অসম রাজ্য সম্পর্কে কিছু লিখ। ...

১৮২৬ সালে ইয়াণ্ডাবু চুক্তির মাধ্যমে আসাম প্রথম ব্রিটিশ ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয়। এ রাজ্য মূলতঃ চা, রেশম, পেট্রোলিয়াম এবং জীববৈচিত্রের জন্য বিখ্যাত। আসাম সাফল্যের সঙ্গে একশৃঙ্গ গণ্ডার সংরক্ষণ করে তাদের অসম রাজ্য অবলুপ্তির হাত থেকে রক্ষা করতে পেরেছে। এছাড়াও এখানে বাঘ, বিভিন্ন প্রজাতির পাখি সংরক্ষিত অসম রাজ্য হয়েছে। এশীয় হাতির অন্যতম বাসস্থান হল আসাম। এ রাজ্যটি বন্যপ্রাণী পর্যটনের ক্ষেত্রে ক্রমেই অসম রাজ্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল হয়ে উঠছে। নামের উৎপত্তি সম্পাদনা পর্বতবাহুল্যবশতঃ ভূমি অসমতল হওয়ায় রাজ্যটি ‘অসম’ (অপভ্রংশে ‘আসাম’) নামে অসম রাজ্য অভিহিত - এ মত কেউ কেউ প্রকাশ করে থাকেন। অপর মতে, ‘অসম’ প্রতাপবিশিষ্ট আহম জাতি কর্তৃক একসময়ে অধিকৃত হওয়ায় রাজ্যটির নাম আসাম হইয়াছে। আসামের অন্যতম নগর কামরূপের প্রাচীন নাম প্রাগ্‌জ্যোতিষপুর। এখানে পৌরাণিক যুগে নরক নামধেয় জনৈক রাজা ছিলেন। তাঁরই পুত্র মহাভারতবর্ণিত ভগদত্ত। তাঁর পরবর্তী রাজগণের নাম যোগিনীতন্ত্রে বর্ণিত হয়েছে। তাঁদের কীর্তি গৌহাটি প্রভৃতি স্থানে এখনও কিংদংশে দৃষ্ট হয়।
Romanized Version
১৮২৬ সালে ইয়াণ্ডাবু চুক্তির মাধ্যমে আসাম প্রথম ব্রিটিশ ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয়। এ রাজ্য মূলতঃ চা, রেশম, পেট্রোলিয়াম এবং জীববৈচিত্রের জন্য বিখ্যাত। আসাম সাফল্যের সঙ্গে একশৃঙ্গ গণ্ডার সংরক্ষণ করে তাদের অসম রাজ্য অবলুপ্তির হাত থেকে রক্ষা করতে পেরেছে। এছাড়াও এখানে বাঘ, বিভিন্ন প্রজাতির পাখি সংরক্ষিত অসম রাজ্য হয়েছে। এশীয় হাতির অন্যতম বাসস্থান হল আসাম। এ রাজ্যটি বন্যপ্রাণী পর্যটনের ক্ষেত্রে ক্রমেই অসম রাজ্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল হয়ে উঠছে। নামের উৎপত্তি সম্পাদনা পর্বতবাহুল্যবশতঃ ভূমি অসমতল হওয়ায় রাজ্যটি ‘অসম’ (অপভ্রংশে ‘আসাম’) নামে অসম রাজ্য অভিহিত - এ মত কেউ কেউ প্রকাশ করে থাকেন। অপর মতে, ‘অসম’ প্রতাপবিশিষ্ট আহম জাতি কর্তৃক একসময়ে অধিকৃত হওয়ায় রাজ্যটির নাম আসাম হইয়াছে। আসামের অন্যতম নগর কামরূপের প্রাচীন নাম প্রাগ্‌জ্যোতিষপুর। এখানে পৌরাণিক যুগে নরক নামধেয় জনৈক রাজা ছিলেন। তাঁরই পুত্র মহাভারতবর্ণিত ভগদত্ত। তাঁর পরবর্তী রাজগণের নাম যোগিনীতন্ত্রে বর্ণিত হয়েছে। তাঁদের কীর্তি গৌহাটি প্রভৃতি স্থানে এখনও কিংদংশে দৃষ্ট হয়।1826 Sale Iyandabu Chuktir Madhyame Asam Pratham British Bharter Antarbhukta Hay A Rajya Mulatah Chau Resum Petroliyam Evan Jibbaichitrer Janya Bikhyat Asam Safalyer Sange Ekashringa Gandar Sangrakshan Kare Tader Acm Rajya Abaluptir Haut Theke Raksha Karate Perechhe Echharao Ekhane Bagh Bibhinna Prajatir Pakhi Sangrakshit Acm Rajya Hayechhe Eshiya Hatir Anyatam Basasthan Hall