদালত বা ট্রাইব্যুনালের যথা প্রশাসনিক আপিল ট্রাইব্যুনাল, অর্পিত সম্পত্তি আপিল ট্রাইব্যুনাল বা ভূমি জরিপ আপিল ট্রাইব্যুনালের দেয়া রায়, ডিক্রী, আদেশ বা দন্ডাদেশের বিরুদ্ধে আপীল শুনে থাকেন। আপীল শুনানীর উপরোক্ত ক্ষমতা ছাড়াও রাষ্ট্রপতি জনগুরুত্বসম্পন্ন আইনের যেকোন প্রশ্নে আপীল বিভাগের অভিমত চাইলে সেই অভিমত দেয়ার উপদেষ্টামূলক এখতিয়ার এই বিভাগের রয়েছে।
Romanized Version
বিচারের ব্যবস্থা বাংলাদেশের বিচারের বিভাগে রয়েছে উর্দ্ধতন বিচারের বিভাগ সুপ্রীম কোর্ট।এবং অধস্তন বিচারের বিভাগ নিম্ন আদালতসমূহ। সুপ্রীম কোর্ট সুপ্রীম কোর্ট হলো দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এর রয়েছে দুটি বিভাগ, আপীল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ। বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি এবং উভয় বিভাগের অন্যান্য বিচারকদের নিয়ে সুপ্রীম কোর্ট গঠিত। প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারকরা সংবিধানের বিধানাবলি সাপেক্ষে তাদের বিচারিক দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে স্বাধীন। রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শক্রমে প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারককে নিয়োগ দিয়ে থাকেন। সুপ্রীম কোর্টের বিচারকদের সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবীদের মধ্যে থেকে নিয়োগ করা হয়। আপীল বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে আপীল বিভাগে বসেন। আর হাইকোর্ট বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা বসেন হাইকোর্ট বিভাগে।হাইকোর্ট বিভাগের বিচারিক পুনর্বিবেচনার ক্ষমতা রয়েছে। যেকোন সংক্ষুব্ধ ব্যক্তির আবেদনের উপর ভিত্তি করে হাইকোর্ট বিভাগ প্রজাতন্ত্রের বিষয়াবলির সঙ্গে সম্পর্কিত কোনো দায়িত্ব পালনরত ব্যক্তিসহ যেকোন ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষকে সংবিধানে নিশ্চয়তা বিধান করা যেকোন মৌলিক অধিকার বলবৎ করার আদেশ বা নির্দেশ দিতে পারেন। মৌলিক অধিকার বলবৎ করার ক্ষেত্রে হাইকোর্ট বিভাগকে মৌলিক অধিকারের কিম্বা সংবিধানের যেকোন অংশের সঙ্গে সঙ্গতিহীন যেকোন আইনকে সঙ্গতিহীনতা জনিত অসিদ্ধ বা বাতিল ঘোষণা করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগের কোম্পানী, জাহাজ ও সমুদ্র সম্পর্কিত মামলা, বৈবাহিক ইস্যু, ট্রেডমার্ক, কপিরাইট ইত্যাদি সম্পর্কিত মামলায়ও মৌলিক এখতিয়ার রয়েছে। কোনো মামলায় জড়িত সংবিধানের ব্যাখ্যা দেয়ার মতো আইনের গুরুত্বপূর্ণ কোনো প্রশ্ন কিম্বা সাধারণ জনগুরুত্ববপূর্ণ কোনো বিষয় জড়িত থাকলে হাইকোর্ট বিভাগ সেই মামলাটি অধস্তন আদালত থেকে প্রত্যাহার করে নিয়ে নিজ আদালতে নিষ্পত্তি করতে পারে।হাইকোর্ট বিভাগের আপীল নিষ্পত্তি করার এবং মামলা পুনর্বিবেচনা করার আইনবলে প্রাপ্ত এখতিয়ার রয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগ যেখানে সত্যায়ন করে যে মামলায় আইনের এমন এক বড় ধরনের প্রশ্ন জড়িত সেজন্য বাংলাদেশের সংবিধানের ব্যাখ্যা দেয়ার প্রয়োজন আছে কিম্বা যেখানে কোনো ব্যক্তিকে মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত করে অথবা আদালত অবমাননার জন্য শাস্তি আরোপ করে সেখানে হাইকোর্ট বিভাগের দেয়া রায়, ডিক্রি, আদেশ বা দন্ডাদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আপিল করার অধিকার থাকে। বাংলাদেশের সুপ্রীম কোর্টের উভয় বিভাগ হলো