বিজ্ঞান এবং কুরআন সামঞ্জস্যপূর্ণ না অসামঞ্জস্যপূর্ণ? ...

বিজ্ঞান এবং কুরআন ভূপৃষ্টে মানুষের অস্তিত্বের প্রথম দিন থেকেই তারা প্রকৃতিকে বুঝতে চেয়েছে, সৃষ্টি পরিকল্পনায় নিজেদের মর্যাদা এবং জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। সত্য ধারাবাহিকতায় শত শত বছরব্যাপী বিভিন্ন সভ্যতার মধ্য দিয়ে সুসংবদ্ধ ধর্ম মানবজীবনকে সুসংগঠিত এবং ইতিহাসের গতি নির্ধারণ করেছে। কিছু ধর্ম তো লিখিত পুস্তক আকারে আছে এবং অনুরাগীরা সে গুলোকে ঐশী প্রত্যাদেশ হিসেবে দাবী করে।আর কিছু ধর্ম আছে যেগুলো কেবল মাত্র মানবিক অভিজ্ঞতার ফসল। ইসলামী বিশ্বাসের মূল উৎস হচ্ছে, আল-কোরাআন। মুসলমানরা বিশ্বাস করে যে,এটা আল্লাহ পক্ষ থেকে এসেছে এবং তা গোটা মানব জাতির জন্য হেদায়েত। কোরআন যেহেতু সকল যুগের জন্য,তাই তা সকল যুগের জন্যই সামঞ্জস্যপণ্য। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে,কোরআন কিসে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। আমি এ পুস্তিকায় কোরআনের ঐশী উৎসের আলোকে প্রতিষ্ঠিত বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের নিরীখে মুসলমানের ধর্মীয় বিশ্বাসের বস্তুনিষ্ঠ ব্যাখ্যা দিতে চাই। বিশ্ব সভ্যতার ইতিহাসে এমন সময় অতিবাহিত হয়েছে যখন ‘অলৌকিকতা’ অথবা ‘অনুভূত অলৌকিকতা’ মানবিক যুক্তি ও কারণের উপর অগ্রগণ্য ছিল। ‘অলৌকিকতা’র সাধারন সংজ্ঞা হল, যা স্বাভাবিক নিয়ম বহিভূর্ত এবং মানুষের কাছে যার কোন ব্যাখ্যা নেই। কোন ‘অলৌকিক’ বিষয়কে গ্রহণ করার আগে আমাদেরকে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে। ১৯৯৩ সনে মোম্বাই থেকে প্রকাশিত‘The Times of india’পত্রিকা লিখেছে,‘বাবা পাইলট’ নামক এক ব্যক্তি পানির রিজার্ভারের নীচের একাধারে তিন্তদিন ও রাত কাটানোর দাবী করে। সাংবাদিকরা সে রিজার্ভারটির তলদেশ পরীক্ষার দাবী জানালে সে তাদেরকে অনুমতি দিতে অস্বীকার করে। তার যুক্তি ছিল,যে মা সন্তান প্রসব করে, সে মায়ের পেট কিভাবে পরীক্ষা করা যায়? এখানে ‘সাধু’ ব্যক্তিটি অবশ্যই কিছু লুকানোর চেষ্টা করেছে। সে আত্ম প্রকাশের লক্ষ্য প্রতারণার কৌশল গ্রহণ করেছে। কোন আধুনিক ব্যক্তি কিংবা সামান্যতম যৌক্তিক চিন্তার অধিকারী লোকও এ জাতীয়‘অলৌকিকতা'কে গ্রহণ করতে পারেনা। এজাতীয় মিথ্যা অলৌকিকতা যদি ঐশী পরীক্ষা হয় তাহলে,বিশ্বের যাদু কৌশল ও মিথ্যার রূপকার প্রসিদ্ধ যাদুকরদেরকে সত্যিকার আল্লাহভক্ত মানুষ হিসেবে গ্রহণ করতে হবে। ঐশী গ্রন্থ অবশ্যই অলৌকিক হবে। এজাতীয় দাবী যুগের অবস্থাভেদে পরীক্ষাযোগ্য হওয়া উচিত। মুসলমানরা বিশ্বাস করে যে,কোরআন আল্লাহর পক্ষ থেকে মানবতার প্রতি দয়া হিসেবে নাযিলকৃত সর্বশেষ গ্রহ্ন যা অলৌকিকতার সেরা। এখন আমার এই বিশ্বাসের যথার্থতা পরীক্ষা করে দেখবো। ১. কোরআনের চ্যালেঞ্জ সকল সংস্কৃতিতে,সাহিত্য