Asam A Rajyati Banyaprani Parjataner Xetre Kramei Acm Rajya Ekati Gurutbapurna Anchal Haye Uthachhe Namer Utpatti Sampadana Parbatabahulyabashatah Bhoomi Asamatal Hway Rajyati ‘asamo Apabhrangshe ‘asamo Name Acm Rajya Abhihit - A Matt Keu Keu Prakash Kare Thaken Apr Mate ‘asamo Pratapbishishta Aham JATI Kartrik Ekasamaye Adhikrit Hway Rajyatir NAM Asam Haiyachhe Asamer Anyatam Nagar Kamruper Prachin NAM Prag‌jyotishpur Ekhane Pauranik Juge Narok Namdhey Janaik Raja Chhilen Tanrai Putra Mahabharatabarnit Bhagadatta Tanr Parabarti Rajaganer NAM Joginitantre Barnit Hayechhe Tander Kirti Gauhati Prabhriti Sthane Ekhanao Kingdangshe Drishta Hay
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon
500000+ दिलचस्प सवाल जवाब सुनिये 😊

Similar Questions

More Answers


আসাম বা অসম (অসমীয়া: অসম অখ়ম্‌) ভারতবর্ষের উত্তর-পূর্ব সীমান্তে অবস্থিত একটি রাজ্য। আসামের অধিবাসী বা আসামের ভাষাকে অসমীয়া বা ইংরেজিতে Assamese নামে আখ্যায়িত করা হয়। ১৮২৬ সালে ইয়াণ্ডাবু চুক্তির মাধ্যমে অসম রাজ্য প্রথম ব্রিটিশ ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয়। এ রাজ্য মূলতঃ চা, রেশম, পেট্রোলিয়াম এবং জীববৈচিত্রের জন্য বিখ্যাত। আসাম সাফল্যের সঙ্গে একশৃঙ্গ গণ্ডার সংরক্ষণ করে তাদের অবলুপ্তির হাত থেকে রক্ষা করতে পেরেছে। এছাড়াও এখানে বাঘ, বিভিন্ন প্রজাতির পাখি সংরক্ষিত হয়েছে। এশীয় হাতির অন্যতম বাসস্থান হল আসাম। এ রাজ্যটি বন্যপ্রাণী পর্যটনের ক্ষেত্রে ক্রমেই একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল হয়ে উঠছে। ভূ-তত্ত্ববিদেরা ইঙ্গিত করেছেন যে ব্রক্ষপুত্র নদ আসামের পূর্বগামী নদী এবং এটি এখানকার জীবনরেখা হিসাবে মানা হয়। এই নদীটি অরুণাচল প্রদেশ হয়ে এ রাজ্যে প্রবেশ করেছে। রাজ্যে প্রবেশ করার পর নদীটি বিস্তৃত হয়েছে এবং অনেক উপনদী গঠন করেছে। রাজ্যটি পেট্রোলিয়াম, কয়লা, চুনাপাথর এবং প্রাকৃতিক গ্যাস প্রভৃতি সম্পদে সমৃদ্ধ । এছাড়াও অন্যান্য খনিজ যেমন মৃত্তিকা, চৌম্বকীয় কোয়ার্টজাইড, ফেলডসপার, সিলিমিনাইট, চীনামাটি ইত্যাদিও পাওয়া যায়। রাজ্যের পশ্চিম জেলাগুলিতে অল্প পরিমাণ লোহা পাওয়া যায়। রাজ্যের উত্তরদিকে গ্যাস এবং পেট্রোলিয়াম মজুদ আছে, যা ১৮৮৯ খ্রীষ্টাব্দে আবিষ্কৃত হয়। সরকার এবং রাষ্ট্রনীতি অসম রাজ্য তে ২৭টি প্রশাসনিক জেলা রয়েছে, তাদেরকে আরও ৪৯টি উপ বিভাগীয় বিভাগে ভাগ করা হয়েছে, যেগুলিকে অসমিয়াতে মহকুমা বলা হয়। জেলাগুলি তাদের নিজ নিজ সদর দপ্তর দ্বারা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা পঞ্চায়েত দপ্তর, জেলা প্রশাসক এবং জেলা আদালত কর্তৃক শাসিত ও পরিচালিত হয়। পাহাড়, নদী এবং অরণ্য দ্বারা রাজ্যের জেলাগুলির সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। জেলা