কোর্ট অব রেকর্ড বা নথি সংরক্ষণকারী আদালত এবং তাদের আদালত অবমাননা আইন ১৯২৬ এর (এর পরিবর্তে আদালত অবমাননা অধ্যাদেশ ২০০৮, বলবৎ আছে। হাইকোর্ট বিভাগ এই অধ্যাদেশকে অসিদ্ধ বা বাতিল ঘোষণা করেছে। এই বাতিল বিচারের ঘোষণার বিরুদ্ধে একটি আপিল আপিল বিভাগে নিষ্পত্তির অপেক্ষায় আছে।) বিধানাবলি সাপেক্ষে তদন্ত করে যেকোন ব্যক্তিকে আদালত অবমাননার জন্য সাজা দেয়ার ক্ষমতা আছে। আপীল বিচারের বিভাগের ঘোষিত আইন হাইকোর্ট বিভাগের জন্য অবশ্য পালনীয় এবং সুপ্রীম কোর্টের যেকোন বিভাগের ঘোষিত আইন অধস্তন সকল আদালত মেনে চলতে বাধ্য। দেশের শাসন বিভাগীয় ব্যাবস্থা ও বিচার বিভাগীয় সকল কর্তৃপক্ষ সুপ্রীম কোর্টের সাহায্যার্থে কাজ করবে। জাতীয় সংসদ প্রণীত কোনো আইন সাপেক্ষে সুপ্রীম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগ ও আপীল বিভাগের রীতিনীতি ও কার্যপদ্ধতি নিয়ন্ত্রণের জন্য রাষ্ট্রপতির অনুমোদনক্রমে নিয়মবিধি প্রণয়ন করতে পারেন। সুপ্রীম কোর্ট তার কোনো বিভাগের কর্মচারীদের নিয়োগ সম্পর্কিত যেকোন দায়িত্ব এক বা একাধিক বিচারকের হাতে অর্পণ করতে পারেন। কর্মচারীদের চাকরির শর্তাবলি নির্ধারণে জাতীয় সংসদ প্রণীত আইন সাপেক্ষে প্রধান বিচারপতি বা তার ক্ষমতার্পিত অন্য বিচারক বা কর্মকর্তা রাষ্ট্রপতির অনুমোদনক্রমে সুপ্রীম কোর্টের প্রণীত বিধিবিধান অনুযায়ী সুপ্রীম কোর্টের কর্মচারীদের নিয়োগ দিয়ে থাকেন। দেশের সকল অধস্তন আদালত ও আইন বলে গঠিত ট্রাইবুন্যালের উপর হাইকোর্ট বিভাগের তত্ত্বাবধান ও নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। আপীল বিভাগ হাইকোর্ট বিভাগের কিম্বা জাতীয় সংসদ প্রণীত আইনবলে গঠিত অপর কোনো আদালত বা ট্রাইব্যুনালের যথা প্রশাসনিক আপিল ট্রাইব্যুনাল, অর্পিত সম্পত্তি আপিল ট্রাইব্যুনাল বা ভূমি জরিপ আপিল ট্রাইব্যুনালের দেয়া রায়, ডিক্রী, আদেশ বা দন্ডাদেশের বিরুদ্ধে আপীল শুনে থাকেন। আপীল শুনানীর উপরোক্ত ক্ষমতা ছাড়াও রাষ্ট্রপতি জনগুরুত্বসম্পন্ন আইনের যেকোন প্রশ্নে আপীল বিভাগের অভিমত চাইলে সেই অভিমত দেয়ার উপদেষ্টামূলক এখতিয়ার এই বিভাগের রয়েছে।Bicharer Byabastha Bangladesher Bicharer Bibhage Rayechhe Urddhatan Bicharer Bibhag Supreme Court Evan Adhastan Bicharer Bibhag Nimna Adalatasamuh Supreme Court Supreme Court Holo Desher Sarbochch Adalat Aare Rayechhe Duti Bibhag Apil Bibhag O Haikorta Bibhag Bangladesher Pradhan Bicharapati Evan Ubhay Bibhager Anyanya Bicharakader Niye Supreme Court Gathit Pradhan Bicharapati O Anyanya Bicharakara Sangbidhaner Bidhanabli Sapekshe Tader Bicharik Dayitba Palner Xetre Sweden Rashtrapati Pradhanamantrir Paramarshakrame Pradhan Bicharapati O Anyanya Bicharakake Niyog Diye Thaken Supreme Korter Bicharakader Supreme Korter Ainajibider Madhye Theke Niyog Kara Hay Apil Bibhage Nijukta Bicharakara Pradhan Bicharapatir Sange Apil Bibhage Besan Are Haikorta Bibhage Nijukta Bicharakara Besan Haikorta Bibhage Haikorta Bibhager Bicharik Punarbibechnar Xamata Rayechhe Jekon Sankshubdha Byaktir Abedner Upar Bhitti Kare Haikorta Bibhag Prajatantrer Bishyablir Sange Samparkit Kono Dayitba Palanarat Byaktisah Jekon Byakti Ba Kartripakshake Sangbidhane Nishchayata Bidhan Kara Jekon Maulik Adhikar Balabt Karar Adays Ba