ও কবিতা মানুষের ভাব প্রকাশ ও সৃজনশীলতার হাতিয়ার। সাহিত্য ও কবিতা বিশ্বে এক সময় গর্বের মর্যাদা লাভ করেছিল যা বর্তমান যুগে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি লাভ করেছে। এমনকি অমুসলিম পন্ডিতেরা পর্যন্ত স্বীকার করেছে যে, কোরআন হল সর্বোৎকৃষ্ট আরবী সাহিত্য। ভূপ্রষ্ঠে এর চাইতে শ্রেষ্ঠ সাহিত্য দ্বিতীয়টি নেই। কোরআন মানবজাতিকে এরূপ গ্রন্থ আবিষ্কারের চ্যালেঞ্জ দিয়েছে। আল্লাহ বলেনঃ ‘আমি আমার বান্দার প্রতি যা নাযিল করেছি, এ বিষয়ে যদি তোমাদের কোন সন্দেহ থাকে,তাহলে এর মত একটি সূরা রচনা করে নিয়ে আস।আল্লাহ ছাড়া তোমাদের সাহায্যকারীদেরকেও সাথে নাও- যদি তোমরা সত্যবাদী হয়ে থাক।আর যদি তা না পার,অবশ্য তোমরা তা কখনও পারবেনা,তাহলে,সে দোযখের আগুন থেকে পানা চাও,যার জ্বালানী হবে মানুষ ও পাথর। সূরা বাকারা-২৩-২৪ কোরআন তার যে কোন একটি মাত্র সূরার মত অনুরূপ আরেকটি সূরা তৈরির চ্যালেঞ্জ দিয়েছে। কোরআনে বহুবার একই ধরণের চ্যালেঞ্জের পুনরাবৃত্তিও হয়েছে। বর্তমান কাল পর্যন্ত কোরআনের সূরার মত সৌন্দর্য, অলংকার, গভীরতা ও অর্থের দিক থেকে সমমানের আরেকটি সূরা চ্যালেঞ্জ অপূরণকৃত রয়ে গেছে।বর্তমান যুগের কোন লোক পৃথিবী চেপ্টা এ মর্মে সর্বোত্তম কাব্যিক ভঙ্গীতে কোন ধর্মীয় পুস্তকের বক্তব্যকে মেনে নেবে না। কেননা, আমরা যে যুগে বাস করছি, সে যুগে মানবিক কারন, যুক্তি ও বিজ্ঞানকে প্রাধান্য দেয়া হয়। কোরআনের অতি চমকপ্রদ ও সুন্দর ভাষার জন্য অনেকেই একে ঐশী গ্রন্থ হিসাবে মেনে নিতে চাইবে না। কোন ঐশী গ্রন্থের দাবীদার কে অবশ্যই যুক্তি ও কারণের শক্তির দিক থেকে ও গ্রহণযোগ্য হতে হবে। প্রখ্যাত নোবেল পুরস্কার বিজয়ী পদার্থ বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনেষ্টাইন বলেছেনঃ বিজ্ঞান ছাড়া ধর্ম অন্ধ। আসুন আমরা কোরআন নিয়ে গবেষনা চালাই যে,তা বজ্ঞানের সাথে সামজ্ঞস্যপূর্ন না অসামজ্ঞস্যপূন্য। কোরআন কোন বিজ্ঞান গ্রন্থ নয়, বরং নিদর্শন গ্রন্থ। এতে ৬ হাজার নিদর্শন (আয়াত) আছে। এক হাজারেরও বেশী আয়াত বিজ্ঞানের মূল বিষয় বসতু নিয়ে আলোচনা করেছে। আমরা সকলে জানি যে, বিজ্ঞান অনেক সময় সিদ্বান্ত পরিবর্তন করে। এই পুস্তিকায় আমি কেবল বিজ্ঞানের প্রতিষ্ঠিত সত্য (Fact) নিয়ে আলোচনা করবো, কল্পনা বা ধারনার উপর নির্ভরশীল তত্ত্ব নয়, যা প্রমানিত হয়নি।
Romanized Version
বিজ্ঞান এবং কুরআন ভূপৃষ্টে মানুষের অস্তিত্বের প্রথম দিন থেকেই তারা প্রকৃতিকে বুঝতে চেয়েছে, সৃষ্টি পরিকল্পনায় নিজেদের মর্যাদা এবং জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। সত্য ধারাবাহিকতায় শত শত বছরব্যাপী বিভিন্ন সভ্যতার মধ্য দিয়ে সুসংবদ্ধ ধর্ম মানবজীবনকে সুসংগঠিত এবং ইতিহাসের গতি নির্ধারণ করেছে। কিছু ধর্ম তো লিখিত পুস্তক আকারে আছে এবং অনুরাগীরা সে গুলোকে ঐশী প্রত্যাদেশ হিসেবে দাবী করে।