পঞ্চায়েত দ্বারা এখানকার জেলার স্থানীয় সরকার এবং গ্রাম্য এলাকার দায়িত্ব নেওয়া হয়। তবে, শহর এবং নগরগুলি স্থানীয় শহুরে সংস্থা দ্বারা দেখাশোনা করা হয়। বর্তমানে এই রাজ্যের মধ্যে প্রায় ২৬,২৪৭টি গ্রাম রয়েছে। স্থানীয় শহুরে সংস্থাগুলি হল নগর-সমিতি(টাউন-কমিটি), পৌর-সভা(মিউনিসিপ্যাল বোর্ড) এবং পৌর নিগম(মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন)। আসামের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি শহর হল গুয়াহাটি, নগাঁও, জোড়হাট, ডিব্রুগড়, জোড়হাট এবং শিলচর। এই রাজ্যের রাজস্বের হিসাব রাখার জন্য,২৭টি জেলাকে তাদের উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য বিভিন্ন এলাকায় বিভক্ত করা হয়েছে। অসম রাজ্য চিড়িয়াখানা এবং বোটানিক্যাল গার্ডেনে চলা অনিয়ম ও আর্থিক নয়ছয়ের অভিযোগের তদন্ত করছে দুই সদস্যের একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি। মুখ্য বনসংরক্ষক এবং বনবল ফোর্স ওই কমিটি গঠন করেছে। রাজ্য চিড়িয়াখানার একটি সূত্ৰ দ্য সেন্টিনেলকে জানিয়েছে ওই অভিযোগের বিস্তারিত তদন্ত রিপোর্ট পেশ করতে কমিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সূত্ৰটি আরও বলেছে,রাজ্য চিড়িয়াখানার পরিকাঠামোগত ফাঁকফোকরের অভিযোগ সম্পর্কে কমিটি ইতিমধ্যেই তদন্তের কাজ সম্পূর্ণ করেছে। তবে আর্থিক নয়ছয়ের অভিযোগ সম্পর্কে তদন্ত চলছে। কমিটির রিপোর্ট অনু্যায়ী বিভাগটি এব্যাপারে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্ৰহণ করবে বলে সূত্ৰটি উল্লেখ করেছে।
Romanized Version
আসাম বা অসম (অসমীয়া: অসম অখ়ম্‌) ভারতবর্ষের উত্তর-পূর্ব সীমান্তে অবস্থিত একটি রাজ্য। আসামের অধিবাসী বা আসামের ভাষাকে অসমীয়া বা ইংরেজিতে Assamese নামে আখ্যায়িত করা হয়। ১৮২৬ সালে ইয়াণ্ডাবু চুক্তির মাধ্যমে অসম রাজ্য প্রথম ব্রিটিশ ভারতের অন্তর্ভুক্ত হয়। এ রাজ্য মূলতঃ চা, রেশম, পেট্রোলিয়াম এবং জীববৈচিত্রের জন্য বিখ্যাত। আসাম সাফল্যের সঙ্গে একশৃঙ্গ গণ্ডার সংরক্ষণ করে তাদের অবলুপ্তির হাত থেকে রক্ষা করতে পেরেছে। এছাড়াও এখানে বাঘ, বিভিন্ন প্রজাতির পাখি সংরক্ষিত হয়েছে। এশীয় হাতির অন্যতম বাসস্থান হল আসাম। এ রাজ্যটি বন্যপ্রাণী পর্যটনের ক্ষেত্রে ক্রমেই একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল হয়ে উঠছে। ভূ-তত্ত্ববিদেরা ইঙ্গিত করেছেন যে ব্রক্ষপুত্র নদ আসামের পূর্বগামী নদী এবং এটি এখানকার জীবনরেখা হিসাবে মানা হয়। এই নদীটি অরুণাচল প্রদেশ হয়ে এ রাজ্যে প্রবেশ করেছে। রাজ্যে প্রবেশ করার পর নদীটি বিস্তৃত হয়েছে এবং অনেক উপনদী গঠন করেছে। রাজ্যটি পেট্রোলিয়াম, কয়লা, চুনাপাথর এবং প্রাকৃতিক গ্যাস প্রভৃতি সম্পদে সমৃদ্ধ । এছাড়াও অন্যান্য খনিজ যেমন মৃত্তিকা, চৌম্বকীয় কোয়ার্টজাইড, ফেলডসপার, সিলিমিনাইট, চীনামাটি ইত্যাদিও পাওয়া যায়। রাজ্যের পশ্চিম জেলাগুলিতে অল্প পরিমাণ লোহা পাওয়া যায়। রাজ্যের