Nirdesh Dite Paren Maulik Adhikar Balabt Karar Xetre Haikorta Bibhagake Maulik Adhikarer Kimba Sangbidhaner Jekon Angsher Sange Sangatihin Jekon Ainake Sangatihinta Janit Asiddha Ba Batil Ghoshna Karar Xamata Deya Hayechhe Haikorta Bibhager Company Jahaj O Samudra Samparkit Mamla Baibahik Issue Trademark Copyright Ityadi Samparkit Mamlayao Maulik Ekhatiyar Rayechhe Kono Mamlay Jarit Sangbidhaner Byakhya Deyar Mato Ainer Gurutbapurna Kono Prashna Kimba Sadharan Janagurutbabapurna Kono Bishay Jarit Thakle Haikorta Bibhag Sei Mamlati Adhastan Adalat Theke Pratyahar Kare Niye Nij Adalate Nishpatti Karate Pare Haikorta Bibhager Apil Nishpatti Karar Evan Mamla Punarbibechna Karar Ainabale Prapta Ekhatiyar Rayechhe Haikorta Bibhag Jekhanay Satyayan Kare Je Mamlay Ainer Eman Ec Bar Dharaner Prashna Jarit Sejanya Bangladesher Sangbidhaner Byakhya Deyar Prayojan Ache Kimba Jekhanay Kono Byaktike Mrityudand Ba Jabajjiban Karadande Dandit Kare Athaba Adalat Abamannar Janya Shasti Arop Kare Sekhane Haikorta Bibhager Deya Ray Dikri Adays Ba Dandadesher Biruddhe Apil Bibhage Apil Karar Adhikar Thake Bangladesher Supreme Korter Ubhay Bibhag Holo Court Av Record Ba Nathi Sangrakshanakari Adalat Evan Tader Adalat Abamanna Ain 1926 Aare Aare Paribarte Adalat Abamanna Adhyadesh 2008 Balabt Ache Haikorta Bibhag AE Adhyadeshke Asiddha Ba Batil Ghoshna Karechhe AE Batil Bicharer Ghoshnar Biruddhe Ekati Apil Apil Bibhage Nishpattir Apekshay Ache Bidhanabli Sapekshe Tadanta Kare Jekon Byaktike Adalat Abamannar Janya Saja Deyar Xamata Ache Apil Bicharer Bibhager Ghoshit Ain Haikorta Bibhager Janya Abashya Palniya Evan Supreme Korter Jekon Bibhager Ghoshit Ain Adhastan Sakal Adalat Mene Chalate Badhya Desher Hasn Bibhagiya Byabastha O Bichar Bibhagiya Sakal Kartripaksh Supreme Korter Sahajyarthe Kaj Karabe Jatiya Sansad Pranit Kono Ain Sapekshe Supreme Court Haikorta Bibhag O Apil Bibhager Ritiniti O Karjapaddhati Niyantraner Janya Rashtrapatir Anumodanakrame Niyamabidhi Pranayan Karate Paren Supreme Court Taur Kono Bibhager Karmacharider Niyog Samparkit Jekon Dayitba Ec Ba Ekadhik Bicharker Hate Arpan Karate Paren Karmacharider Chakrir Shartabali Nirdharane Jatiya Sansad Pranit Ain Sapekshe Pradhan Bicharapati Ba Taur Xamatarpit Anya Bicharak Ba Karmakarta Rashtrapatir Anumodanakrame Supreme Korter Pranit Bidhibidhan Anujayi Supreme Korter Karmacharider Niyog Diye Thaken Desher Sakal Adhastan Adalat O Ain Ble Gathit Traibunyaler Upar Haikorta Bibhager Tattbabadhan O Niyantran Rayechhe Apil Bibhag Haikorta Bibhager Kimba Jatiya Sansad Pranit Ainabale Gathit Apr Kono Adalat Ba Traibyunaler Jatha Prashasnik Apil Traibyunal Arpit Humpty Apil Traibyunal Ba Bhoomi Jarip Apil Traibyunaler Deya Ray Decree Adays Ba Dandadesher Biruddhe Apil Shune Thaken Apil Shunanir Uparokta Xamata Chharao Rashtrapati Janagurutbasampanna Ainer Jekon Prashne Apil Bibhager Abhimat Chaile Sei Abhimat Deyar Upadeshtamulak Ekhatiyar AE Bibhager Rayechhe