আর কিছু ধর্ম আছে যেগুলো কেবল মাত্র মানবিক অভিজ্ঞতার ফসল। ইসলামী বিশ্বাসের মূল উৎস হচ্ছে, আল-কোরাআন। মুসলমানরা বিশ্বাস করে যে,এটা আল্লাহ পক্ষ থেকে এসেছে এবং তা গোটা মানব জাতির জন্য হেদায়েত। কোরআন যেহেতু সকল যুগের জন্য,তাই তা সকল যুগের জন্যই সামঞ্জস্যপণ্য। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে,কোরআন কিসে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। আমি এ পুস্তিকায় কোরআনের ঐশী উৎসের আলোকে প্রতিষ্ঠিত বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের নিরীখে মুসলমানের ধর্মীয় বিশ্বাসের বস্তুনিষ্ঠ ব্যাখ্যা দিতে চাই। বিশ্ব সভ্যতার ইতিহাসে এমন সময় অতিবাহিত হয়েছে যখন ‘অলৌকিকতা’ অথবা ‘অনুভূত অলৌকিকতা’ মানবিক যুক্তি ও কারণের উপর অগ্রগণ্য ছিল। ‘অলৌকিকতা’র সাধারন সংজ্ঞা হল, যা স্বাভাবিক নিয়ম বহিভূর্ত এবং মানুষের কাছে যার কোন ব্যাখ্যা নেই। কোন ‘অলৌকিক’ বিষয়কে গ্রহণ করার আগে আমাদেরকে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে। ১৯৯৩ সনে মোম্বাই থেকে প্রকাশিত‘The Times of india’পত্রিকা লিখেছে,‘বাবা পাইলট’ নামক এক ব্যক্তি পানির রিজার্ভারের নীচের একাধারে তিন্তদিন ও রাত কাটানোর দাবী করে। সাংবাদিকরা সে রিজার্ভারটির তলদেশ পরীক্ষার দাবী জানালে সে তাদেরকে অনুমতি দিতে অস্বীকার করে। তার যুক্তি ছিল,যে মা সন্তান প্রসব করে, সে মায়ের পেট কিভাবে পরীক্ষা করা যায়? এখানে ‘সাধু’ ব্যক্তিটি অবশ্যই কিছু লুকানোর চেষ্টা করেছে। সে আত্ম প্রকাশের লক্ষ্য প্রতারণার কৌশল গ্রহণ করেছে। কোন আধুনিক ব্যক্তি কিংবা সামান্যতম যৌক্তিক চিন্তার অধিকারী লোকও এ জাতীয়‘অলৌকিকতা'কে গ্রহণ করতে পারেনা। এজাতীয় মিথ্যা অলৌকিকতা যদি ঐশী পরীক্ষা হয় তাহলে,বিশ্বের যাদু কৌশল ও মিথ্যার রূপকার প্রসিদ্ধ যাদুকরদেরকে সত্যিকার আল্লাহভক্ত মানুষ হিসেবে গ্রহণ করতে হবে। ঐশী গ্রন্থ অবশ্যই অলৌকিক হবে। এজাতীয় দাবী যুগের অবস্থাভেদে পরীক্ষাযোগ্য হওয়া উচিত। মুসলমানরা বিশ্বাস করে যে,কোরআন আল্লাহর পক্ষ থেকে মানবতার প্রতি দয়া হিসেবে নাযিলকৃত সর্বশেষ গ্রহ্ন যা অলৌকিকতার সেরা। এখন আমার এই বিশ্বাসের যথার্থতা পরীক্ষা করে দেখবো। ১. কোরআনের চ্যালেঞ্জ সকল সংস্কৃতিতে,সাহিত্য ও কবিতা মানুষের ভাব প্রকাশ ও সৃজনশীলতার হাতিয়ার। সাহিত্য ও কবিতা বিশ্বে এক সময় গর্বের মর্যাদা লাভ করেছিল যা বর্তমান যুগে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি লাভ করেছে। এমনকি অমুসলিম পন্ডিতেরা পর্যন্ত স্বীকার করেছে যে, কোরআন হল সর্বোৎকৃষ্ট আরবী সাহিত্য। ভূপ্রষ্ঠে এর চাইতে শ্রেষ্ঠ সাহিত্য দ্বিতীয়টি নেই। কোরআন মানবজাতিকে এরূপ গ্রন্থ আবিষ্কারের চ্যালেঞ্জ দিয়েছে। আল্লাহ বলেনঃ ‘আমি আমার বান্দার প্রতি যা নাযিল করেছি, এ বিষয়ে যদি তোমাদের কোন সন্দেহ থাকে,তাহলে এর মত একটি সূরা রচনা করে নিয়ে আস।