উত্তরদিকে গ্যাস এবং পেট্রোলিয়াম মজুদ আছে, যা ১৮৮৯ খ্রীষ্টাব্দে আবিষ্কৃত হয়। সরকার এবং রাষ্ট্রনীতি অসম রাজ্য তে ২৭টি প্রশাসনিক জেলা রয়েছে, তাদেরকে আরও ৪৯টি উপ বিভাগীয় বিভাগে ভাগ করা হয়েছে, যেগুলিকে অসমিয়াতে মহকুমা বলা হয়। জেলাগুলি তাদের নিজ নিজ সদর দপ্তর দ্বারা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা পঞ্চায়েত দপ্তর, জেলা প্রশাসক এবং জেলা আদালত কর্তৃক শাসিত ও পরিচালিত হয়। পাহাড়, নদী এবং অরণ্য দ্বারা রাজ্যের জেলাগুলির সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। জেলা পঞ্চায়েত দ্বারা এখানকার জেলার স্থানীয় সরকার এবং গ্রাম্য এলাকার দায়িত্ব নেওয়া হয়। তবে, শহর এবং নগরগুলি স্থানীয় শহুরে সংস্থা দ্বারা দেখাশোনা করা হয়। বর্তমানে এই রাজ্যের মধ্যে প্রায় ২৬,২৪৭টি গ্রাম রয়েছে। স্থানীয় শহুরে সংস্থাগুলি হল নগর-সমিতি(টাউন-কমিটি), পৌর-সভা(মিউনিসিপ্যাল বোর্ড) এবং পৌর নিগম(মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন)। আসামের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি শহর হল গুয়াহাটি, নগাঁও, জোড়হাট, ডিব্রুগড়, জোড়হাট এবং শিলচর। এই রাজ্যের রাজস্বের হিসাব রাখার জন্য,২৭টি জেলাকে তাদের উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য বিভিন্ন এলাকায় বিভক্ত করা হয়েছে। অসম রাজ্য চিড়িয়াখানা এবং বোটানিক্যাল গার্ডেনে চলা অনিয়ম ও আর্থিক নয়ছয়ের অভিযোগের তদন্ত করছে দুই সদস্যের একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি। মুখ্য বনসংরক্ষক এবং বনবল ফোর্স ওই কমিটি গঠন করেছে। রাজ্য চিড়িয়াখানার একটি সূত্ৰ দ্য সেন্টিনেলকে জানিয়েছে ওই অভিযোগের বিস্তারিত তদন্ত রিপোর্ট পেশ করতে কমিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সূত্ৰটি আরও বলেছে,রাজ্য চিড়িয়াখানার পরিকাঠামোগত ফাঁকফোকরের অভিযোগ সম্পর্কে কমিটি ইতিমধ্যেই তদন্তের কাজ সম্পূর্ণ করেছে। তবে আর্থিক নয়ছয়ের অভিযোগ সম্পর্কে তদন্ত চলছে। কমিটির রিপোর্ট অনু্যায়ী বিভাগটি এব্যাপারে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্ৰহণ করবে বলে সূত্ৰটি উল্লেখ করেছে। Asam Ba Acm Asamiya Acm Akh়am‌ Bharatabarsher Uttar Purba Simante Abasthit Ekati Rajya Asamer Adhibasi Ba Asamer Bhashake Asamiya Ba Ingrejite Assamese Name Akhyayit Kara Hay 1826 Sale Iyandabu Chuktir Madhyame Acm Rajya Pratham British Bharter Antarbhukta Hay A Rajya Mulatah Chau Resum Petroliyam Evan Jibbaichitrer Janya Bikhyat Asam Safalyer Sange Ekashringa Gandar Sangrakshan Kare Tader Abaluptir Haut Theke Raksha Karate Perechhe Echharao Ekhane Bagh Bibhinna Prajatir Pakhi Sangrakshit Hayechhe Eshiya Hatir Anyatam Basasthan Hall Asam A Rajyati Banyaprani Parjataner Xetre Kramei Ekati Gurutbapurna Anchal