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


বিচার ব্যবস্থা বাংলাদেশের বিচার বিভাগে রয়েছে উর্দ্ধতন বিচার বিভাগ (সুপ্রীম কোর্ট) এবং অধস্তন বিচার বিভাগ (নিম্ন আদালতসমূহ)। সুপ্রীম কোর্ট সুপ্রীম কোর্ট হলো দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এর রয়েছে দুটি বিভাগ, আপীল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ। বাংলাদেশের প্রধান বিচারের এবং উভয় বিভাগের অন্যান্য বিচারকদের নিয়ে সুপ্রীম কোর্ট গঠিত। প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারকরা সংবিধানের বিধানাবলি সাপেক্ষে তাদের বিচারিক দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে স্বাধীন। রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শক্রমে প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারককে নিয়োগ দিয়ে থাকেন। সুপ্রীম কোর্টের বিচারকদের সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবীদের মধ্যে থেকে নিয়োগ করা হয়। আপীল বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে আপীল বিভাগে বসেন। আর হাইকোর্ট বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা বসেন হাইকোর্ট বিভাগে। হাইকোর্ট বিভাগের বিচারিক পুনর্বিবেচনার ক্ষমতা রয়েছে। যেকোন সংক্ষুব্ধ ব্যক্তির আবেদনের উপর ভিত্তি করে হাইকোর্ট বিভাগ প্রজাতন্ত্রের বিষয়াবলির সঙ্গে সম্পর্কিত কোনো দায়িত্ব পালনরত ব্যক্তিসহ যেকোন ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষকে সংবিধানে নিশ্চয়তা বিধান করা যেকোন মৌলিক অধিকার বলবৎ করার আদেশ বা নির্দেশ দিতে পারেন। মৌলিক অধিকার বলবৎ করার ক্ষেত্রে হাইকোর্ট বিভাগকে মৌলিক অধিকারের কিম্বা সংবিধানের যেকোন অংশের সঙ্গে সঙ্গতিহীন যেকোন আইনকে সঙ্গতিহীনতা জনিত অসিদ্ধ বা বাতিল ঘোষণা করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগের কোম্পানী, জাহাজ ও সমুদ্র সম্পর্কিত মামলা, বৈবাহিক ইস্যু, ট্রেডমার্ক, কপিরাইট ইত্যাদি সম্পর্কিত মামলায়ও মৌলিক এখতিয়ার রয়েছে। কোনো মামলায় জড়িত সংবিধানের ব্যাখ্যা দেয়ার মতো আইনের গুরুত্বপূর্ণ কোনো প্রশ্ন কিম্বা সাধারণ জনগুরুত্ববপূর্ণ কোনো বিষয় জড়িত থাকলে হাইকোর্ট বিভাগ সেই মামলাটি অধস্তন আদালত থেকে প্রত্যাহার করে নিয়ে নিজ আদালতে নিষ্পত্তি করতে পারে।
Romanized Version
বিচার ব্যবস্থা বাংলাদেশের বিচার বিভাগে রয়েছে উর্দ্ধতন বিচার বিভাগ (সুপ্রীম কোর্ট) এবং অধস্তন বিচার বিভাগ (নিম্ন আদালতসমূহ)। সুপ্রীম কোর্ট সুপ্রীম কোর্ট হলো দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এর রয়েছে দুটি বিভাগ, আপীল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ। বাংলাদেশের প্রধান বিচারের এবং উভয় বিভাগের অন্যান্য বিচারকদের নিয়ে সুপ্রীম কোর্ট গঠিত। প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারকরা সংবিধানের বিধানাবলি সাপেক্ষে তাদের বিচারিক দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে স্বাধীন। রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শক্রমে প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারককে নিয়োগ দিয়ে থাকেন। সুপ্রীম কোর্টের বিচারকদের সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবীদের মধ্যে থেকে নিয়োগ করা হয়। আপীল বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে আপীল বিভাগে বসেন। আর হাইকোর্ট বিভাগে নিযুক্ত বিচারকরা বসেন হাইকোর্ট বিভাগে। হাইকোর্ট বিভাগের বিচারিক পুনর্বিবেচনার ক্ষমতা রয়েছে। যেকোন সংক্ষুব্ধ ব্যক্তির আবেদনের উপর ভিত্তি করে হাইকোর্ট বিভাগ প্রজাতন্ত্রের বিষয়াবলির সঙ্গে সম্পর্কিত কোনো দায়িত্ব পালনরত ব্যক্তিসহ যেকোন ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষকে সংবিধানে নিশ্চয়তা বিধান করা যেকোন মৌলিক অধিকার বলবৎ করার আদেশ বা নির্দেশ দিতে পারেন। মৌলিক অধিকার বলবৎ করার ক্ষেত্রে হাইকোর্ট বিভাগকে মৌলিক অধিকারের কিম্বা সংবিধানের যেকোন অংশের সঙ্গে সঙ্গতিহীন যেকোন আইনকে সঙ্গতিহীনতা জনিত অসিদ্ধ বা বাতিল ঘোষণা করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। হাইকোর্ট বিভাগের কোম্পানী, জাহাজ ও সমুদ্র সম্পর্কিত মামলা, বৈবাহিক ইস্যু, ট্রেডমার্ক, কপিরাইট ইত্যাদি সম্পর্কিত মামলায়ও মৌলিক এখতিয়ার রয়েছে। কোনো মামলায় জড়িত সংবিধানের ব্যাখ্যা দেয়ার মতো আইনের গুরুত্বপূর্ণ কোনো প্রশ্ন কিম্বা সাধারণ জনগুরুত্ববপূর্ণ কোনো বিষয় জড়িত থাকলে হাইকোর্ট বিভাগ সেই মামলাটি অধস্তন আদালত থেকে প্রত্যাহার করে নিয়ে নিজ আদালতে নিষ্পত্তি করতে পারে।Bichar Byabastha Bangladesher Bichar Bibhage Rayechhe Urddhatan Bichar Bibhag Supreme Court Evan Adhastan Bichar Bibhag Nimna Adalatasamuh Supreme Court Supreme Court Holo Desher Sarbochch Adalat Aare Rayechhe Duti Bibhag Apil Bibhag O Haikorta Bibhag Bangladesher Pradhan Bicharer Evan Ubhay Bibhager Anyanya Bicharakader Niye Supreme Court Gathit Pradhan Bicharapati O Anyanya Bicharakara Sangbidhaner Bidhanabli Sapekshe Tader Bicharik Dayitba Palner Xetre Sweden Rashtrapati Pradhanamantrir Paramarshakrame Pradhan Bicharapati O Anyanya Bicharakake Niyog Diye Thaken Supreme Korter Bicharakader Supreme Korter Ainajibider Madhye Theke Niyog Kara Hay Apil Bibhage Nijukta Bicharakara Pradhan Bicharapatir Sange Apil Bibhage Besan Are Haikorta Bibhage Nijukta Bicharakara Besan Haikorta Bibhage Haikorta Bibhager Bicharik Punarbibechnar Xamata Rayechhe Jekon Sankshubdha Byaktir Abedner Upar Bhitti Kare Haikorta Bibhag Prajatantrer Bishyablir Sange Samparkit Kono Dayitba Palanarat Byaktisah Jekon Byakti Ba Kartripakshake Sangbidhane Nishchayata Bidhan Kara Jekon Maulik Adhikar Balabt Karar Adays Ba Nirdesh Dite Paren Maulik Adhikar Balabt Karar Xetre Haikorta Bibhagake Maulik Adhikarer Kimba Sangbidhaner Jekon Angsher Sange Sangatihin Jekon Ainake Sangatihinta Janit Asiddha Ba Batil Ghoshna Karar Xamata Deya Hayechhe Haikorta Bibhager Company Jahaj O Samudra Samparkit Mamla Baibahik Issue Trademark Copyright Ityadi Samparkit Mamlayao Maulik Ekhatiyar Rayechhe Kono Mamlay Jarit Sangbidhaner Byakhya Deyar Mato Ainer Gurutbapurna Kono Prashna Kimba Sadharan Janagurutbabapurna Kono Bishay Jarit Thakle Haikorta Bibhag Sei Mamlati Adhastan Adalat Theke Pratyahar Kare Niye Nij Adalate Nishpatti Karate Pare
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bicharer Byabastha,Trial System,


vokalandroid