আল্লাহ ছাড়া তোমাদের সাহায্যকারীদেরকেও সাথে নাও- যদি তোমরা সত্যবাদী হয়ে থাক।আর যদি তা না পার,অবশ্য তোমরা তা কখনও পারবেনা,তাহলে,সে দোযখের আগুন থেকে পানা চাও,যার জ্বালানী হবে মানুষ ও পাথর। সূরা বাকারা-২৩-২৪ কোরআন তার যে কোন একটি মাত্র সূরার মত অনুরূপ আরেকটি সূরা তৈরির চ্যালেঞ্জ দিয়েছে। কোরআনে বহুবার একই ধরণের চ্যালেঞ্জের পুনরাবৃত্তিও হয়েছে। বর্তমান কাল পর্যন্ত কোরআনের সূরার মত সৌন্দর্য, অলংকার, গভীরতা ও অর্থের দিক থেকে সমমানের আরেকটি সূরা চ্যালেঞ্জ অপূরণকৃত রয়ে গেছে।বর্তমান যুগের কোন লোক পৃথিবী চেপ্টা এ মর্মে সর্বোত্তম কাব্যিক ভঙ্গীতে কোন ধর্মীয় পুস্তকের বক্তব্যকে মেনে নেবে না। কেননা, আমরা যে যুগে বাস করছি, সে যুগে মানবিক কারন, যুক্তি ও বিজ্ঞানকে প্রাধান্য দেয়া হয়। কোরআনের অতি চমকপ্রদ ও সুন্দর ভাষার জন্য অনেকেই একে ঐশী গ্রন্থ হিসাবে মেনে নিতে চাইবে না। কোন ঐশী গ্রন্থের দাবীদার কে অবশ্যই যুক্তি ও কারণের শক্তির দিক থেকে ও গ্রহণযোগ্য হতে হবে। প্রখ্যাত নোবেল পুরস্কার বিজয়ী পদার্থ বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনেষ্টাইন বলেছেনঃ বিজ্ঞান ছাড়া ধর্ম অন্ধ। আসুন আমরা কোরআন নিয়ে গবেষনা চালাই যে,তা বজ্ঞানের সাথে সামজ্ঞস্যপূর্ন না অসামজ্ঞস্যপূন্য। কোরআন কোন বিজ্ঞান গ্রন্থ নয়, বরং নিদর্শন গ্রন্থ। এতে ৬ হাজার নিদর্শন (আয়াত) আছে। এক হাজারেরও বেশী আয়াত বিজ্ঞানের মূল বিষয় বসতু নিয়ে আলোচনা করেছে। আমরা সকলে জানি যে, বিজ্ঞান অনেক সময় সিদ্বান্ত পরিবর্তন করে। এই পুস্তিকায় আমি কেবল বিজ্ঞানের প্রতিষ্ঠিত সত্য (Fact) নিয়ে আলোচনা করবো, কল্পনা বা ধারনার উপর নির্ভরশীল তত্ত্ব নয়, যা প্রমানিত হয়নি। Bigyan Evan Kuran Bhuprishte Manusher Astitber Pratham Dinh Thekei Tara Prakritike Bujhte Cheyechhe Srishti Parikalpanay Nijeder Marjada Evan Jibner Lakshya O Uddeshya SATHYA Dharabahiktay Shat Shat Bachharabyapi Bibhinna Sabhyatar Madhya Diye Susangbaddha Dharm Manabajibanake Susangathit Evan Itihaser Gatti Nirdharan Karechhe Kichhu Dharm Toh Likhit Pustak Akare Ache Evan Anuragira Say Guloke Aishi Pratyadesh Hisebe Dabi Kare Are Kichhu Dharm Ache Jegulo Cable Maatr Manbik Abhigyatar Focal Isalami Bishwaser Mul Uts Hachchhe Al Koraan Musalamanra Biswas Kare Je Etah Allah Pax Theke Esechhe Evan Ta Gutta Menabe Jatir Janya Hedayet Koran Jehetu Sakal Juger Janya Tai Ta Sakal Juger Janyai Samanjasyapanya Kintu Prashna Hachchhe Koran Kissay Parikshay Uttirna Hayechhe