Haye Uthachhe Voo Tattbabidera Ingit Karechhen Je Brakshaputra Nad Asamer Purbagami Nadi Evan AT Ekhankar Jibanarekha Hisabe Mana Hya AE Naditi Arunachal Pradesh Huye A Rajye Prabesh Karechhe Rajye Prabesh Karar Par Naditi Bistrita Hayechhe Evan Anek Upanadi Gathan Karechhe Rajyati Petroleum Kayala Chunapathar Evan Praakritik Gas Prabhriti Sampade Samriddha Echharao Anyanya Khanij Jeman Mrittika Chaumbakiya Kwartajaid Feladasapar Siliminait Chinamati Ityadio Powa Jay Rajyer Pashchim Jelagulite Alpa Pariman LUHA Powa Jay Rajyer Uttaradike Gas Evan Petroleum Majud Ache Ja 1889 Khrishtabde Abishkrit Hya Sarkar Evan Rashtraniti Acm Rajya Tye 27ti Prashasnik Jela Rayechhe Taderake RO 49ti Up Bibhagiya Bibhage Bhag Kara Hayechhe Jegulike Asamiyate Mahakuma Bala Hya Jelaguli Tader Nij Nij Sadar Daptar Dwara Jela Myajistret Jela Panchayat Daptar Jela Prashasak Evan Jela Adalat Kartrik Shasit O Parichalit Hya Pahad Nadi Evan Aranya Dwara Rajyer Jelagulir Seema Nirdharan Kara Hayechhe Jela Panchayat Dwara Ekhankar Jelar Sthaniya Sarkar Evan Gramya Elakar Dayitba Newa Hya Tove Sahor Evan Nagaraguli Sthaniya Shahure Sanstha Dwara Dekhashona Kara Hya Bartamane AE Rajyer Madhye Pray 26 247ti Gram Rayechhe Sthaniya Shahure Sansthaguli Hall Nagar Samiti Town Kamiti Paur Subha Miunisipyal Board Evan Paur Nigam Miunisipyal Corporation Asamer Madhye Gurutbapurna Kayekati Sahor Hall Guyahati Nagano Jorhat Dibrugarh Jorhat Evan Shilachar AE Rajyer Rajaswer Hisab Rakhar Janya 27ti Jelake Tader Unnayan Prakalper Janya Bibhinna Elakay Bibhakta Kara Hayechhe Acm Rajya Chiriyakhana Evan Botanikyal Gardene Chala Aniyam O Arthik Nayachhayer Abhijoger Tadanta Karachhe Dui Sadasyer Ekati Uchch Parjayer Kamiti Mukhya Banasangrakshak Evan Banabal Force We Kamiti Gathan Karechhe Rajya Chiriyakhanar Ekati Sutra The Sentinelke Janiyechhe We Abhijoger Bistarit Tadanta Report Paes Karate Kamitike Nirdesh Dewa Hayechhe Sutrati RO Balechhe Rajya Chiriyakhanar Parikathamogat Fankafokrer Abhijog Samparke Kamiti Itimadhyei Tadanter Kaj Sampurna Karechhe Tove Arthik Nayachhayer Abhijog Samparke Tadanta Chalachhe Kamitir Report Anuyayi Bibhagati Ebyapare Karjakari Byabastha Grohan Karabe Ble Sutrati Ullekh Karechhe
Likes  0  Dislikes
WhatsApp_icon

Vokal is India's Largest Knowledge Sharing Platform. Send Your Questions to Experts.

Related Searches:Acm Rajya Somporke Kichhu Likh,Write Something About The Assam State.,


vokalandroid