Aami A Pustikay Koraner Aishi Utser Aloke Pratishthit Baigyanik Abishkarer Nirikhe Musalamaner Dharmiya Bishwaser Bastunishtha Byakhya Dite Chai Biswa Sabhyatar Itihase Eman Camay Atibahit Hayechhe Jakhan ‘alaukiktao Athaba ‘anubhut Alaukiktao Manbik Jukti O Karner Upar Agraganya Chhil ‘alaukiktaor Sadharan Sanggya Hall Ja Swabhabik Niyam Bahibhurta Evan Manusher Kachhe Jar Koun Byakhya Nei Koun ‘alaukiko Bishayake Grahan Karar Age Amaderke Abashyai Satark Thakte Habe 1993 Sanai Mombai Theke Prakashit‘ Times Of ’patrika Likhechhe ‘baba Pailato Namak Ec Byakti Panir Rijarbharer Nicher Ekadhare Tintadin O Raat Katanor Dabi Kare Sangbadikra Say Rijarbharatir Taladesh Parikshar Dabi Janale Say Taderake Anumati Dite Aswikar Kare Taur Jukti Chhil Je MA Santan Prasab Kare Say Mayer Pet Kibhabe Pariksha Kara Jay Ekhane ‘sadhuo Byaktiti Abashyai Kichhu Lukanor Cheshta Karechhe Say Atma Prakasher Lakshya Pratarnar Kaushal Grahan Karechhe Koun Adhunik Byakti Kingba Samanyatam Jauktik Chintar Adhikari Lokao A Jatiya‘alaukikta K Grahan Karate Parena Ejatiya Mithya Alaukikta Jodi Aishi Pariksha Hay Tahle Bishwer Jadu Kaushal O Mithyar Rupkar Prasiddha Jadukaraderke Satyikar Allahabhakta Manus Hisebe Grahan Karate Habe Aishi Grantha Abashyai Alaukik Habe Ejatiya Dabi Juger Abasthabhede Parikshajogya Hwa Uchit Musalamanra Biswas Kare Je Koran Allahar Pax Theke Manabatar Prati Dua Hisebe Najilkrit Sarbashesh Grahna Ja Alaukiktar SAIRA Ekhan Amar AE Bishwaser Jatharthata Pariksha Kare Dekhbo 1 Koraner Challenge Sakal Sanskritite Sahitya O Kavita Manusher Bhaav Prakash O Srijanashiltar Hatiyar Sahitya O Kavita Bishwe Ec Camay Garber Marjada Love Karechhil Ja Bartaman Juge Bigyan O Prajukti Love Karechhe Emanaki Amuslim Panditera Parjanta Sweekar Karechhe Je Koran Hall Sarbotkrishta RB Sahitya Bhuprashthe Aare Chaite Shrestha Sahitya Dwitiyati Nei Koran Manabajatike Erup Grantha Abishkarer Challenge Diyechhe Allah Balenah ‘ami Amar Bandar Prati Ja Najil Karechhi A Vise Jodi Tomader Koun Sandeh Thake Tahle Aare Matt Ekati Sura Rachana Kare Niye US Allah Chhara Tomader Sahajyakariderkeo Sathe Now Jodi Tomra Satyabadi Huye Thak Are Jodi Ta Na Per Abashya Tomra Ta Kakhanao Parbena Tahle Say Dojkher Agun Theke Pana Chao Jar Jbalani Habe Manus O Puthur Sura Bakara 23 24 Koran Taur Je Koun Ekati Maatr Surar Matt Anurup Arekati Sura Tairir Challenge Diyechhe Korane Bahubar Ekai Dharaner Chyalenjer Punrabrittio Hayechhe Bartaman Kaal Parjanta Koraner Surar Matt Saundarjya Alankar Gabhirata O Arther Dik Theke Samamaner Arekati Sura Challenge Apuranakrit Re Gechhe Bartaman Juger Koun Loka Prithibi Chepta A Marme Sarbottam Kabyik Bhangite Koun Dharmiya Pustaker Baktabyake Mene Nebe Na Kenna Amara Je Juge Bass Karachhi Say Juge Manbik Curran Jukti O Bigyanake Pradhanya Dea Hay Koraner Atti Chamakaprad O Sundar Bhashar Janya Anekei Aka Aishi Grantha Hisabe Mene Nite Chaibe Na Koun Aishi Granther Dabidar K Abashyai Jukti O Karner Shaktir Dik Theke O Grahanajogya Hate Habe Prakhyat Novel Puraskar Bijyi Padartha Bigyani Albert Aineshtain Balechhenah Bigyan Chhara Dharm Unde Asun Amara Koran Niye Gabeshana Chalai Je Ta Bagyaner Sathe Samagyasyapurna Na Asamagyasyapunya Koran Koun Bigyan Grantha Noy Wrong Nidarshan Grantha Ete 6 Hajar Nidarshan Ayat Ache Ec Hajarerao Beshi Ayat Bigyaner Mul Vysya Basatu Niye Alochana Karechhe Amara Sakale JANI Je Bigyan Anek Camay Sidwanta Parivartan Kare AE Pustikay Aami Cable Bigyaner Pratishthit SATHYA (Fact) Niye Alochana Karabo Kalpana Ba Dharnar Upar Nirbharashil Tattva Noy Ja Pramanit Hayani
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


ইসলাম এবং বিজ্ঞান বলতে বুঝানো হয় ইসলাম ধর্ম ও তার অনুগামী মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে বিজ্ঞানের সম্পর্ককে। মুসলিম পণ্ডিতেরা কোরআনে বর্ণিত বিষয়গুলির সাথে বিজ্ঞানীদের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে একটি মতবাদ তৈরি করেছেন । কোরআন মুসলমানদের প্রকৃতি অধ্যয়নের এবং সত্যের তদন্ত করার জন্য উৎসাহ দেয়। মুসলিমরা প্রায়ই সূরা আল-বাকারা থেকে ২৩৫ আয়াত উদ্ধৃত করেন - "তিনি তোমাকে তাই শিখিয়েছেন যা তুমি জানতে না ।" তাদের মতামত এটাই সমর্থন করে যে কোরআন নতুন জ্ঞান অর্জনের জন্য উৎসাহ প্রদান করে । কিছু মুসলিম লেখকদের মতে, বিজ্ঞান অধ্যয়ন তওহীদ থেকে উৎপন্ন হয়েছে । সাধারণত এটি গৃহীত হয় যে কোরআনের প্রায় ৭৫০ টি আয়াত প্রাকৃতিক ঘটনাগুলির সাথে সম্পর্কিত। বিজ্ঞান এবং কুরআন র অনেক আয়াত মানবজাতিকে প্রকৃতি অধ্যয়নের জন্য জোর দিয়েছে , বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের জন্য এটিকে উৎসাহ উদ্দীপক বলে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। সত্যের অনুসন্ধান বিজ্ঞান এবং কুরআন র মূল বার্তাগুলির মধ্যে একটি। ঐতিহাসিক ইসলামি বিজ্ঞানী আল-বেরুনী এবং আল-বাট্টানী বিজ্ঞান এবং কুরআন র আয়াত থেকে অনুপ্রেরণা প্রাপ্ত।
Romanized Version
ইসলাম এবং বিজ্ঞান বলতে বুঝানো হয় ইসলাম ধর্ম ও তার অনুগামী মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে বিজ্ঞানের সম্পর্ককে। মুসলিম পণ্ডিতেরা কোরআনে বর্ণিত বিষয়গুলির সাথে বিজ্ঞানীদের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে একটি মতবাদ তৈরি করেছেন । কোরআন মুসলমানদের প্রকৃতি অধ্যয়নের এবং সত্যের তদন্ত করার জন্য উৎসাহ দেয়। মুসলিমরা প্রায়ই সূরা আল-বাকারা থেকে ২৩৫ আয়াত উদ্ধৃত করেন - "তিনি তোমাকে তাই শিখিয়েছেন যা তুমি জানতে না ।" তাদের মতামত এটাই সমর্থন করে যে কোরআন নতুন জ্ঞান অর্জনের জন্য উৎসাহ প্রদান করে । কিছু মুসলিম লেখকদের মতে, বিজ্ঞান অধ্যয়ন তওহীদ থেকে উৎপন্ন হয়েছে । সাধারণত এটি গৃহীত হয় যে কোরআনের প্রায় ৭৫০ টি আয়াত প্রাকৃতিক ঘটনাগুলির সাথে সম্পর্কিত। বিজ্ঞান এবং কুরআন র অনেক আয়াত মানবজাতিকে প্রকৃতি অধ্যয়নের জন্য জোর দিয়েছে , বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের জন্য এটিকে উৎসাহ উদ্দীপক বলে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। সত্যের অনুসন্ধান বিজ্ঞান এবং কুরআন র মূল বার্তাগুলির মধ্যে একটি। ঐতিহাসিক ইসলামি বিজ্ঞানী আল-বেরুনী এবং আল-বাট্টানী বিজ্ঞান এবং কুরআন র আয়াত থেকে অনুপ্রেরণা প্রাপ্ত।Islam Evan Bigyan Volte Bujhano Hay Islam Dharm O Taur Anugami Musalaman Dharmabalambider Sange Bigyaner Samparkake Muslim Panditera Korane Barnit Bishayagulir Sathe Bigyanider Drishtibhangi Niye Ekati Matabad Tairi Karechhen Koran Musalamander Prakriti Adhyayaner Evan Satyer Tadanta Karar Janya Utsah Dey Muslimra Prayai Sura Al Bakara Theke 235 Ayat Uddhrit Curren - Tini Tomake Tai Shikhiyechhen Ja Tumi Jante Na Tader Matamat Etai Samarthan Kare Je Koran NATUN Gyan Arjaner Janya Utsah Pradan Kare Kichhu Muslim Lekhakader Mate Bigyan Adhyayan Taohid Theke Utpanna Hayechhe Sadharanat AT Grihit Hay Je Koraner Pray 750 Te Ayat Praakritik Ghatanagulir Sathe Samparkit Bigyan Evan Kuran Ra Anek Ayat Manabajatike Prakriti Adhyayaner Janya Jor Diyechhe , Baigyanik Anusandhaner Janya ATK Utsah Uddipak Ble Byakhya Kara Hayechhe Satyer Anusandhan Bigyan Evan Kuran Ra Mul Bartagulir Madhye Ekati Aitihasik Islami Bigyani Al Beruni Evan Al Battani Bigyan Evan Kuran Ra Ayat Theke Anuprerana Prapta
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Bigyan Evan Kuran Samanjasyapurna Na Asamanjasyapurna,Science And Quran Are Consistent Or Not Consistent?,


vokalandroid